নির্বাচনে কারচুপি হলে আইনি লড়াইয়ে নামবেন তাবিথ

আগের সংবাদ

ভোট চাইতে পারবেন না এমপিরা: তোফায়েল

পরের সংবাদ

কনকনে হাওয়া, আরো কমবে তাপমাত্রা

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১১, ২০২০ , ৪:০০ অপরাহ্ণ

রাত থেকেই উত্তরের কনকনে হওয়া ঝড়ের দাপট দেখাচ্ছে। আকাশেও মেঘের বিস্তার। সকাল থেকে সূর্যের মুখই দেখা যায়নি। প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় অনেকেই বের হননি ঘর থেকে। নিম্ন আয়ের মানুষের জবুথবু অবস্থা। আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, শৈতপ্রবাহ নয়, শীতের অনুভূতি বেড়েছে। সারাদিন ও রাতের তাপমাত্রা কমতে পারে আরো।

শনিবার (১১ জানুয়ারি) সারাদেশের মধ্যে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ঈশ্বরদীতে। সকাল ৯টায় রেকর্ড করা তাপমাত্রা ১০ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিকে, রাজধানীর তাপমাত্রা ১৪ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগেরদিন শুক্রবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৯ দশমিক ৭ সেলসিয়াস। এছাড়া গেল সপ্তায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত রেকর্ড করা হয়েছিল। সে হিসেবে চলতি সপ্তার শুরুতেই তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে।

তবে পৌষের শেষ দিকে তাপমাত্রা কমতে শুরু করবে। মাঘে শীতের তীব্রতা বাড়তে পারে। ইতোমধ্যে উত্তর ও উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে হিমেল হওয়া বইতে শুরু করেছে। কনকনে ঠাণ্ডা হওয়ায় শীতের অনুভূতি বাড়ছে।

আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থার বিষয়ে উল্লেখ করা হয়েছে, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের পশ্চিমাঞ্চল পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে।

শনিবার সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হচ্ছে, অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে। সারাদিন ও রাতের তাপমাত্রা কমে যেতে পারে।

এনএম