বিদায়ী বছরে রেমিট্যান্স ১৮৩৩ কোটি ডলার

আগের সংবাদ

ছাত্রলীগের পুনর্মিলনীতে উৎসবের আমেজ

পরের সংবাদ

কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী মহাসড়ক নির্মাণ

৭ কোটি টাকা বাজেট নিয়েও অপসারণ হয়নি খুঁটি

প্রকাশিত: জানুয়ারি ৪, ২০২০ , ১২:১৭ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ৪, ২০২০ , ৪:২৭ অপরাহ্ণ

কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের ২৮ কিলোমিটারের মধ্যে প্রায় ৭০০ আরইবি ওজোপাডিকো বৈদ্যুতিক খুঁটি রয়েছে। রাস্তার মাঝখানে বিদ্যমান সচল বৈদ্যুতিক খুঁটি অপসারণ না করায় দুর্ঘটনার ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে যানবাহন ও যাত্রীসাধারণ। ৭০ লাখ টাকা বাজেট দিয়ে ৭ কোটি টাকা নিয়ে ৭ মাসেও অপসারণ হয়নি খুঁটি। এতে রাস্তা নির্মাণের কাজ শেষ করতেও কর্তৃপক্ষকে বেগ পেতে হচ্ছে।

ইতোমধ্যে ওজোপাডিকো তাদের সমস্ত পোল অপসারণ করলেও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি (আরইবি) তাদের স্থাপিত পোল অনুযায়ী পোল অপসারণ করতে ৭০ লাখ টাকা ব্যয় ধরে সওজকে বাজেট দিয়েছে। কিন্তু পরবর্তী সময়ে তাদের নির্ধারিত ৭০ লাখ টাকায় খুঁটি অপসারণ হবে না মর্মে চিঠি দেয় এবং তা কয়েক দফা বৃদ্ধি করে ৭ কোটি টাকায় এসে দাঁড়ায়। সওজ কর্তৃপক্ষ ৭ কোটি পরিশোধ করার পর দীর্ঘ ৭ মাস অতিবাহিত হলেও আরইবি এখনো তাদের খুঁটি অপরসারণ না করে পুকুর, জলাশয়ে খুঁটি স্থাপিত করা যাবে না বলে খোড়া যুক্তি খাড়া করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে নির্ধারিত সময়ে কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী সড়কের নির্মাণকাজ শেষ করতে আরো সময় লেগে যাবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

জানা যায়, ২০১৬ সালে আঞ্চলিক এই মহাসড়কের সম্প্রসারণ কাজ শুরু হয়। এরপর ৩ বছর পেরিয়ে গেলেও রাস্তার মাঝখান থেকে খুঁটি সরানো হয়নি। এ নিয়ে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের ১ তারিখে হাইকোর্ট ওই সব খুঁটি সরাতে এক মাসের সময় বেঁধে দিয়ে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষকে নির্দেশ দেয়।

এ ব্যাপারে কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী তামিমুল হক জানান, ৩ বছর আগে সংশ্লিষ্ট বিদ্যুৎ বিভাগের সঙ্গে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু রাস্তার মাঝখান থেকে ওজোপাডিকোর খুঁটি অপসারিত হলেও এখন পর্যন্ত আরইবির খুঁটি অপসারিত হয়নি বরং তারা এখন পুকুর জলাশয়ে স্থানান্তর করা যাবে বলে নানা অজুহাত দাঁড় করাচ্ছে। রাস্তার মধ্যে বৈদ্যুতিক খুঁটি থাকায় যানবাহন চলাচলে বিঘ্ন ঘটার পাশাপাশি দুর্ঘটনার ঝুঁকিও বেড়েছে। এছাড়া নিরাপদ দূরত্বে খুঁটি স্থাপিত করার কথা বলা হলেও তা আরইবি মানছে না। এসব ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে বলে তিনি জানান।

এদিকে সড়কের প্রায় ৭৫ ভাগ রাস্তার অধিকাংশ জায়গায় বিটুমিন সারফেসের কাজও সম্পন্ন হয়েছে। ব্যস্ততম এই সড়কে যানবাহনও চলছে কিন্তু বেশ কিছু জায়গায় রাস্তার মাঝখানে বৈদ্যুতিক খুঁটি এ পথে চলাচলকারী যাত্রী ও চালকদের দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। দুর্ঘটনার শঙ্কা নিয়ে তারা চলাচল করতে বাধ্য হচ্ছেন।

ওয়েস্ট জোন পাওয়ায় ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ওজোপাডিকো) নির্বাহী প্রকৌশলী শহিদুল ইসলাম বলেন, জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তার মধ্যে বৈদ্যুতিক খুঁটি যে কোনো সময় প্রাণহানি ঘটতে পারে। এমন বিষয় বিবেচনায় নিয়ে কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী সড়কের সব ঝুঁকিপূর্ণ খুঁটি অপসারণ করে নিরাপদ দূরত্বে স্থাপনের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।

কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মহাব্যবস্থাপক হারুন-উর রশিদ জানান, নির্মাণাধীন এই আঞ্চলিক মহাসড়কে প্রায় ৬৫০টি বৈদ্যুতিক খুঁটি অপসারণের কাজ চলছে। এর মধ্যে রাস্তার মাঝখানে অতি ঝুঁকিপূর্ণ ৬০-৭০টি খুঁটি অপসারণ করা হয়েছে। এখনো আরো বেশ কিছু খুঁটি রাস্তার মাঝখানে রয়ে গেছে। সেগুলোও দ্রুততার সঙ্গে সরিয়ে নেয়া হবে।

৭০ লাখ টাকা বাজেট দিয়ে তা ৭ কোটি টাকা নেয়ার বিষয়ে তিনি জানান, ওই টাকার চেয়ে ব্যয় আরো বেশি হবে তাই বৃদ্ধি করা হয়েছে। তিনি আরো জানান, খুব শিগগিরই কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী সড়কের আমাদের খুঁটি অপসারণের কাজ শেষ করা হবে।

কুষ্টিয়াসহ এতদাঞ্চলের মানুষের প্রাণের দাবি কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী মহাসড়ক। মানুষের চাহিদা ও প্রয়োজনের কথা বিবেচনা করে সরকার কুষ্টিয়া অংশে ২৮ কিলোমিটার মহাসড়ক প্রস্তুতকরণের কাজ শুরু করে। জে আর, রানা বিল্ডার্সসহ ৩টি ঠিকাদারি কোম্পানিকে এ কাজ প্রদান করা হয়।

অপরদিকে মাত্র ৭০ লাখ টাকা বাজেট দিয়ে তা কয়েক দফায় বৃদ্ধি করে ৭ কোটি টাকা নিয়েও এখন পর্যন্ত কাজ শেষ না করে নানা টালবাহানায় সড়কটির পূর্ণাঙ্গ কাজ শেষ করা যাচ্ছে না। এতে করে সরকারি অর্থের যেমন অপচয় হচ্ছে অপরদিকে সার্ভেতে ৭০ লাখের পরিবর্তে ৭ কোটি টাকা আদায়ের বিষয়টি নিয়ে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এ ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন সচেতন মহল।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়