ওমানের নতুন সুলতান হাইথাম বিন তারিক আল-সাঈদ

আগের সংবাদ

খুলনায় ১৯২০ শিশুর মুখে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ

পরের সংবাদ

এল ক্লাসিকোর বদলে রিয়াল ডার্বি

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ১১, ২০২০ , ২:০০ অপরাহ্ণ

নতুন বছর ২০২০ সালের শুরুতে রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সেলোনার মধ্যে একটি এল ক্লাসিকো ম্যাচ দেখার সুযোগ এসেছিল দর্শকদের সামনে। কিন্তু সেটি আর হলো না। স্প্যানিশ সুপার কাপের প্রথম সেমিফাইনালে ভেলেন্সিয়াতে হারিয়ে ফাইনালে উঠে রিয়াল মাদ্রিদ। আর গতকাল দ্বিতীয় সেমিফাইনালে অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের মুখোমুখি হয় বার্সেলোনা। কিন্তু দ্বিতীয় সেমিফাইনালে অ্যাতলেটিকোর বিপক্ষে ৩-২ গোলে হেরেছে মেসি-সুয়ারেজরা। ফলে এল ক্লাসিকোর বদলে এখন স্প্যানিশ সুপার কাপে রিয়াল ও অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের দ্বৈরত রিয়াল ডার্বি দেখবে দর্শকরা। আগামীকাল রাত ১২টায় ফাইনালে মুখোমুখি হবে দুদল।

শুক্রবারের ম্যাচটিতে অ্যাতলেটিকোর হয়ে গোল করেন কোকে, আলভারো মোরাতা ও অ্যাঞ্জেল কোরেরা। অন্যদিকে বার্সেলোনার হয়ে গোল করেন লিওনেল মেসি ও আন্তোনিও গ্রিজম্যান। বার্সেলোনার বিপক্ষে ২০১৬ সালের পর থেকে কোনো ম্যাচ জিততে পারেনি অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ। প্রায় ৪ বছর পর তারা সুপার কাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে জিতল অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ। আর এই ৪ বছর পরের জয়ই কপাল পুড়িয়ে দিল ভালভার্দের শিষ্যদের।

ম্যাচটিতে দুদলের লড়াইয়ে অনেক এগিয়েছিল বার্সেলোনা। পুরো ম্যাচে মেসিরা ৭৩ ভাগ সময় বল নিজেদের দখলে রাখতে সমর্থ হয়। অন্যদিকে অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ মাত্র ২৭ ভাগ সময় বল নিজেদের দখলে রাখতে সমর্থ হয়। কিন্তু কাজের কাজ করে ফেলে অ্যাতলেটিকোই। ম্যাচের প্রথমার্ধে গোল করতে পারেনি দুদলের কেউ। এরপর দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরু হওয়ার মাত্র ২০ সেকেন্ডের মধ্যে গোল করে এগিয়ে যায় অ্যাতলেটিকো। পিছিয়ে পরে গোল পরিশোধের জন্য মরিয়া হয়ে ওঠে বার্সা।

তারা এতে সফলও হয়। ম্যাচের ৫১ মিনিটের মাথায় মেসির গোলে সমতা পায় তারা। এরপর ৬২ মিনিটের মাথায় অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যানের গোলে লিড পেয়ে যায় তারা। তখনো হয়তো মেসিরা ভাবতে পারেনি ম্যাচটি জিতে নিবে অ্যাতলেটিকো। ম্যাচের ৮১ মিনিটের মাথায় পেনাল্টি থেকে গোল পেয়ে ২-২ গোলের সমতায় ফেরে অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদ। এরপর ৮৬ মিনিটের মাথায় দলকে তৃতীয় গোলটি এনে দেন কোরেরা।

এদিকে অ্যাতলেটিকোর বিপক্ষে ৪ বছরের অপরাজিত থাকার রেকর্ড ভেঙে যাওয়ায় বার্সা কোচ ভালভের্দের অপসারণ চেয়েছে ক্লাবটির অনেক সমর্থক। তবে এই হারে ভালভার্দের কোনো দোষ নেই বলে জানিয়েছেন লুইস সুয়ারেজ। খেলোয়াড়দের দোষেই অ্যাতলেটিকোর বিপক্ষে হারতে হয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

অন্যদিকে দলের জয়ে দারুণ খুশি অ্যাতলেটিকো মাদ্রিদের হয়ে গোল করা অ্যাঞ্জেল কোরেরা। ম্যাচশেষে তিনি বলেন, ‘এটা আসলে অনেক কঠিন একটি ম্যাচ ছিল। কিন্তু ভাগ্যবশত আমরা ম্যাচটি জয় পেয়েছি’। তিনি আরো বলেন, ‘আমরা ম্যাচটিতে জয় পেয়েছি কারণ আমাদের বিশ্বাস ছিল আমরা পারব।

আমরা শুধু জয় নিয়েই ভাবছিলাম। আমরা এটি করতে পেরেছি এ জন্য সবাই দারুণ খুশি। এদিকে ম্যাচটিতে ভিএআরে কপাল পোড়ে বার্সার। পুরো ম্যাচে তাদের দুটো গোল ভিএআরের কারণে বাতিল হয়ে যায়। যার মধ্যে একটি ছিল মেসির।

এমএইচ