বিএনপির পুরনো চেহারা ফের ভেসে উঠেছে: নানক

আগের সংবাদ

হাজিদের হজ পালনে সহজ করা হচ্ছে

পরের সংবাদ

মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়াটা ছিলো স্বেচ্ছাসেবক কাজ

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: ডিসেম্বর ৫, ২০১৯ , ৫:১০ অপরাহ্ণ

১৯৭১ সালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উদাত্ত আহবানে দল মত নির্বিশেষে যার যা কিছু আছে তা নিয়ে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলাম সেটাই ছিল মূলত স্বেচ্ছাসেবক কাজ বলে মনে করেন, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য।

বৃহস্পিতিবার (৫ ডিসেম্বর) আন্তজার্তিক স্বেচ্ছাসেবক দিবস উপলক্ষ্যে ইন্ডিপেনন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি মিলনায়তন, বসুন্ধরা, ঢাকায় জাতিসংঘ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন (ইউএনভি) কর্তৃক আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী এ’সব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, তরুণ স্বেচ্ছাসেবকরা উন্নয়ন খাতে কাজ করতে গিয়ে তাদের নিজেদের নানান দক্ষতা এবং নেতৃত্বমূলক গুণাবলি অনুশীলন করার সুযোগ পান যা তাদের করে তোলে আরো দায়িত্ববান।  আমি মনে করি, শৈশব থেকেই শিক্ষা-পাঠ্যক্রমে স্বেচ্ছাসেবার ধারণা অন্তর্ভূক্ত করা দরকার যাতে শিশুরা বিদ্যালয় থেকেই স্বেচ্ছাসেবার গুরুত্ব বুঝতে পারে এবং আমি নিশ্চিত, এটি তাদের মানসিক বিকাশকে ইতিবাচকভাবে উন্নতি করার ক্ষেত্রে দারুণ প্রভাব ফেলবে। এটি আমাদের সমাজে সহনশীলতা, ভালবাসা এবং একে অপরকে সহায়তা করার মানসিকতা তৈরি করবে।

তিনি বলেন, স্বেচ্ছাসেবা জীবনের সৌন্দর্য। আমি নিশ্চিত, আমরা সবাই যদি মন থেকে স্বেচ্ছাসেবায় এগিয়ে আসি তবে বাংলাদেশ আরো অনেক উন্নত হবে। বাংলাদেশে স্বেচ্ছাসেবা কার্যক্রম জোরদার করার ব্যাপারে আমাদের সবাইকে একত্রে কাজ করতে হবে। বাংলাদেশ একটি দূর্যোগপ্রবন দেশ। দেশের সকল প্রকারের দূর্যোগ মোকাবেলায় আমাদের সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, আমাদের মন্ত্রণালয় থেকে আমরা সকল প্রকার সহায়তা প্রদান করব যাতে স্থানীয় সরকার পর্যায়ে স্বেচ্ছাসেবীদের সংগঠন আরও জোরদার হয়। আমার মতে জাতীয় পর্যায়ে তরুণদের জাতিসংঘের স্বেচ্ছাসেবা কার্যক্রমে অন্তর্ভূক্তির ব্যাপারে আরো উৎসাহিত করা প্রয়োজন। আমি আমার মন্ত্রণালয়কে বলব যাতে তারা জাতীয় জাতিসংঘ স্বেচ্ছাসেবকদের স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কার্যক্রম এবং জাতিসংঘের বিভিন্ন প্রকল্পে অন্তর্ভূক্তির ব্যপারে সচেষ্ট হয়।

এসএইচ