দূষিত বাতাসে ভাসছে ঢাকা

আগের সংবাদ

সেরা ৪ গেমস

পরের সংবাদ

ফিরে দেখা ২০১৯

বদলে দেয়া নতুন প্রযুক্তি

ডটনেট ডেস্ক

প্রকাশিত হয়েছে: ডিসেম্বর ২৯, ২০১৯ , ১১:১৬ পূর্বাহ্ণ

টেক জগতে নানা কারণে আলোচিত বিদায়ী এ বছর। এ বছরে স্মার্টফোনের ডিজাইন ও ফিচারে এসেছে আমূল পরিবর্তন। ক্যামেরা থেকে শুরু করে নিরাপত্তা ব্যবস্থায় সর্বাধুনিক প্রযুক্তির ছোঁয়া লেগেছে। এসব প্রযুক্তি ও ফিচার বিভিন্ন ব্র্যান্ডের স্মার্টফোনকে করেছে আরো আকর্ষণীয়। বছরজুড়ে গ্রাহকদের মনোযোগ কেড়েছে নতুন এসব প্রযুক্তি-

পাঞ্চ-হোল ফ্রন্ট ক্যামেরা : ২০১৯ সালে স্মার্টফোনের ক্যামেরায় পরিবর্তন এসেছে। বছরের শুরুর দিকে অনার ভিউ ২০ স্মার্টফোনে প্রথম ফ্রন্ট ক্যামেরায় লেজার ড্রিলড পাঞ্চ-হোল নচ ব্যবহার করা হয়। এর পর বছরজুড়ে বিভিন্ন কোম্পানি স্মার্টফোনে এ প্রযুক্তি ব্যবহার করেছে। স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি ১০প্লাস, শাওমির নোট ১০, ভিভোর জেডওয়ান প্রো স্মার্টফোনে এ প্রযুক্তির ব্যবহার সবচেয়ে আলোচিত হয়েছে। এটি স্মার্টফোনে ফ্রন্ট ক্যামেরার ডিজাইনে ভিন্নতা এনেছে। স্মার্টফোনের স্ক্রিনের আকার বাড়িয়েছে।

৪৮ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা : বছরজুড়ে স্মার্টফোনের ক্যামেরা ছিল আলোচনার কেন্দ্রে। এ সময় বিভিন্ন কোম্পানি রীতিমতো প্রতিযোগিতা করে স্মার্টফোনের মেগাপিক্সেল বাড়িয়েছে। ক্যামেরার ক্ষেত্রেও বছরের শুরুর দিকে মাইলফলক স্থাপন করে অনার ভিউ ২০ স্মার্টফোনটি। প্রথম ৪৮ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা বাজারে আসে এ স্মার্টফোনটির মাধ্যমে। এরপর ওয়ানপ্লাস ৭, ওয়ানপ্লাস ৭প্রো, ওয়ানপ্লাস ৭টি, ওয়ানপ্লাস ৭টি প্রো, অপো এফ১১ প্রো, অপো রেনো, শাওমির রেডমি কে২০ প্রো, নোট ৭, নোট ৭ প্রো, মি এ৩, রিয়েলমি ৫ প্রো, স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি এম৩০এস, রিয়েলমি ৫এস-সহ বেশ কয়েকটি স্মার্টফোনে ৪৮ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে।

ইন-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর : স্মার্টফোনের নিরাপত্তায় ফ্রিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের ব্যবহার আগেই হয়েছে। চলতি বছর টেক জগতে আলোচনা হয়েছে ইন-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ব্যবহার নিয়ে। এ প্রযুক্তি পেছনের নচে নয় বরং ডিসপ্লের ভেতরের ফিঙ্গারপ্রিন্ট ব্যবহারের সুবিধা দিচ্ছে গ্রাহকদের। ওয়ানপ্লাসের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনে সর্বাধুনিক এ প্রযুক্তির যাত্রা হলেও পিছিয়ে নেই কোম্পানিগুলোও। স্যামসাং, শাওমি, অপো, ভিভো বিভিন্ন মডেলের স্মার্টফোনে বিশেষ এ ফিচার সংযুক্ত করেছে। এর মধ্য দিয়ে স্মার্টফোনের নিরাপত্তা ফিচার নতুন মাত্রা পেয়েছে।

