প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের চিত্রনির্মাতাদের মতবিনিময় সভা

আগের সংবাদ

বাংলাদেশ-ফিলিস্তিন দ্বৈরথ

পরের সংবাদ

বিসিবি-পিসিবি সমঝোতা

টাইগাররা ৩ ধাপে পাকিস্তান যাচ্ছে

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১৪, ২০২০ , ৯:৪১ অপরাহ্ণ

অবশেষে পাকিস্তান সফর নিয়ে সমঝোতা হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) ও পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) মধ্যে। দেশটিতে টি-টোয়েন্টির পাশাপাশি টেস্ট সিরিজও খেলতে সম্মত হয়েছে বিসিবি। সঙ্গে বাড়তি একটি ওয়ানডেও খেলবে টাইগাররা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) সভা শেষে গতকাল পিসিবির পক্ষ থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। পিসিবির ওয়েবসাইটে বিজ্ঞপ্তিটি প্রকাশ করা হয়।
বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের পাকিস্তান সফর নিয়ে অনিশ্চয়তা কেটে গেছে। পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। টি-টোয়েন্টি, টেস্ট এবং ওয়ানডে সব ফরমেটের ক্রিকেটই হবে এই সিরিজে। তবে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের পাকিস্তান সফর হবে তিন ধাপে। সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটেছে। সমঝোতা অনুযায়ী প্রথম ধাপে পাকিস্তানে গিয়ে ৩টি টি-টোয়েন্টি খেলবে টাইগাররা। পরের ধাপে ২ টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্ট এবং শেষ ধাপে দ্বিতীয় টেস্ট ও সফরের একমাত্র ওয়ানডে অনুষ্ঠিত হবে।
নতুন সূচি অনুযায়ী, লাহোরে ২৪ থেকে ২৭ জানুয়ারি ৩ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। আর ৭-১১ ফেব্রুয়ারি রাওয়ালপিন্ডিতে ১ম টেস্ট খেলবে রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যরা। এরপর ২ মাস বিরতি দিয়ে এপ্রিলে করাচিতে একটি ওয়ানডে ও দ্বিতীয় টেস্ট খেলবে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। ৩ এপ্রিল ওয়ানডে ম্যাচ এবং ৫-৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে দ্বিতীয় টেস্ট।
বিসিবির সঙ্গে এতদিন দূর থেকেই আলোচনা চলছিল পিসিবির। একাধিক প্রস্তাব আদান-প্রদানের মাধ্যমেও সমঝোতায় আসা হয়নি দুই ক্রিকেট বোর্ডের। ফলে ঝুলে থাকে টাইগারদের পাকিস্তান সফর। তাই সমঝোতায় আসতে এবার একসঙ্গে বৈঠক করেন দুদেশের ক্রিকেট বোর্ড প্রধানরা। দুবাইতে আইসিসি সভাপতি শশাঙ্ক মনোহরের উপস্থিতিতে দুই দেশের বোর্ডের সভাপতি এ সিদ্ধান্ত নেন।
আইসিসির ভবিষ্যৎ সফরসূচি অনুযায়ী, চলতি মাসে পাকিস্তান সফরে যাওয়ার কথা বাংলাদেশ দলের। প্রায় ২ মাসের সফরে দেশটিতে ২ টেস্ট এবং ৩ টি-টোয়েন্টি খেলার কথা ছিল টাইগারদের। কিন্তু সবশেষ মধ্যপ্রাচ্যে উদ্ভ‚ত পরিস্থিতিতে সরকারের কাছ থেকে পাকিস্তানে পূর্ণাঙ্গ সফরের জন্য দল পাঠানোর অনুমতি পায়নি বিসিবি। রবিবার বোর্ড সভা শেষে এমনটাই জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তিনি বলেন, মধ্যপ্রাচ্যের বর্তমান যে অবস্থা, সেটা অবশ্যই অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে ভিন্ন। মধ্যপ্রাচ্যের উত্তেজনাকে বিবেচনায় রেখে পাকিস্তান সফর যতটা সম্ভব সংক্ষিপ্ত করার কথাই বলেছে সরকার। টি-টোয়েন্টি খেলে আমরা দেখে আসতে চাই সেখানকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা কেমন। খেলোয়াড়দেরও একটু আত্মবিশ্বাস বাড়ুক। এরপর আমরা যে কোনো সময়ে গিয়ে টেস্ট খেলে আসব।
রবিবার রাতে পাপন আরো জানান, ‘চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে নতুন করে পুরনো প্রস্তাবই দেয়া হবে পিসিবিকে। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে আবার প্রস্তাব দেব। এরপর চ‚ড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারব। আপাতত তাদের মৌখিকভাবে জানিয়েছি’ পাপনের এমন বক্তব্যের পর সোমবার পিসিবি এক বিবৃতির মাধ্যমে নিশ্চিত করে চলতি সপ্তাহে বৈঠকে বসার বিষয়টি।
দুবাইয়ে অনুষ্ঠিত হয় আইসিসির গভর্নেন্স রিভিউ কমিটির সভা। ওই সভার ফাঁকে টাইগারদের পাকিস্তান সফরের ভবিষ্যৎ নির্ধারণে আলোচনায় বসেন বিসিবি প্রধান পাপন ও পিসিবির চেয়ারম্যান আহসান মানি। বিবৃতিতে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের বক্তব্য ছিল ঠিক এমন, ‘দুবাইয়ের বৈঠক আলোচনা প্রক্রিয়ার ধারাবাহিকতা, যা পিসিবি করবে বিসিবির সঙ্গে ঐকমত্যে আসার জন্য।’
এর আগে চলতি মাসের শুরুতে পাকিস্তানের এআরওয়াই স্পোর্টস টিভি জানায়, ঢাকা সফরে আসছেন মানি। তবে পিসিবির চেয়ারম্যান হিসেবে নয়। মানি আসবেন আইসিসির বাণিজ্যিক ও অর্থ বিভাগের হেড হিসেবে, আইসিসির প্রধান কার্যনির্বাহী মানু সাহনির সঙ্গে।

ডিসি