আলবেনিয়ায় কয়েক দশকের সবচেয়ে বড় ভূমিকম্প

আগের সংবাদ

রাজধানীতে ময়লার গাড়ির ধাক্কায় মুক্তিযোদ্ধা নিহত

পরের সংবাদ

একনেকে ৭৩১২ কোটি টাকা ব্যয়ে ছয় প্রকল্প অনুমোদন

কাগজ প্রতিবেদক

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ২৬, ২০১৯ , ৬:১১ অপরাহ্ণ

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) বৈঠকে ৭৩১২ কোটি টাকা ব্যয়ে ৬ প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বৈঠকে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে তার গত দশ বছরের দেয়া অনুশাসনের একটি প্রকাশনা তুলে দেয়া হয়। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, গাছ ছায়া দিয়ে পরিবেশের ভারসাম্য রাখে। সড়ক ও পরিবেশের উপকার করে। অন্যদিকে, অতি বৃষ্টি ও রোদ সড়কের ক্ষতি করে।

মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সম্মেলন কক্ষে পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এ নির্দেশনা দেন। বৈঠক শেষে এক ব্রিফ্রিং এ এসব তথ্য জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা সচিব নুরুল আমিন, সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম ও পরিকল্পনা কমিশনের শিল্প শক্তি ও বিভাগের সদস্য (সচিব) বেগম সাহিন আহমেদ চৌধুরী।

প্রধানমন্ত্রীর বরাত দিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, যশোরের পলবাড়ি, দড়াটানা,মনিহার ও মুড়ালী জাতীয় মহাসড়কের মনিহার থেকে মুড়ালী পর্যন্ত চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১৩১ কোটি ১৭ লাখ টাকা। প্রকল্পটি অনুমোদনের সময় এতে গাছ লাগানোর নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একইসঙ্গে জেলা-উপজেলায় সমন্বতিভাবে বহুতল বিশিষ্ট সরকারি আবাসন ভবন নির্মাণ করতেও বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। যেখানে সংশ্লিষ্ট সব কর্মকর্তা একসঙ্গে বসবাস করবেন। অন্যদিকে, ২০০৯ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের বিষয়ে যেসব অনুশাসন দিয়েছেন, সেসবের একটি প্রকাশনা প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান।

বৈঠকে সাত হাজার ৩১২ কোটি ৫১ লাখ টাকা ব্যয়ে ছয় প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ২৪০ কোটি টাকা ব্যয়ে বগুড়া-সারিয়াকান্দি জেলা মহাসড়ক উন্নয়ন এবং বাঙ্গালী নদীর ওপর আড়িয়ারঘাট সেতু নির্মাণ প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এছাড়া মাগুরা-নড়াইল আঞ্চলিক মহাসড়কের বাঁক সরলীকরণসহ যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্পের মোট ব্যয় ৭২৩ কোটি ৯৭ লাখ টাকা। এ দিন অনুমোদিত ফেনী আলোকদিয়া, ভালুকিয়া,লস্করহাট এবং ছাগলনাইয়া জেলা মহাসড়কটি যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৫৯ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। নাটোর রোড থেকে রাজশাহী বাইপাস পর্যন্ত সংযোগ সড়ক নির্মাণ প্রকল্পে ২০৬ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ব্যয় হবে। পাশাপাশি ঢাকা এবং পশ্চিমাঞ্চলীয় গ্রিড সঞ্চালন ব্যবস্থা সম্প্রসারণ প্রকল্পের মোট ব্যয় পাঁচ হাজার ৯৪৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকা।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সব সড়ক ফোরলেন হবে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। তিনি বলেন, আমি গ্রামের ছেলে, কাদা-মাটি পথে হেঁটে স্কুলে গিয়েছি, সড়কের মর্ম আমি বুঝি। সড়ক ছাড়া মানুষের পরিবর্তন হবে না। সরকার সড়কে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে। সারাদেশে সড়ক বিস্তারের ফল পাচ্ছি। পুরনো বেইল সড়ক আধুনিকায়ন হবে। সব বেইলি সেতুগুলো ভেঙে ফেলা হবে। সড়কের গতি বাড়াতে বাঁক সোজা করে চারলেনে উন্নীত করা হবে। দেশে প্রচুর সড়ক হয়েছে, এগুলো এখন রক্ষণাবেক্ষণ জরুরি। আন্তঃজেলার সব সড়ক চারলেনে উন্নীত হবে। সরকার এখন সড়ক নিয়ে কাজ করছে বেশি বেশি।

পরিকল্পনামন্ত্রী আরো বলেন, আমরা সবাই উন্নয়নের পথে। আমরা একটা বই উদ্বোধন করেছি। গুরুত্বপূর্ণ সব তথ্য একনেক সভায় দেন প্রধানমন্ত্রী। এসব তথ্য এক করে একটা বই প্রকাশ করেছি। প্রকল্পের পাইপ লাইন কমিয়ে এনেছি। কোনোক্ষেত্রে আমরা আপস করি না। আমরা প্রকল্প ধরে রাখছি না, দ্রুত ছেড়ে দিচ্ছি। বিদ্যুতের উন্নয়ন প্রসঙ্গে এম এ মান্নান বলেন, উন্নয়নের আরেক রাজা বিদ্যুৎ। দেশের উন্নয়ন করতে হলে বিদ্যুতের বিকল্প নেই। ফলে সরকার ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ দিচ্ছে। প্রকৌশলীরা ঘরে বসেই বিদ্যুৎ সঞ্চালনের সব তথ্য শনাক্ত ও পর্যবেক্ষণ করতে পারবেন। এই বিষয়ে প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। বিদ্যুতের সব কাজ কেন্দ্রীয়ভাবে করা হবে।