৪ হাজার এমএএ৯ইচ ব্যাটারি : গ্রাহকদের এ সুবিধা প্রদানে বিভিন্ন কোম্পানি নিজেদের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনে ৪ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ার ব্যাটারি যুক্ত করেছে। দামি ফোনের পাশাপাশি তুলনামূলক কম দামি স্মার্টফোনেও ৪ হাজার এমএএইচ ব্যাটারি ব্যবহার করতে দেখা গেছে। ৪ হাজার এমএএইচ ব্যাটারির স্যামসাং গ্যালাক্সি এম৩০এস, শাওমির রেডমি নোট ৮ প্রো, ভিভোর ইউ১০। আরো রয়েছে ইইউ২০, জেড১ প্রো, রিয়েলমির এক্সটি, ৫প্রো, অপোর এফ১১ প্রো, এ৯ মডেলের স্মার্টফোন বেশি আলোচনায় এসেছে।

পপ-আপ সেলফি ক্যামেরা : বিদায়ী বছরে মেইনস্ট্রিম স্মার্টফোনগুলোয় পপ-আপ সেলফি ক্যামেরার ব্যবহার ভিন্ন মাত্রা যুক্ত করেছে। ডিসপ্লের আকার তুলনামূলক বড় করার জন্য ব্যবহার হওয়া স্মার্টফোনের এ ভিন্নরূপী ডিজাইন গ্রাহকরা পছন্দ করেছেন।

বছরজুড়ে বাজারে আসা শাওমির রেডমি কে২০ প্রো, রিয়েলমি এক্স, ওয়ালপ্লাস ৭, ওয়ানপ্লাস ৭টি, ৭টিপ্রো, অপোর রেনো ১০এক্স জুম, স্যামসাং গ্যালাক্সি এ৮০, ভিভোর ভি১৫ প্রো, ভি ১৭ প্রো-সহ বিভিন্ন মডেলের স্মার্টফোনে পপ-আপ সেলফি ক্যামেরা ব্যবহার হয়েছে।

ডার্ক মোড : এটি স্মার্টফোন ডিভাইসের বিভিন্ন সফটওয়্যারের ক্ষেত্রে বড় ধরনের পরিবর্তন। ডিভাইস নির্মাতাদের পাশাপাশি বিভিন্ন সফটওয়্যার ডেভেলপার চলতি বছর তাদের সেবায় ডার্ক মোড ফিচার এনেছে।
টানা ব্যবহারের ফলে যাতে কারো চোখে সমস্যা না হয়, সেজন্য আনা হয়েছে ডার্ক মোড ফিচার। ডিভাইস ব্যবহারকারীদের মধ্যেও এ ফিচার ইতিবাচক সাড়া ফেলেছে। অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএসের সর্বশেষ সংস্করণে ডার্ক মোড ফিচারে বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে।

ফাস্ট চার্জিং সমর্থন : ফার্স্ট চার্জিং ফিচার বা খুব অল্প সময়ে স্মার্টফোনের ব্যাটারি চার্জ করে নেয়ার সুবিধা।
আরো একটি বড় ফিচার, যা চলতি বছর অ্যান্ড্রয়েড ফোনে প্রথম ব্যবহার হয়েছে। স্যামসাং থেকে শুরু করে অপো, ভিভো, শাওমি, রিয়েলমি এবং হুয়াওয়েসহ অন্য অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ব্র্যান্ডগুলো এরই মধ্যে তাদের হ্যান্ডসেটে এ প্রযুক্তি ব্যবহারের সমর্থন এনেছে। স্মার্টফোনে ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি ফিচার আসায় এখন আর আগের মতো ঘণ্টার পর ঘণ্টা ডিভাইস চার্জে দিয়ে রাখতে হয় না।

এসআর