ইন্দোনেশিয়া ৭.৪ মাত্রার শক্তিশালী ভূমিকম্প

আগের সংবাদ

কোহলি-পূজারাকে ফেরালেন রাহি

পরের সংবাদ

তিন শর্তে পরীক্ষা দিতে রাজি বুয়েট শিক্ষার্থীরা

ঢাবি প্রতিনিধি :

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ১৫, ২০১৯ , ১১:২৪ পূর্বাহ্ণ

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় পুলিশ প্রদত্ত চার্জশিটভুক্ত আসামিদের স্থায়ী বহিষ্কারসহ তিন দফা দাবি আদায় হলেই কেবল টার্ম পরীক্ষায় অংশ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।
গতকাল বৃহস্পতিবার বুয়েট শহীদ মিনারে এক সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেন আন্দোলনরত বুয়েট শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন কম্পিউটার সায়েন্স ও ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ১৬তম ব্যাচের শিক্ষার্থী অনিরুদ্ধ গাঙ্গুলি। বক্তব্যে তিনটি দাবি মেনে নেয়ার শর্তে আসন্ন টার্ম ফাইনাল পরীক্ষায় অংশ নেয়ার কথা জানান তারা। তাদের দাবিগুলো হলো চার্জশিটের ভিত্তিতে অভিযুক্তদের স্থায়ীভাবে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা। আহসানউল্লাহ হল, তিতুমীর হল ও সোহরাওয়ার্দী হলের র‌্যাগের ঘটনায় অভিযুক্তদের অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী শাস্তি দেয়া। সাংগঠনিক ছাত্ররাজনীতি এবং র‌্যাগের জন্য সুস্পষ্টভাবে বিভিন্ন ধাপে ভাগ করে শাস্তির নীতিমালা করা। নীতিমালা তৈরির পাশাপাশি নীতিমালাগুলো বুয়েট একাডেমিক কাউন্সিল এবং সিন্ডিকেট থেকে অনুমোদন করে বুয়েট অধ্যাদেশে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য পরবর্তী ধাপগুলোতে প্রেরণ করা।
লিখিত বক্তব্যে আরো বলা হয়, প্রথম ও দ্বিতীয় দাবি মেনে নেয়ার শর্তে তারা আসন্ন টার্ম ফাইনাল পরীক্ষার তারিখ গ্রহণ করবে। টার্ম পরীক্ষার অন্তত ৭ দিন আগে তৃতীয় দাবি পূরণ করলেই তারা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে। লিখিত বক্তব্যে অভিযোগ করা হয়, বুয়েট প্রশাসনের সঙ্গে বারবার আলোচনার মাধ্যমে ও পর্যাপ্ত সময় দিয়ে বুয়েটে একটি সুস্থ ও সুন্দর পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে তাদের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা অব্যাহত থাকলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে সদিচ্ছা এবং পর্যাপ্ত পদক্ষেপের অভাব দেখছেন তারা। এ সময় বুয়েট প্রশাসনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন যদি দাবিগুলোর প্রতি আন্তরিক না হয় এবং প্রতিশ্রুতি পালনে ব্যর্থ হয় তাহলে তারা পরীক্ষায় অংশগ্রহণে অসম্মতি জানাবেন।
উল্লেখ্য, আবরার ফাহাদ হত্যার বিচারসহ বিভিন্ন দাবিতে টানা আন্দোলনে গত ৩৮ দিন ধরে বুয়েটে সৃষ্টি হয়েছে একধরনের অচলাবস্থা। আন্দোলনকারীরা বলছে তারা খুনিদের সঙ্গে একই ক্যাম্পাস ভাগাভাগি করতে পারবে না। তাই যতদিন না পর্যন্ত না চার্জশিটভুক্ত ২৫ আসামিকে স্থায়ী বহিষ্কার করা না হবে ততদিন তারা ক্লাস পরীক্ষাসহ সব ধরনের একাডেমিক কার্যক্রম থেকে বিরত থাকবেন। ফলে বুয়েটে দেখা দিয়েছে সেশনজটের আশঙ্কা।