সঙ্গীতশিল্পী পৃথ্বীরাজ আর নেই

আগের সংবাদ

মাশরাফি-আফ্রিদি স্বরূপে ফেরার অপেক্ষায়

পরের সংবাদ

চট্টগ্রাম যাচ্ছে বিপিএল

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: ডিসেম্বর ১৫, ২০১৯ , ২:৪২ অপরাহ্ণ

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের ঢাকার প্রথম পর্ব শেষ হয়েছে গতকাল। রবিবার (১৫ ডিসেম্বর) ও আগামীকাল বিরতি দিয়ে ১৭ ডিসেম্বর থেকে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুরু হবে দ্বিতীয় পর্ব। চলবে ২৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত। এরপর আবার ঢাকায় ফিরে আসবে বিপিএল। ঢাকার দ্বিতীয় পর্বে হবে ৮টি ম্যাচ। ঢাকা পর্ব শেষে বিপিএল যাবে সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে।

গতবারের মতো এবারো ৩টি স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের সপ্তম আসর। প্রথমদিকে বিপিএল শুধু ঢাকা ও চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হলেও পরে সিলেটে নিয়ে যাওয়া হয়। ২০১৭ সালে প্রথমবার বিপিএলের খেলা মাঠে বসে দেখার সুযোগ পায় সিলেটের দর্শকরা। এবারের বিপিএলে চট্টগ্রাম পর্বে হবে ১২টি ম্যাচ। ম্যাচ শুরুর সময়ে থাকবে না কোনো পরিবর্তন। যথারীতি প্রথম ম্যাচ শুরু হবে দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে। আর দ্বিতীয় ম্যাচ শুরু হবে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়।

চট্টগ্রাম পর্বে ১৭ তারিখ দিনের প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হবে খুলনা টাইগার্স ও রাজশাহী রয়্যালস। দ্বিতীয় ম্যাচে মাঠে নামবে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স ও সিলেট থান্ডার। ৭ দলের সবাই চট্টগ্রাম পর্বে অংশ নিবে। ফলে গতকাল ঢাকা পর্ব শেষে দলগুলো চট্টগ্রামের উদ্দেশে রওনা দেয়ার প্রস্তুতি শুরু করে দেয়। ১৭ ডিসেম্বর থেকে ২৪ ডিসেম্বরের মধ্যে ১৯ ও ২২ তারিখ কোনো খেলা হবে না। এবারের বিপিএলের টিকেটের সর্বনিম্ন মূল্য ধরা হয়েছে ২০০ টাকা। বিসিবি থেকে জানানো হয়েছিল এটি আপাতত ঢাকা পর্বের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে চট্টগ্রামে হয়তো টিকেটের একই দাম থাকবে।

এদিকে এবার ঢাকায় প্রথম পর্বে ম্যাচ হয়েছে ৮টি। এর মধ্যে সবচেয়ে সফল দল রাজশাহী রয়্যালস। তারা ২টি ম্যাচ খেলে ২টিতেই জয় পেয়েছে। রানরেট ও জয়সহ সবদিক দিয়ে এগিয়ে থেকে ৪ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে রয়েছে তারা। অন্যদিকে দ্বিতীয় সফল দল চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স। তারা তিনটি ম্যাচের মধ্যে দুটিতে জয় তুলে নিয়েছে। অন্যদিকে পয়েন্ট টেবিলের একদম তলানিতে রয়েছে সিলেট থান্ডার। তারা তাদের খেলা প্রথম দুটো ম্যাচের দুটোতেই হারে। আর ৬ নম্বরে রয়েছে রংপুর রেঞ্জার্স। তারা ঢাকা পর্বে দুটো ম্যাচ খেলে দুটোতেই হেরেছে।
এদিকে বিপিএলে গত কয়েক বছর ধরে দর্শকখরা দেখা যাচ্ছে। বিশেষ করে ঢাকায় গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলোতে।

এই দিক দিয়ে উল্টো চিত্র দেখা যায় চট্টগ্রাম ও সিলেট স্টেডিয়ামে। চট্টগ্রামে অনেক মানুষ বিপিএল ম্যাচের জন্য অধীর আগ্রহে বসে থাকে। সিলেটে তার চেয়েও বেশি আগ্রহ দেখা যায়। সিলেটে মূলত অনুষ্ঠিত হয় গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলো। আর সেই গ্রুপ পর্বের ম্যাচের জন্যই দর্শকদের মধ্যে টিকেটের জন্য কাড়াকাড়ি দেখা যায়। এখন দেখার বিষয় ঢাকার পর চট্টগ্রাম ও সিলেটে দর্শকদের এবার আগ্রহ কেমন থাকে।