নারীর ক্ষমতায়নের মূল কান্ডারি শেখ হাসিনা: স্পিকার

আগের সংবাদ

পদমর্যাদা ও কর্মপরিধি নির্ধারণ হবে কখন?

পরের সংবাদ

ভারতের দুর্বলতা কাজে লাগাতে চান টাইগার কোচ

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ৯, ২০১৯ , ৯:৩৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: নভেম্বর ৯, ২০১৯, ৯:৩৭ অপরাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক

ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার আগে টানা আট ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে কোনো জয় পায়নি বাংলাদেশ। সেই অধরা জয়টি আসে সিরিজের প্রথম ম্যাচে দিল্লিতে। কিন্তু রাজকোটের দ্বিতীয় ম্যাচটিতে হোঁচট খায় মাহমুদউল্লাহ-মুশফিকরা। রোহিত শর্মার বিধ্বংসী ব্যাটে দ্বিতীয় ম্যাচ জিতে সিরিজে ১-১ এ সমতা নিয়ে আসে রবি শাস্ত্রীর শিষ্যরা। রোববার (৯ নভেম্বর) নাগপুরের ভিসিএ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে দুদল। ফাইনাল ম্যাচকে সামনে রেখে শনিবার ভিসিএ স্টেডিয়ামের মাঠে ও নেটে ঘাম ঝড়ান টাইগাররা। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে রাজকোটে বৃষ্টির আশঙ্কা থাকলেও রবিবার নাগপুরের আকাশ পুরোদিনই থাকবে রৌদ্রোজ্জ্বল।

রবিবারের এই ম্যাচটি বাংলাদেশের জন্য স্বপ্ন পূরণের ম্যাচ। কারণ ম্যাচটি জিতলেই ভারতের বিপক্ষে প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ের স্বাদ পাবে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। তা ছাড়া এ ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে জিততে পারলে এটি হবে বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের তৃতীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়। ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তাদের মাটিতে ২-০ তে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতেছিল বাংলাদেশ। এর আগে ২০১২ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে তাদের মাঠে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ ৩-০ তে জিতেছিল টাইগাররা।

এদিকে শনিবার বাংলাদেশের হয়ে ম্যাচ পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে কথা বলতে আসেন কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। তিনি বিশ্বাস করেন রবিবারের ম্যাচে যদি বাংলাদেশ ভালো ব্যাটিং করতে পারে তাহলে তাদের বিপক্ষে জেতা সম্ভব। রাসেল ডমিঙ্গো বলেন, ‘এই সিরিজে ভারত তাদের সেরা বোলিং লাইনআপ নিয়ে খেলছে না। এই সুযোগটিকে কাজে লাগিয়ে যদি আমরা ভালো স্কোর দাঁড় করাতে পারি তাহলে আমরা তাদের চাপে ফেলতে পারব। তবে আমাদের অবশ্যই ভালো ব্যাটিং করতে হবে’। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে মিডল অর্ডারে বাংলাদেশের ব্যাটিং ছিল নাজুক। ম্যাচটির শেষ তিন ওভারে মাত্র ১৭ রান তুলতে সমর্থ হয় মোসাদ্দেক-আফিফরা। এ ব্যাপারটি নিয়ে কিছুটা হতাশ তিনি। ডমিঙ্গো বলেন, আমাদের দলে পাওয়ার হিটারের অভাব রয়েছে। আমরা ইচ্ছা করলেই এখনই ওয়েস্ট ইন্ডিজ বা ইংল্যান্ডের মতো বল মেরে বাউন্ডারির বাইরে পাঠিয়ে দিতে পারি না। কারণ আমার খেলোয়াড়দের শারীরিক গড়ন এমন নয়। লিটন, আফিফ, মোসাদ্দেক ওরা ছোট আকৃতির। তাই আমাদের কৌশলে ব্যাটিং করতে হবে। বলের গতিকে কাজে লাগিয়ে বাউন্ডারি হাঁকানোর চেষ্টা করতে হবে। এটি করতে পারলে সফল হব আমরা।

শনিবার অনুশীলনে ফুরফুরে মেজাজে টাইগাররা

ভারতের বিপক্ষে খেলতে যাওয়ার আগে অশান্ত ছিল বাংলাদেশের ক্রিকেটাঙ্গন। এমন পরিস্থিতির মাঝেও খেলতে যেয়ে দারুণ ক্রিকেট খেলেছে তার শিষ্যরা। তাই শিষ্যদের এ জন্য ধন্যবাদ দিতে ভুলেননি তিনি।

অন্যদিকে ভারতের হয়ে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলতে আসেন রোহিত শর্মা। বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের কথাই শোনা গেছে তার মুখে। তবে রোহিত শর্মার আলোচনাজুড়ে ছিল উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ঋসভ পন্ত। বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম থেকেই ভীষণ সমালোচিত হচ্ছেন ঋসভ। রোহিত শর্মা অনুরোধ করেছেন আপাতত ঋসভকে নিজের মতো খেলা চালিয়ে দেয়ার সুযোগ দেয়ার জন্য।

এদিকে রোববারের ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে একটি উইকেট শিকার করতে পারলেই জাসপ্রিত বুমরাহ ও রবিচন্দন অশ্বিনের পর তৃতীয় ভারতীয় বোলার হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে ৫০ উইকেট শিকার করার রেকর্ড গড়তে পারবেন যুবেন্দ্র চাহাল।