ইরানের হামলার পর তেলের বাজারে আগুন

আগের সংবাদ

হারিয়ে যেতে পারেন হলুদ সমুদ্রে...

পরের সংবাদ

বিজিবি-এমপিএফ বৈঠক

সীমান্তে যৌথ টহলে রাজি মিয়ানমার

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: জানুয়ারি ৮, ২০২০ , ৫:৪৪ অপরাহ্ণ

সীমান্তে যৌথ টহলে রাজি হয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও মিয়ানমার পুলিশ ফোর্স (এমপিএফ)। সীমান্তে ইয়াবা, চোরাচালান, মানব পাচার, অনুপ্রবেশ বন্ধ করতেও রাজি হয়েছে প্রতিবেশী দুই দেশ। ঢাকায় বিজিবি ও এমপিএফ এর মধ্যে সিনিয়র পর্যায়ে পাঁচ দিনব্যাপী সপ্তম সীমান্ত সম্মেলন শেষে আজ বুধবার (৮ জানুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়।

সীমান্তে যৌথ টহলে রাজি হয়েছে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার। বিজিবি ও এমপিএফের মধ্যে সাংস্কৃতিক দল বিনিময়ের মাধ্যমে পারস্পরিক আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর জন্যে উভয় পক্ষ সম্মত হয়েছে। সম্মেলনে বিজিবির পক্ষ থেকে সীমান্তে স্থল মাইন অপসারণের কাজে সহযোগিতার জন্যে মিয়ানমারকে অনুরোধ করা হয়।

বিজিবি জানায়, সম্মেলনে ৯টি বিষয়ে একমত হয়েছে দুই দেশ। একমত হওয়া বিষয়গুলোর মধ্যে রয়েছে- মাদক, চোরাচালান রোধে ‘জিরো টলারেন্স’, আন্তঃদেশীয় অপরাধ, অস্ত্র চোরাচালান, মানবপাচার, পণ্য চোরাচালান ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে এক দেশ অপর দেশকে সহযোগিতা, সীমান্তে উভয় পাশে ১৫০ ফুটের মধ্যে যেকোনো ধরনের সীমানা লঙ্ঘন না করা এবং গুলি চালানোর ঘটনা ঘটলে সঙ্গে সঙ্গে একে অপরকে জানানো।

মিয়ানমার সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া দেয়া সংক্রান্ত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বিজিবি ডিজি মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম বলেন, সীমান্তে চোরাচালানপ্রবণ এলাকাগুলোতে কাঁটাতারের বেড়া দেয়ার বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে একটি প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

সম্মেলনে ১৪ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন বিজিপি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম এবং মিয়ানমারের সফররত ৮ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন চিফ অব পুলিশ জেনারেল স্টাফ পুলিশ বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মায়ো থান।

এসআর