জাতীয় পার্টি কারো ব্যক্তিগত দল নয়

আগের সংবাদ

‘কয়লা আমদানিতে মূসক ছাড় অপরিণামদর্শী’

পরের সংবাদ

মুক্তিযোদ্ধা নাজিমের স্ত্রীর দুচোখে শুধুই অন্ধকার

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি

প্রকাশিত হয়েছে: ডিসেম্বর ৭, ২০১৯ , ৮:১৮ অপরাহ্ণ

রৌমারী উপজেলার বন্দবেড় ইউনিয়নের বন্দবেড় গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিনের স্ত্রী অহেজা বেগমের (৬০) দুচোখে শুধুই অন্ধকার। গত ৫ ডিসেম্বর নিজ বাড়িতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। বীরমুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীর অসুস্থতার খবর পেয়ে শনিবার (৭ ডিসেম্বর) দুপুরের দিকে তাকে হাসপাতালে দেখতে যান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন।

মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন রৌমারী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ আব্দুল্লাহ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আল ইমরান, রৌমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবু মোহাম্মদ দিলোওয়ার হাসান ইনাম, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা আকতারসহ স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা।

প্রতিমন্ত্রী অহেজা বেগমের শারিরীক অবস্থার খোঁজ-খবর নিয়ে ও চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা উন্নত চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে আহেজা বেগমের মেয়ে নার্গিস আকতার কান্না জড়িত কণ্ঠে বলছেন, অর্থের অভাবে আমার মায়ের চিকিৎসাই করা সম্ভব হচ্ছে না। তার ওপর বাইরে নিয়ে যাওয়ার অর্থ কোথায় পাব।

স্ত্রী অহেজা বেগম ও একমাত্র মেয়ে নার্গিস আকতারকে রেখে ২০১৫ সালে বীরমুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন মারা যান। মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে পাওয়া সম্মানী ভাতা দিয়েই চলতো তাদের মা মেয়ের সংসার। জীবিত থাকাবস্থায় নাজিম উদ্দিন অসুস্থ হয়ে পড়লে ধার-দেনা করে চিকিৎসা চলতো। নাজিম উদ্দিনের মৃত্যুর পর সম্মানি ভাতা সেই ধারের টাকা পরিশোধ করতেই ব্যয় করতে হতো। এমন পরিস্থিতিতে অহেজা বেগমের চিকিৎসার কোনো অর্থ সংস্থান নেই।

রৌমারী হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. অনুপ কুমার বিশ্বাস বলেন, আমরা প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছি। তার অবস্থা আঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

এনএম