শীতের তীব্রতা থাকবে আরো তিনদিন

আগের সংবাদ

চট্টগ্রামকে টপকে শীর্ষে রাজশাহী

পরের সংবাদ

সন্তানদের মুখে খাবার দিতে মা-র মাথার চুল বিক্রি

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১২, ২০২০ , ১১:২৭ পূর্বাহ্ণ

সাত মাস আগে আত্মহত্যা করেছেন স্বামী। আপাদমস্তক ঋণে জর্জরিত। হাতে কানাকড়িও নেই। অন্যের কাছে হাত পেতেও সাহায্য পাননি। তার ৩টি সন্তানই অভুক্ত। খাবারের জন্য তারা কাঁদছে। শেষমেশ অসহায়-দরদি মা নিজের চুল বিক্রি করে সন্তানদের মুখে খাবার তুলে দিয়েছেন। এমনই হৃদয়-বিদারক ঘটনা ঘটেছে ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের সালেম শহরে। অসহায় ওই নারীর নাম প্রেমা (৩১)। পরে আত্মহত্যার চেষ্টাও করেন ওই নারী।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম নিউজএইটিনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত শুক্রবার প্রেমার কাছে কোনো কানাকড়িও ছিল না। চোখের সামনে ক্ষুধার জ্বালায় কাঁদছিল ৩ শিশু। তাদের একজনের বয়স ৫ বছর। বাকি দুজনের বয়স আরো কম, ২ আর ৩ বছর। বাড়িতে খাবারের জন্য কিছুই ছিল না। বাধ্য হয়ে

কয়েকজনের কাছে হাতও পাতেন। কিন্তু কারও মন গলেনি। সবাই তাকে তাড়িয়ে দেয়। দিশাহারা অবস্থায় রাস্তায় দাঁড়িয়ে ছিলেন প্রেমা। ভেবে পাচ্ছিলেন না কী করবেন। ঠিক সেই সময়েই রাস্তা দিয়ে এক ফেরিওয়ালা পরচুলা বানানোর জন্য চুল কিনবেন বলে হেঁকে যাচ্ছিলেন! এক মুহূর্তও আর ভাবেননি প্রেমা! নিজের চুল কেটে ১৫০ টাকায় বিক্রি করেন। ১০০ টাকা দিয়ে সস্তানদের জন্য খাবার কেনেন। বাকি টাকা নিয়ে পাশেই একটি দোকানে কীটনাশক কিনতে যান প্রেমা।

এক সপ্তাহ পর প্রেমার এই ঘটনাটি উল্লেখ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট দেন জি বালা নামে এক গ্রাফিক ডিজাইনার। তিনি লেখেন, প্রেমা এরপর বিষাক্ত আরালি বীজ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। কিন্তু বোন এসে তাকে আটকায়। জানা গেছে, ওই ঘটনা পোস্ট করার পর তার সাহায্যে অনেকেই এগিয়ে আসেন। তার জন্য সংগ্রহ করা হয় ১ লাখ ৪৫ হাজার টাকা। গত বৃহস্পতিবার সালেম জেলা প্রশাসন প্রেমার মাসিক বিধবা ভাতাও চালু করে দেয়। বর্তমানে স্থানীয় এক বন্ধুর ইটভাটায় কাজ করছেন প্রেমা।

এমএইচ