লিভারপুলের জয়ের রেকর্ড

আগের সংবাদ

সূত্রাপুর থানার পাশে তুলার দোকানে আগুন

পরের সংবাদ

চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত আকবর বাহিনী

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১২, ২০২০ , ১০:৫৭ অপরাহ্ণ

দক্ষিণ আফ্রিকায় ১৭ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে আইসিসির অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ। এবার টুনামেন্টে শিরোপা জিততে মরিয়া টাইগার যুবারা। প্রোটিয়াদের মাটিতে আবহওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নিয়ে খেলাটা এশিয়ার দলগুলোর জন্য কঠিন এক চ্যালেঞ্জ। তাই বলে হাত গুটিয়ে বসে থাকতে নারাজ বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। দক্ষিণ আফ্রিকায় এক সপ্তাহের ক্যাম্প শেষে যুব বিশ্বকাপের চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত টাইগার যুবারা। দলের অধিনায়ক আকবর আলি জানিয়েছেন, এবারের আসরকে দেখছেন নিজেদের দক্ষতা দেখানোর মঞ্চ হিসেবে। সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারলে শেষ পর্যন্ত লড়াইয়ে থাকা সম্ভব।

মূল খেলা শুরুর আগে আজ অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম অফিসিয়াল প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। একদিন পর দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে মুখোমুখি হবে কিউইদের। গত পরশু জোহানেসবার্গে নিউজিল্যান্ড ও কানাডার অধিনায়কের সঙ্গে সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে আকবর জানিয়েছেন নিজেদের লক্ষ্যের কথা। যুব বিশ্বকাপ টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ১৮ জানুয়ারি জিম্বাবুয়ের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ২১ জানুয়ারি খেলবে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে। ২৪ জানুয়ারি গ্রুপে নিজেদের শেষ ম্যাচে আকবরদের প্রতিপক্ষ পাকিস্তান। আপাতত কেবল জিম্বাবুয়েকে নিয়েই ভাবছেন আকবর। তিনি বলেন, এখানে খেলতে পেরে ভালো লাগছে। আমি মনে করি, বিশ্বকে আমাদের দক্ষতা দেখানোর এটি দারুণ সুযোগ। আমরা ভালো প্রস্তুতি নিয়েছি। এখন মুখিয়ে আছি এই বৈশ্বিক আসরে খেলার জন্য। ছেলেরাও বেশ রোমাঞ্চিত বিশ্বকাপ খেলতে পেরে। তবে এটি ম্যাচ ধরে ধরে খেলার বিষয়। জিম্বাবুয়ে ভালো দল। আমরা ওদের সবশেষ সিরিজটি দেখেছি। ওদের হারাতে হলে আমাদের সেরা খেলাটাই খেলতে হবে।

গত যুব বিশ্বকাপের পর থেকে ৩৩টি ওয়ানডে খেলে ১৮টিতে জিতেছে বাংলাদেশ। হেরেছে ৮টিতে, টাই হয়েছে একটি, পরিত্যক্ত হয়েছে ৬টি ম্যাচ। ৩ বিভাগেই দুর্দান্ত নৈপুণ্য প্রদর্শন করে এই সাফল্য পেয়েছে টাইগার যুবারা। বিশ্বকাপেও সেটি ধরে রাখতে আশাবাদী আকবর। এ বিষয় তিনি বলেন, আমাদের দল বেশ ভারসাম্যপূর্ণ। আমরা ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং, ৩ বিভাগই ভালো অবস্থানে আছে। আমাদের দলের সবাই খুবই প্রতিভাবান। আমি কারও নাম নিতে পারব না। আমরা যদি সামর্থ্য অনুযায়ী খেলতে পারি, তাহলে আমরা টুর্নামেন্টের শেষের দিকে যেতে পারব।

এ ছাড়া দলকে নেতৃত্ব দেয়ার বিষয় আকবার বলেন, অধিনায়কত্ব আমি উপভোগ করি। এটাকে বাড়তি চাপ হিসেবে নিতে চাই না। যখন আমি মাঠে থাকি চিন্তা করি যতটা সম্ভব উপভোগ করার। উইকেটকিপিং আর অধিনায়কত্ব দুটোই আমি মাঠে উপভোগ করি। বাড়তি চাপ হিসেবে নেই না।

নকি