এলপিজি গ্যাসের মূল্য নির্ধারণের নির্দেশনা চেয়ে রিট

আগের সংবাদ

ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের প্রতিনিধিদের সঙ্গে ফখরুলের বৈঠক

পরের সংবাদ

ফাইনালে উঠার লড়াই আজ

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১৩, ২০২০ , ১:৪০ অপরাহ্ণ

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে গ্রুপ পর্বের লড়াই শেষ হয়েছে পরশু। আজ থেকে শুরু হচ্ছে প্লে-অফের খেলা। আজ ২টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে এলিমিনেটর ম্যাচে মুখোমুখি হবে ঢাকা প্লাটুন ও চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। গ্রুপ পর্বে তৃতীয় ও চতুর্থ হওয়ায় এলিমিনেটর খেলছে ঢাকা ও চট্টগ্রাম। এরপর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় প্রথম কোয়ালিফাইয়ার ম্যাচে মুখোমুখি হবে খুলনা টাইগার্স ও রাজশাহী রয়্যালস। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থানে থেকে গ্রুপ পর্ব শেষ করে খুলনা টাইগার্স। অন্যদিকে তালিকায় দ্বিতীয় হয়ে গ্রুপ পর্ব শেষ করে রাজশাহী রয়্যালস।

ঢাকা ও চট্টগ্রামের মধ্যকার প্রথম ম্যাচে যে জয় পাবে সে খেলবে প্রথম কোয়ালিফাইয়ারে হারা দলের বিপক্ষে দ্বিতীয় কোয়ালিফাইয়ার ম্যাচে। আর যে দল হারবে তাকে টুর্নামেন্ট থেকে সরাসরি বিদায় নিতে হবে। অন্যদিকে খুলনা ও রাজশাহীর মধ্যকার প্রথম কোয়ালিফাইয়ারে জয়ী দল সরাসরি ফাইনালের টিকেট পাবে।

পয়েন্ট টেবিলে শীর্ষস্থানে থাকা খুলনা আসর শুরু করে হ্যাটট্রিক জয়ের মাধ্যমে। কিন্তু মাঝখানে কিছুটা লাইনচ্যুত হয়ে পড়েছিল তারা। তবে সেটি ভালোভাবেই সামলে উঠে মুশফিকুর রহিমের দল। তারা গ্রুপ পর্ব শেষও করে হ্যাটট্রিক জয় দিয়ে। সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকারী ব্যাটসম্যানের মধ্যে শীর্ষে রয়েছেন রাইলি রুশো। আর দ্বিতীয়স্থানে রয়েছেন মুশফিকুর রহিম। তারা দুজনই খেলছেন খুলনার হয়ে। ফলে ব্যাটিং নিয়ে খুলনার দুশ্চিন্তা কম। কারণ খুলনার হয়ে প্রায় প্রত্যেকটি ম্যাচেই কেউ না কেউ জ্বলে উঠছেন। যেমন গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ঢাকার বিপক্ষে সেঞ্চুরি তুলে নেন নাজমুল হোসেন শান্ত। এবারের বিপিএলে প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে তিনি সেঞ্চুরি করেন। তা ছাড়া বোলিংয়েও নিয়মিত পারফর্ম করছেন রবার্ট ফ্রাইলিঙ্ক। তিনি এখন পর্যন্ত ১৮টি উইকেট তুলে নিয়েছেন। এ ছাড়া শহিদুল ইসলাম ও শফিউল ইসলামও প্রয়োজনে জ¦লে উঠছেন। তবে খুলনার একটা চিন্তা থেকে যায় আর সেটি হলো স্পিন নিয়ে। কারণ তাদের স্বীকৃত স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ গ্রুপ পর্বে ৮টি ম্যাচ খেলে মাত্র ১টি উইকেট পেয়েছেন।

এদিকে বিপিএলের গত ছয় আসরে কখনো ফাইনালে খেলার সুযোগ পায়নি খুলনা। অন্যদিকে রাজশাহী ২০১৬ সালে ফাইনালে উঠেছিল। কিন্তু সে বারের ফাইনালে ঢাকার বিপক্ষে হেরে তাদের রানার্সআপ হয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল।

রাউন্ড রবিন পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হওয়া গ্রুপ পর্বে দুইবার মুখোমুখি হয় রাজশাহী রয়্যালস ও খুলনা টাইগার্স। এর মধ্যে দুদলই একটি করে ম্যাচে জয় তুলে নেয়। প্রথম ম্যাচটিতে রাজশাহীকে ৫ উইকেটে হারিয়েছিল খুলনা। ওই ম্যাচে খুলনার বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট করে ১৮৯ রান করেও হারতে হয়েছিল পদ্মা পাড়ের দলটিকে। কিন্তু দ্বিতীয় ম্যাচে খুলনাকে প্রথমে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে মাত্র ১৪৫ রানে আটকে দিয়েছিল আন্দ্রে রাসেলের দল। এই রান মাত্র ৯ উইকেট হারিয়ে টপকে যায় রাজশাহী।

এমএইচ