পড়ালেখার জন্য এতোটা মরিয়া প্রতিবন্ধী শিশুটি!

আগের সংবাদ

মাইক্রোচিপ ভিএলএসআই ডিজাইন ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

পরের সংবাদ

তৃণমূল নেতাদের প্রযুক্তির প্রশিক্ষণ দেবে আ’লীগ

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ১৭, ২০১৯ , ৮:৫১ অপরাহ্ণ

তৃণমূলে নেতাকর্মীদের কর্মদক্ষতা বৃদ্ধি ও দলীয় কার্যক্রমে পুরোমাত্রায় সক্রিয় করতে এবার প্রযুক্তির প্রশিক্ষণ দেবে আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটি। ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে নেতাকর্মীদের কর্মদক্ষতা বাড়াতেই সোমবার (১৭ নভেম্বর) বিকাল ৩ টায় খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট) মিলনায়তনে এই প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। আর প্রধান অতিথি হিসেবে কর্মশালার উদ্বোধন করবেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক। এতে উপস্থিত থাকবেন স্থানীয় সংসদ সদস্য শেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল, কুয়েটের উপাচার্য ড. কাজী সাজ্জাদ হোসেন।

কর্মশলায় প্রশিক্ষণ দেবেন, কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের উপাচার্য এবং আইইবি এর কম্পিউটার বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. প্রকৌশলী মাহফুজুল ইসলাম পিইঞ্জ, সংসদ সদস্য শেখ সারহান নাসের তন্ময়, তথ্য প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ সুফি ফারুক ইবনে আবু বকর ও সিআরআই এর কো-অর্ডিনেটর প্রকৌশলী তন্ময় আহমেদ।

এর আগে গত ৬ অক্টোবর রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন (আইইবি) মিলনায়তনে এই কর্মশালার আয়োজন করেছিলো আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটি। সেই ধারাবাহিকতায় খুলনার নেতাকর্মীদের প্রযুক্তিগত প্রশিক্ষণ দেবে কমিটি। প্রশিক্ষনের সহযোগিতায় রয়েছে গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর রিসার্চ এ্যান্ড ইনফরমেশন (সিআরআই)।

এদিকে প্রশিক্ষণ বিষয়ে করণীয় নির্ধারণে সম্প্রতি আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুরসহ সংশ্লিষ্ট নেতারা বৈঠক করেন। তারা জানান, ঢাকা বিভাগের পর খুলনা বিভাগীয় কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে। যা পর্যায়ক্রমে অন্যান্য বিভাগে অনুষ্ঠিত হবে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ, গুজব, রাষ্ট্রবিরোধী কার্যকলাপসহ সকল অনৈতিক কার্যক্রমের বিরুদ্ধে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সো”চার করে গড়ে তোলা এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে শিক্ষাবান্ধব, গবেষণামূলক, ব্যবসা ও সামাজিক উন্নয়নের কাজে ব্যবহারের জন্য জনগণের ইতিবাচক মনোভাব সৃষ্টির লক্ষ্যে এই কর্মশালার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে আবদুস সবুর জানান, সচেতনতার অভাবে অনেক সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীরা কিছু ভুল করে থাকেন। সেই ভুলগুলোকে ইস্যু করে অপপ্রচার ও সামাজিক শৃঙ্খলা নষ্টের চেষ্টা করে স্বাধীনতা বিরোধী ও জঙ্গিবাদের মূল পৃষ্ঠপোষক বিএনপি-জামায়াত। এখন অধিকাংশ গুজব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সৃষ্টি হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সৃষ্ট এই সব গুজবের জবাব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম দিয়েই দিতে হবে। সেজন্যই দলীয় নেতাকর্মীদের প্রযুক্তির সঠিক ব্যবহার শেখাতে ও প্রযুক্তিগত দক্ষতা বাড়াতে এই কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে। কর্মশালায় ই-মেইল পরিচালনা থেকে শুরু করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। একই সঙ্গে ভবিষ্যতে দলীয় সব কর্মকান্ডে যাতে প্রযুক্তির ব্যবহার থাকে সে বিষয়েও উৎসাহিত করা হবে। দলের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের একটি কমন প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসা এবং দলের কর্মকান্ড ও তথ্য ভান্ডার ডিজিটালাইজ করতে সহায়ক হবে এই কর্মশালা।

এছাড়াও দলের ইতিবাচক কর্মকান্ড ও দেশের সার্বিক উন্নয়নের চিত্র সর্বস্তরের জনগনের কাছে দ্রুততম সময়ে পৌঁছে দিতে এই কর্মশালা বিশেষ ভূমিকা পালন করবে বলে আশা করি।