নওয়াজের কাছেই হেরে গেল নওয়াজ

আগের সংবাদ

ইউটু’র সঙ্গে এ আর রহমান

পরের সংবাদ

এবার নীলাচলে ‘ইত্যাদি’

বিনোদন প্রতিবেদক :

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ২৬, ২০১৯ , ৪:৩৬ অপরাহ্ণ

কিশোরগঞ্জের পর ‘ইত্যাদি’র এবারের পর্ব ধারণ করা হয়েছে বান্দরবানের অপরূপ পর্যটন কেন্দ্র নীলাচলে। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৬০০ ফুট ওপরে টাইগার পাহাড়ের চ‚ড়ায় গত ১৬ নভেম্বর ইত্যাদির এ পর্বের মঞ্চ তৈরি করা হয়। বান্দরবানের ঐতিহ্যের সঙ্গে মিল রেখে সাজানো হয়েছিল বিটিভির তুমুল দর্শকপ্রিয় অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’র মঞ্চ। হাজার হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে ধারণ করা হয়েছে এ পর্বটি। অনুষ্ঠানটির প্রধান হানিফ সংকেত জানান, বান্দরবানের ইতিহাস-ঐতিহ্যের পাশাপাশি এবারের পর্বে রয়েছে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমণ্ডিত, দর্শনীয় ও পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় স্থানগুলোর ওপর তথ্যভিত্তিক প্রতিবেদন। এছাড়া রয়েছে পার্বত্য এলাকার চঞ্চল কান্তি চাকমার ওপর একটি মানবিক প্রতিবেদন। পৃথিবীর কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সমুদ্র সৈকতের পরিবেশের ওপর রয়েছে একটি সচেতনতামূলক প্রতিবেদন। প্রতিবারের মতো এবারো বিদেশি প্রতিবেদনে রয়েছে ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের পাথর নগরী বলে খ্যাত মামালাপুরামের কিছু স্মৃতিস্তম্ভের ওপর সচিত্র প্রতিবেদন। ইত্যাদিতে সবসময় ভিন্ন আঙ্গিকে বিষয়ভিত্তিক গান প্রচারের চেষ্টা করা হয়। মূল অনুষ্ঠানে গান রয়েছে দুটি। সেই ধারাবাহিকতায় এবারের ইত্যাদিতে রয়েছে বাংলা ও মারমা গানের ২ জন প্রতিষ্ঠিত শিল্পীর কণ্ঠে একটি অনুরাগের গান। শিল্পী ২ জন হলেন আঁখি আলমগীর এবং মারমা গানের মান মান সিং। গানটি লিখেছেন মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান, সুর করেছেন হানিফ সংকেত; সঙ্গীতায়োজন করেছেন মেহেদী। নিয়মিত পর্বসহ এবারো রয়েছে বিভিন্ন সমসাময়িক ঘটনা নিয়ে বেশকিছু সরস অথচ তীক্ষ্ণ নাট্যাংশ। একটি নাটকের মাধ্যমে দীর্ঘদিন পর আবারো টিভিপর্দায় ফিরছেন খ্যাতিমান অভিনেতা এ টি এম শামসুজ্জামান ও মাসুদ আলী খান। দেশের ঐতিহ্যবাহী একমাত্র ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’র এই বান্দরবানের পর্বটি একযোগে বিটিভি ও বিটিভি ওয়ার্ল্ডে প্রচার হবে ২৯ নভেম্বর শুক্রবার রাত ৮টার বাংলা সংবাদের পর।