লবণ নিয়ে গুজব রোধে নবাবগঞ্জে মাইকিং

আগের সংবাদ

আর্চারদের থাইল্যান্ড মিশনে থাকছে চমক

পরের সংবাদ

ডমেক্সের ‘বিশ্ব টয়লেট দিবস’ উদযাপন

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ১৯, ২০১৯ , ৫:৫৪ অপরাহ্ণ

দেশের স্কুলের ৪ ভাগের ৩ ভাগ টয়লেটই ব্যবহারের অনুপযোগী। ফলে প্রায় ২ কোটি শিক্ষার্থী মারাত্মক রোগের ঝুঁকিতে আছে। তারা প্রায়ই আক্রান্ত হচ্ছে কলেরা, টাইফয়েড, ডায়রিয়াসহ বিভিন্ন প্রাণঘাতী রোগে। ইউনিলিভারের বিশ্বসেরা টয়লেট ক্লিনিং ব্রাড ডমেক্স বাংলাদেশের স্কুলে পরিচ্ছন্ন টয়লেট নিশ্চিত করার সোশ্যাল মিশন নিয়েছে। আর এই অভিযানের অংশ হিসেবে ‘বিশ্ব টয়লেট দিবস’ উৎযাপন করেছে ডমেক্স এবং পুলিশ স্টাফ কলেজ।

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) মিরপুর ১৪ এ পরিচ্ছন্নতার যুদ্ধে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়ার লক্ষ্যে তৈরি করেছিল বিশ্বের সবচেয়ে বড় লোগো। বিশ্ব টয়লেট দিবসে এই বিশ্বরেকর্ড বাংলাদেশের উন্নত ও পরিচ্ছন্ন স্যানিটেশনের যে লক্ষ্য সেটিকে বিশ্বেও দরবারে তুলে ধরতে সাহায্য করল।

এই আয়োজনে দেশের প্রতিটি স্কুল টয়লেটের পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করতে শপথ নিয়েছেন দেশের বহু মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, বিভিন্ন স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের মানুষ। এ সময় উপস্থিত থেকে একাত্মতা প্রকাশ করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। এ ছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইফুর রহমান, ইউনিলিভারের ম্যানেজিং ডিরেক্টর কেদার লেলে, ওয়াটার এইডের ভারপ্রাপ্ত কান্ট্রি ডিরেক্টর ইমরুল কায়েস মুনিরজ্জামান, বাংলাদেশ ক্রিকেট লের সাবেক অধিনায়ক ও সংস সদস্য মাশরাফি বিন মুর্তজা ও টেন মিনিট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা ও ইউটিউব কনটেন্ট ক্রিয়েটর আয়েমান সাদিক।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় লোগো তৈরিতে ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়ার পাশাপাশি ‘নো-মোর নোংরা টয়লেট’ অভিযানের অংশ হিসেবে বছরজুড়ে সারাদেশের বেশ কিছু স্কুলে নানারকম সচেতনতামূলক ও পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম পরিচালনা করবে ডমেক্স। বিশ্ব টয়লেট দিবস ২০১৯ উদযাপনে ডোমেক্সের পার্টনার হিসেবে যুক্ত ছিল ওয়াটারএইড, ভলেনটিয়ার ফর বাংলাদেশ, নড়াইল ফাউন্ডেশন ও ১০০ এরও বেশি স্কুল।