টাইগাররা ৩ ধাপে পাকিস্তান যাচ্ছে

আগের সংবাদ

ফাইনালে উঠার লড়াই

পরের সংবাদ

বাংলাদেশ-ফিলিস্তিন দ্বৈরথ

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১৪, ২০২০ , ১০:১৬ অপরাহ্ণ

সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আজ থেকে মাঠে গড়াচ্ছে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ আন্তর্জাতিক ফুটবলের ষষ্ঠ আসর। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত বিশেষ আসরে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে স্বাগতিক বাংলাদেশসহ ৬ দেশ। উদ্বোধনী ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফিলিস্তিনের মুখোমুখি হবে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে বিকেল ৫টায়। আসরের সবগুলো খেলা সরাসরি সম্প্রচার করবে বিটিভি এবং বেসরকারি চ্যানেল আরটিভি।

এছাড়া খেলা দেখা যাবে অনলাইন চ্যানেল মাইকুজুতে। টুর্নামেন্টের পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান কে-স্পোর্টসের অনলাইনসহ টেলিকমিউনিকেশন (গ্রামীণ, বাংলালিংক ও এয়ারটেল) অ্যাপসের মাধ্যমে সম্প্রচার করবে। বাংলাদেশ বেতারেও সব খেলার ধারা বিবরণী সম্প্রচারিত হবে।

জাতির পিতার নামে আয়োজিত টুর্নামেন্টে অন্তত ২টি এবং সর্বোচ্চ ৪টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবে জেমি ডের শিষ্যরা। এসব ম্যাচ মাঠে বসে দেখার জন্য দর্শকদের আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া ও গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা। মাঠে দর্শক থাকলে জামাল খুশি হবেন বলে জানান। একই সঙ্গে দর্শকদের ভালো কিছু উপহার দেয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন আশরাফুল রানা।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপে জামাল বলেন, আমি সমর্থন চাচ্ছি। আমি চাই মানুষ যেন স্টেডিয়ামে আসে। তারা যদি বাংলাদেশ জাতীয় দলকে সমর্থন দিতে মাঠে আসে, আমি অনেক খুশি হব। আশা করি, আমরাও তাদের ভালো কিছু দিতে পারব।

উদ্বোধনী ম্যাচে ফিলিস্তিনের বিপক্ষে জেতার ব্যাপারে আশাবাদী বাংলাদেশ অধিনায়ক আরো বলেন, আজকের ম্যাচ তো ৫টায়, বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে। আপনাদের সবার সঙ্গেই দেখা হবে আশা করি। ইনশাল্লাহ আমরা ১-০ তে জিতব।

ওদিকে নিজের ফেসবুক পেজে ১৩ জানুয়ারি বিকেল ৪টা ৫ মিনিটে পোস্ট দেয়া এক ভিডিও বার্তায় রানা বলেন, আসসালামু আলাইকুম। আমি গোলরক্ষক আশরাফুল রানা, আপনারা জানেন, ১৫ জানুয়ারি থেকে আমাদের বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ শুরু হচ্ছে। উদ্বোধনী দিনেই আমাদের ম্যাচ আছে। আপনারা মাঠে এসে আমাদের সমর্থন দেবেন এবং দোয়া করবেন যেন এই টুর্নামেন্টে আমরা ভালো রেজাল্ট করতে পারি।

কাতার বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে এ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ৪ ম্যাচে ৮ গোল খেয়েছে বাংলাদেশ। ম্যাচের শেষ দিকে এসে অনেক সময় খেই হারিয়ে ফেলেন খেলোয়াড়রা। এছাড়া সেট পিস থেকেও গোল খেয়ে পয়েন্ট হারানোর রেকর্ড আছে। এবার যাতে সেই ভুলগুলো না হয়, সর্বস্ব দিয়ে সেই চেষ্টা করা হবে বলে জানান স্বাগতিক দলের এক নম্বর গোলকিপার আশরাফুল ইসলাম রানা। তিনি বলেন, আমাদের আরো মনোযোগী হওয়া উচিত। যেন শেষ মুহূর্তে ভুলগুলো না হয়। আমরা নিজেদের মাঠে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের শুরুটা ভালো করতে চাই। ওরা টেকনিক্যাল দিক দিয়ে বেশ এগিয়ে। সেভাবেই আমাদের মাঠে নামতে হবে। আমিসহ ডিফেন্ডারদের কঠিন চ্যালেঞ্জ নিতে হবে।

দলের গোলকিপিং কোচ রায়ান মিমসও সবাইকে সচেতন হতে বললেন। তার ভাষায়, বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ভারতের সঙ্গে শেষ দিকে এসে গোল খেতে হয়েছে। এখানে গোলকিপারের ভুল সেভাবে নেই। পুরো টিমকে সচেতন হতে হবে। ওমান তো শক্তিশালী দল ছিল। এখন সবাই যদি নিজেদের জায়গা থেকে সতর্ক হয়ে খেলে তা হলে ভালো ফল সম্ভব।

টুর্নামেন্টে ৬ দেশ দুগ্রুপে ভাগ হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে। প্রতি গ্রুপের সেরা ২ দল সেমিফাইনালে খেলবে। সেখান থেকে দুদল খেলবে ফাইনালে। শিরোপা নির্ধারণী লড়াই হবে ২৫ জানুয়ারি। ‘বি’ গ্রুপে আছে বুরুন্ডি, সিশেলস ও মরিশাস। মজার বিষয় হচ্ছে ‘এ’ গ্রুপের ৩টি দল বাংলাদেশ, ফিলিস্তিন ও শ্রীলঙ্কা এশিয়ার আর ‘বি’ গ্রুপের তিনটি দেশই আফ্রিকার।

ডিসি