সাদেক হোসেন খোকার কুলখানি শুক্রবার

আগের সংবাদ

সরকার নিজেদের পতন ডেকে আনছে: মওদুদ

পরের সংবাদ

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল

চরফ্যাসনে মানুষের পাশে থাকতে আ.লীগ নেতাদের নির্দেশ

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ৯, ২০১৯ , ৬:৫৫ অপরাহ্ণ | আপডেট: নভেম্বর ৯, ২০১৯, ৭:০১ অপরাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক

দূর্যোগকালীন সময়ে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের পাশাপাশি আ’লীগের নেতাকর্মিদের জনগনের পাশে থাকার আহবান জানিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সস্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ভোলা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব।

শনিবার (৯ নভেম্বর) দুপুর আড়াইটায় চরফ্যাসন উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত জরুরি প্রস্তুতিমূলক সভায় সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারিদের পাশাপাশি আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতা-কর্মিদের দূর্যোগকালীন জনসাধারণের পাশে থাকার এ নির্দেশ দেন।

ঘুর্ণীঝড় ‘বুলবুল’ সম্পর্কে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি তিনি গত দুইদিন এলাকায় অবস্থান করে সার্বিক পরিস্থিতি মনিটরিং করছেন। দুর্যোগ পরবর্তী যে কোন ক্ষয়ক্ষতিতে তাদের পাশে থাকার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

এদিকে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ ধেয়ে আসার কারণে ভোলায় ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক।

উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা রুহুল আমিনের সভাপতিত্বে জরুরী সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন মিয়া, প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক মনির আহমেদ শুভ্র, উপজেলা প্রকৌশলী কেএম রেজাউল করিম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডাক্তার মাহবুব কবির চরফ্যাসন সদর থানার ওসি তদন্ত কার্তিক চন্দ্রসহ উপজেলা সাংবাদিকরা।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, চরফ্যাসনে ১৬৫টি ইউনিটে ২৪৭৫ জন স্বেচ্ছাসেবী মাঠ পর্যায়ে কাজ করছেন। চরফ্যাসন উপজেলার ২১টি ইউনিয়নে মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবীদের পাশাপাশি উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকর্মিরাও প্রস্তুত রয়েছেন বলেও জানান তিনি।

উপজেলা সিপিপি’র সহকারি পরিচালক মোকাম্মেল হক লিপন জানান, বিচ্ছিন্ন দ্বিপ ঢালচর, কুকরি-মুকরি, চর পাতিলা ও চর নিজামের মানুষ প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন সেল্টারসহ মুজিব কিল্লা ও অন্যান্য আশ্রয় কেন্দ্রগুলোয় সকাল থেকেই জড়ো হতে শুরু থাকেন।

উপজেলা ত্রাণ ও প্রকল্প কর্মকর্তা আনিসুর রহমান বলেন, ভোলা জেলা প্রশাসন থেকে ১০ লাখ টাকা, ২০০ মেট্রিক টন চাল ও ২ হাজার শুকনো খাবারের প্যাকেটের ব্যবস্থা করা হয়েছে এছাড়াও চরফ্যাসন উপজেলার প্রত্যেকটি আশ্রয়কেন্দ্রে আজ দুপুরবেলা খিচুড়ির ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

উপজেলা মৎস্য অফিসার মারুফ হোসেন মিনার বলেন, চরফ্যাসনের ২৫হাজার ৭৪ জন জেলের তালিকা রয়েছে আমাদের কাছে। প্রায় সব জেলেরা নিরাপদ আশ্রয়ে উপকূলে চলে আসলেও কিছু কিছু জেলেদেরকে আমরা এখোনোও মেসেজ পাঠাতে পারিনি এবং তারা কোথায় আছে তা নির্ণয় করা সম্ভব হচ্ছেনা।