আ. লীগের সহযোগী সংগঠন হচ্ছে মৎস্যজীবী লীগ

আগের সংবাদ

টিভিতে আজ যেসব খেলা রয়েছে

পরের সংবাদ

বাংলাদেশ ও তুরস্ক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ২৮, ২০১৯ , ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ

বাংলাদেশ ও তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের দ্বি-পাক্ষিক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (২৭ নভেম্বর) তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে বাংলাদেশের ১০ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান ও তুরুস্কের পক্ষে নেতৃত্ব দেন তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুলেইমান সয়লু।

বৈঠকে উভয় মন্ত্রী অনিয়মিত অভিবাসন, নিরাপত্তা, সন্ত্রাস দমন, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর দক্ষতা বৃদ্ধি এবং রোহিঙ্গা সমস্যা সম্পর্কে আলোচনা করেন।

শুরুতে তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে স্বাগত জানান। অতীতে তুরস্কের সংকটকালে বাংলাদেশের সমর্থনের কথা কৃতজ্ঞতাচিত্তে স্মরণ করেন। তিনি দুই দেশের মধ্যে ধর্মীয় এবং সাংস্কৃতিক সামঞ্জস্যতার কথা উল্লেখ করে দুই দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাবে মর্মে আশা প্রকাশ করেন।

তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তুরস্কে অবস্থিত সিরিয় শরনার্থীদের বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন। এছাড়া বিভিন্ন দেশ থেকে আগত বিপুল সংখ্যক অভিবাসীর বিষয়ে তুরস্কের অার্থিক ও অন্যান্য সমস্যার কথা উল্লেখ করেন। তিনি তুরস্কে অবস্থিত কিছু সংখ্যক বাংলাদেশী অনিয়মিত অভিবাসীর কথা উল্লেখ করে তাদেরকে বাংলাদেশে ফেরত নেয়ার বিষয়ে অনুরোধ করেন।

তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ অঞ্চলে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে উভয় দেশের সহযোগিতার উপরে গুরুত্বারুপ করেন। তিনি বাংলাদেশের আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণ সহযোগীতা প্রদানের বিষয়ে উল্লেখ করেন এবং বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের প্রতি মানবিক সহযোগীতা অব্যাহত থাকবে বলে উল্লেখ করেন।

বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যের শুরুতে তুরস্কের সরকার ও তুরস্কের জনগণের প্রতি বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শুভেচ্ছা পৌঁছে দেন। তিনি বাংলাদেশ এবং তুরস্কের মধ্যে ঐতিহাসিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করেন।

বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সন্ত্রাস জঙ্গীবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স নীতির কথা দৃঢ়ভাবে ব্যক্ত করেন।

মন্ত্রী উল্লেখ করেন, যেহেতু রেমিটেন্স বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের দ্বিতীয় বৃহত্তম খাত, সেহেতু বাংলাদেশ সরকার নিরাপদ এবং আইনানুগ অভিবাসন প্রক্রিয়া নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি এ বিষয়ে উভয় দেশের মধ্যে সহযোগীতামূলক উদ্যোগ গ্রহণের প্রস্তাব করেন।সন্ত্রাস দমন, মাদক নির্মূল এবং অন্যান্য অপরাধমূলক কাজের বিরুদ্ধে দু’ দেশের আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পারষ্পরিক সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রোহিঙ্গা শরণার্থীদের প্রতি তুরস্ক সরকারের চলমান বিভিন্ন মানবিক সহযোগিতার কথা উল্লেখ করেন। এছাড়া জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ফোরামে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানের বিষয়ে তুরস্ক সরকারের রাজনৈতিক, নৈতিক ও মানবিক সমর্থনের জন্য কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।
বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।

বৈঠকে জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তাফা কামাল উদ্দীন, তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম. আল্লামা সিদ্দীকী, অতিরিক্ত আইজিপি মীর শহিদুল ইসলাম, সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ আযহারুল হক, অতিরিক্ত সচিব রাজনৈতিক আবু বকর সিদ্দিক ও জননিরাপত্তা বিভাগের যুগ্মসচিব ড. হারুন অর রশিদ বিশ্বাস, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরীফ মাহমুদ অপু উপস্থিত ছিলেন।