বাড়াবাড়ির একটা সীমা আছে: প্রধান বিচারপতি

আগের সংবাদ

মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়াটা ছিলো স্বেচ্ছাসেবক কাজ

পরের সংবাদ

বিএনপির পুরনো চেহারা ফের ভেসে উঠেছে: নানক

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: ডিসেম্বর ৫, ২০১৯ , ৫:০৮ অপরাহ্ণ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, “বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিনকে কেন্দ্র করে সুপ্রিম কোর্টে বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা যে হট্টগোল সৃষ্টি করেছেন। তা নজিরবিহীন। এতে করে প্রমাণ হয় বিএনপি’র পুরনো চেহারা আবার ভেসে উঠেছে। যেমন ভাবে এর আগে তারা আন্দোলনের নামে জ্বালাও-পোড়াও অগ্নিসংযোগ করে জীবন্ত মানুষকে পুড়িয়ে মেরেছে।”

নানক বলেন, খালেদা জিয়া এতিমের টাকা চুরি করে খেয়েছেন। এই মামলা আওয়ামী লীগ সরকার করেনি, করেছে খালেদা জিয়ার পছন্দের ব্যক্তি ইয়াজউদ্দিন, ফখরুদ্দিন’রা। আদালত তাকে সাজা দিয়েছে। সাজাপ্রাপ্ত আসামি হয়ে তিনি এখন জেলে আছেন। এই ঘটনার মধ্য দিয়ে তারা বিচারপতিদের চাপ সৃষ্টি করে খালেদা জিয়াকে জামিনে মুক্ত করতে চান। কিন্তু জোর করে আদালত থেকে রায় নেয়া যাবে না।

বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে নীলফামারী জেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

জাহাঙ্গীর কবির নানক আরো বলেন, দুঃসময়ে কর্মী আর সুসময়ে আত্মীয়-স্বজন, এটা চলবে না। ঘরের দরজা-জানালা বন্ধ করে কমিটি করা চলবে না। এতদিনে যারা বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন জনের হাত ধরে দলে অনুপ্রবেশ করেছে। আগামী সাত দিনের মধ্যে তাদেরকে ঝেটিএ বের করে দিতে হবে। তালিকা ধরে ধরে অনুপ্রবেশকারীদের মাননীয় নেত্রী বের করে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক বলেন, আদালতে হট্টগোল করে জোর করে চাপ সৃষ্টি করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা যাবে না। আইনকে আইনের গতিতেই চলতে দেয়া উচিত। এই উত্তর অঞ্চল এক সময় ছিল মঙ্গাপীড়িত। জননেত্রী শেখ হাসিনা তার ১০ বছরে ওই এলাকার জন্য ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড হাতে নিয়েছেন। আজকে উত্তরাঞ্চলের মঙ্গা নেই। উত্তরাঞ্চলের মঙ্গা’কে তিনি জাদুঘরে পাঠিয়েছেন। বিশ্বের দরিদ্র দেশগুলোকে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের পথ দেখায়।

আসাদুজ্জামান নূর বলেন, আওয়ামী লীগের শক্তি তৃণমুল, যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবসময় বলেন। এজন্য তৃণমূলকে শক্তিশালী করতে হবে। আজকে সরকার যে উন্নয়ন করছে, দেশটা এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু যারা সরকারের উন্নয়ন সহ্য করতে পারেনা তারা ষড়যন্ত্র করছে।

সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মমতাজুল হকের সঞ্চালনায় সম্মেলনের উদ্বোধন করেন দলটির প্রেসিডিয়াম সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, নীলফামারী-২ আসনের সংসদ সদস্য সাবেক সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য রাবেয়া আলীম, আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সেলের সহ-সম্পাদক নাইমুজ্জামান মুক্তা।

এমএইচ