তূর্ণার লোকমাস্টার ও গার্ডের জন্য রেল দুর্ঘটনা: রেলমন্ত্রী

আগের সংবাদ

সরকারি পুকুর দখল করে লাউ চাষ!

পরের সংবাদ

কথায় গানে হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন উদযাপন

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ১৩, ২০১৯ , ৭:৫৯ অপরাহ্ণ

কথামালা, গান, একক বইমেলা, নৃত্যানুষ্ঠান ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে কথাসাহিত্যিক, বাংলা চলচ্চিত্র, টেলিভিশন নাটকের নন্দিত নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের ৭১তম জন্মদিন উদযাপন করা হয়েছে।  গুণী এই নির্মাতার জন্মদিনকে স্মরণীয় করে রাখতে চ্যানেল আইয়ের আয়োজনে চ্যানেল আই প্রাঙ্গণে প্রতি বছরের মতো এবারও আয়োজন করা হয়েছে উৎসবমুখর হুমায়ূন মেলা।
এবারের মেলার পৃষ্ঠপোষকতা করেছে ‘সিটি ব্যাংক।
বুধবার (১৩ নভেম্বর) সকালে হুমায়ূন মেলা’র উদ্বোধনী পর্বে অংশ নিয়েছিলেন চ্যানেল আইয়ের পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ, নাট্যজন আতাউর রহমান, সঙ্গীতজ্ঞ আকরামুল ইসলাম, সিটি ব্যাংকের হেড অব কর্পোরেট এ্যাফেয়াস্ শাহরিয়ার জামিল খান, ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল করিম, সঙ্গীতশিল্পী তপন চৌধুরী, সেলিম চৌধুরী, সাহিত্যিক শাকুর মজিদ, হাসান হাফিজ, মারুফুল ইসলাম, প্রকাশক ফরিদ আহমেদ, আনন্দ আলো সম্পাদক রেজানুর রহমান, জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, আসলাম সানি প্রমুখ।
এ সময় হলুদ পাঞ্জাবী আর নীল শাড়ি পরা অসংখ্য হিমু ও রূপাদের সঙ্গে নিয়ে হলুদ বেলুন উড়িয়ে মেলার উদ্বোধন করেন অতিথিরা।  হুমায়ূন আহমেদ ও মেলা সম্পর্কে শাইখ সিরাজ বলেন, বাংলা সাহিত্যের এক অসাধারণ প্রতিভাবান ব্যক্তিত্ব ছিলেন হুমায়ূন আহমেদ।  তিনি সত্যিকার অর্থেই মানুষকে বইমুখি করার বিশাল অবদান রেখেছেন।  কালজয়ী উপন্যাস লিখে, চলচ্চিত্র নির্মাণ করে সংস্কৃতিকে সমৃদ্ধ করেছেন।  এই ব্যত্বিকে নিয়ে আমাদের এই ধরণের উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।  এরপর উপস্থিত অতিথিরা হুমায়ূন আহমেদকে নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন।
মেলায় গান করেছেন আকরামুল ইসলাম, সেলিম চৌধুরী, তপন চৌধুরী, এসআই টুটুল, দিনাত জান্নাত মুন্নী, সেরাকণ্ঠ, বাংলার গান এবং গানের রাজার শিল্পীরা।  আবৃত্তি করেছেন জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় ও আসলাম সানি প্রমুখ। হুমায়ূন আহমেদ স্মরণে চিত্রাঙ্কন করেছে বিভিন্ন বয়সী শিশুরা।
বিকেলে কিংবদন্তির জন্মদিন উদযাপন উপলক্ষে শাহবাগের পাবলিক লাইব্রেরি চত্বরে সাত দিনব্যাপী একক বইমেলা শুরু হয়েছে। হুমায়ূন আহমেদের জীবদ্দশায় তার ৬০তম জন্মদিন থেকে শুরু হয়েছিল তার লেখা বই নিয়ে একক বইমেলা।  সেই ধারাহিকতায় তার ৭১তম জন্মদিনেও শুধুমাত্র হুমায়ূন আহমেদের বই নিয়ে শুরু হয়েছে ‘হুমায়ূন আহমেদ একক বইমেলা।  হুমায়ূন আহমেদের বইয়ের প্রকাশকদের উদ্যোগে আয়োজিত এ মেলার অংশ নিচ্ছে অন্যপ্রকাশ, অবসর, কাকলী, সময় প্রকাশন, অনন্যা, পার্ল, অন্বেষা, আফসার ব্রাদার্স, জ্ঞানকোষ, শিখা প্রকাশনীসহ মোট ১৪টি প্রকাশনী।
গণগন্থাগার প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত এ মেলার উদ্বোধনী আয়োজন ছিল বুধবার।  মেলার উদ্বোধক ছিলেন হুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন।  প্রধান অতিথি ছিলেন কথাসাহিত্যিক ও কালের কন্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন।  বেলুন উড়িয়ে মেলার এ উদ্বোধনী আয়োজনে আরও অংশ নেন হুমায়ূন আহমেদের ছোটভাই ও কার্টুনিস্ট আহসান হাবীব, কবি কাজী রোজী, অভিনেতা ফারুক আহমেদ, ছাড়কার আসলাম সানী, অন্যপ্রকাশের প্রধান নির্বাহী মাজহারুল ইসলাম প্রমুখ।
মেহের আফরোজ শাওন বলেন, শিক্ষক হুমায়ূন আহমেদের কথা অনেকেই বলেন। তিনি আমাদের শিক্ষা বিস্তারে নানা সময়ে বলেছেন। তার একটি স্বপ্ন ছিল একটি স্কুল নির্মাণ।  কেন্দুয়ার কুতুবপুরে শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠ তিনি তার হাত ধরে পথচলা শুরু করে ২০০৬ সালে।  সেই বিদ্যালয়টি এমপিও ভুক্তি হয়েছে। আমরা হুমায়ূন আহমেদের ৭১তম জন্মদিনের অনুষ্ঠান এবার শুরু করেছি সেই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে।
ইমদাদুল হক মিলন বলেন, হুমায়ূনর আহমেদকে নিয়ে আমাদের একটি আড্ডার দল ছিল। আমরা প্রায় দিন সন্ধ্যায় আড্ডা দিতাম, গল্প করতাম, নানা রকম আয়োজন থাকতো।
আহসান হাবীব বলেন, হুমায়ূন আহমেদ এর সৃষ্টিকর্ম নতুন করে আমাদের আর পাওয়ার  কোনো সুযোগ নেই। বিশ্বব্যাপী গ্রাফিক নোবেল এখন একটি জনপ্রিয় বিষয়। আমরা  হুমায়ূন আহমেদের সৃষ্ঠিকর্মগুলোকে গ্রাফিক নোবেলের মাধ্যমে উপস্থাপন করে নতুন কিছু সংযোজন করতে পারি।  এ মেলা চলবে ১৯ নভেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ৮টা পর্যন্ত চলবে।