প্রধান শিক্ষক বিহীন ৪৯ প্রাথমিক বিদ্যালয়

আগের সংবাদ

ফের অনশনে যাচ্ছেন পাটকল শ্রমিকরা

পরের সংবাদ

ফজলুল হক স্মৃতি পুরস্কার পেলেন সুচন্দা ও রাফি

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: ডিসেম্বর ২৮, ২০১৯ , ৩:৪৮ অপরাহ্ণ

বাংলা চলচ্চিত্রের অগ্রদূত পুরুষ প্রয়াত ‘ফজলুল হক স্মৃতি পুরস্কার’১৯ পেয়েছেন চলচ্চিত্র পরিচালনায় বিশিষ্ট চলচ্চিত্রাভিনেত্রী কোহিনূর আখতার সুচন্দা এবং চলচ্চিত্র সাংবাদিকতয় রাফি হোসাইন। গত ২৭ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে আয়োজিত এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে এ দু’জনের হাতে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। উত্তরীয় ও সনদ তুলে দেন সুজাতা, সালাউদ্দীন জাকী এবং ফজলুল হকের মেয়ে কেকা ফেরদেীসী। অনুষ্ঠানে দেখানো হয় ফজলুল হকের বর্ণাঢ্যর্ জীবন ও কর্ম নিয়ে ৩০ মিনিটের একটি প্রামাণ্যচিত্র ‘সম্মুখযাত্রী’। এটি পরিচালনা করেছেন শহীদুল আলম সাচ্চু। সেখানে কিংবদন্তীতুল্য ব্যক্তিত্বরা ফজলুল হকের বর্ণিল কর্মজীবন নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন। এরপর ফজলুল স্মৃতি পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রয়াত ব্যক্তিদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এ অনুষ্ঠানে পরিবারের পক্ষে কেকা ফেরদৌসী ঘোষণা দেন আগামী বছর থেকে ‘ফজলুল হক স্মৃতি পুরস্কার’ প্রদানের জন্য নতুন কমিটি হবে। যার নেতৃত্ব দিবেন ফজলুল হকের দুই নাতনী মেঘনা ও মোহনা। ফজলুল হক ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম চলচ্চিত্র বিষয়ক পত্রিকা ‘সিনেমা’র সম্পাদক এবং বাংলাদেশের প্রথম শিশুতোষ চলচ্চিত্র ‘প্রেসিডেন্ট’ এর পরিচালক, প্রথম আইপিএস এবং প্রথম ডেপলপমেন্ট ব্যসার উদ্ভাবক। তাঁর স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ২০০৪ সাল থেকে এ পুরস্কার দিয়ে আসছে ‘ফজলুল হক স্মৃতি কমিটি’।

পুরস্কার গ্রহণের পর কোহিনূর আখতার সুচন্দা বলেন ‘ফজলুল হক বাংলা চলচ্চিত্রে ইতিহাস সৃষ্টিকারী একজন ব্যক্তিত্ব ছিলেন। তাঁকে আমার সেলুট। রক্ষণশীল, কুসংস্কারে ভরা জাতিকে চলচ্চিত্রের মাধ্যমে জাগিয়ে ছিলেন তিনি। ওই মানুষটিকে স্মরণ করে আমাকে সম্মাননা জানানোর জন্য আমি কৃতজ্ঞ। আজকের এই পুরস্কারপ্রাপ্তির আনন্দ আমি আপনাদের বুঝাতে পারবো না।’ রাফি হোসাইন বলেন ‘ফজলুল হক প্রয়াত হলেও এই পুরস্কার তাঁকে বাঁচিয়ে রাখবেন যুগযুগান্তর, তাঁর স্মৃতি চলচ্চিত্র জগতের আজীবন প্রেরণা হয়ে ছাড়া দিবেন। তাঁর সহধর্মিনী রাবেয়া খাতুন এবং সুযোগ্য উত্তরসূরি ফরিদুর রেজা সাগরকে ধন্যবাদ। ফরিদুর রেজা সাগরের কাছে কোনো আবদার নিয়ে গেলে তিনি কখনোই না করেননি। তিনি শুধু নামেই নন, মননেও একজন মহৎ মানুষ। এ পুরস্কার পেয়ে আমি ভীষণভাবে সম্মানিত বোধ করছি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লি. ও চ্যানেল আই-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, ইমপ্রেস গ্রুপের পরিচালক ও ফজলুল হকের মেয়ে কাকলীর স্বামী জহির উদ্দিন মাহমুদ মামুন, চলচ্চিত্র পরিচালক বাসসাস এর সাবেক সভাপতি আবদুর রহমান, বাংলাদেশ পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, ছড়াকার আমীরুল ইসলাম, অভিনেতা আল মনসুর, চিত্রনায়ক ওমর সানী, মৌসুমী, চম্পা, প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু, অনিমা রায়, রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা-সহ বিভিন্ন অঙ্গণের বিশিষ্ট জনেরা।