‘শিক্ষার্থীরা লাশ হওয়ার জন্য আসে না বিশ্ববিদ্যালয়ে’

আগের সংবাদ

নয়াদিল্লীতে ৪৩ জনের প্রাণহানিতে স্পিকারের শোক

পরের সংবাদ

বড় জয়ে স্বর্ণ জিতলেন সৌম্য-শান্তরা

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: ডিসেম্বর ৯, ২০১৯ , ৪:৪৮ অপরাহ্ণ

এসএ গেমসে ক্রিকেটের পুরুষ ইভেন্টের ফাইনাল ম্যাচে প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কাকে সাত উইকেটের বড় ব্যবধানে হারিয়ে স্বর্ণ জয় করেছে বাংলাদেশের  সৌম্য-শান্তদের বাহিনী। শ্রীলঙ্কার দেয়া ১২৩ রানের টার্গেটে  ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশ ৩ উইকেট হারিয়ে ১৮ ওভার ১ বলে ১২৫ রান করে জয় তুলে নেয়। নাজমুল হাসান শান্ত করেন করেন সর্বোচ্চ ৩৫ রান।

২০১০ সালে এস এ গেমসের প্রথম আসরের স্বর্ণটিও নিজেদের কাছে রেখে দিয়েছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ। ৯ বছর পর দ্বিতীয় আসরে খেলতে নেমে সেটি ধরে রাখল তারা।

কীর্তিপুর ত্রিভুবন বিশ্ববিদ্যালয় ক্রিকেট  মাঠে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে লঙ্কানদের সংগ্রহ সব উইকেট হারিয়ে ১২২ রান। সর্বোচ্চ রান ২৫ রান করেছেন শম্মু আশান। ৪.৪ ওভারে দলীয় ৩৬ রানের মাথায় প্রথমে আউট হয়েছেন ওপেনার নিশান মাদুস্কা ফার্নান্ডো।  ১৯ বল খেলে ২ চারে ১৬ রান করে সুমন খানের বলে আফিফ হোসেন ধ্রুবর তালুবন্দী হন তিনি। ওয়ান ডাউনে নামা লাসিথ ক্রোসপুল্লে ষষ্ঠ ওভারে ৩ বল মোকাবেলায় ১ রান করেই সাঝঘরে ফেরেন। ওই একই ওভারে হাসান মাহমুদের দ্বিতীয় শিকার হন কামিন্দু মেন্ডিস। এরপর অধিনায়ককে সঙ্গে নিয়ে ওপেনার পাথুম নিশাঙ্কা দলকে এগিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু ১১ ওভার চলাকালে ২৪ বলে ২২ রান করা পাথুম কাটা পড়েন রান আউটে।

একই ওভারে অধিনায়ক চেরিথ আশালঙ্কা ব্যাক্তিগত ১২ রানে মেহেদি হাসানের বলে বোল্ড হন। দলীয় ৭০ রানের মাথায় ২ বল খেলে শুন্য রানে আউট হন আসেন বান্দ্রা। ৮বলে  ৮ রান করে জেহান ড্যানিয়েল তানভীরের দ্বিতীয় শিকার হন। বাংলাদেশের পক্ষে ৩টি  উইকেট পেয়েছেন হাসান মাহমুদ ও ২টি তানভীর ইসলাম।  আর ১টি করে পেয়েছেন সুমন খান এবং মেহেদি হাসান।

ছেলেদের এই স্বর্ণজয়ের মাধ্যমে এস এ গেমসে নিজেদের ৩৫ বছরের ইতিহাস ভাঙতে সমর্থ হয়েছে বাংলাদেশ। ক্রিকেটের এই স্বর্ণসহ বাংলাদেশের পাশে যোগ হল ১৯টি স্বর্ণপদক। এর আগে ২০১০ সালে ১৮টি স্বর্ণপদক জিতেছিল লাল সবুজের প্রতিনিধিরা।