গতিতে হোয়াইটওয়াশ পাকিস্তান

আগের সংবাদ

ঢাকায় পৌঁছেছে বাদলের মরদেহ

পরের সংবাদ

ফুরফুরে মেজাজে জেমি ডের শিষ্যরা

খেলা প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ৮, ২০১৯ , ১০:০৬ অপরাহ্ণ

কাতার বিশ্বকাপ ফুটবল-২০২২ এবং ২০২৩ এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের দ্বিতীয় পর্বের নিজেদের চতুর্থ ম্যাচ খেলতে বর্তমানে ওমানের রাজধানী মাসকটে থাকা বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সদস্যরা ফুরফুরে মেজাজে রয়েছে। শুক্রবার সাড়ে ১০টায় হোটেল র‌্যাডিসন ব্লুতে জামাল-রানারা ফিজিও সিমনের তত্ত্বাবধানে ১ ঘণ্টা রিকভারি সেশনে জিমে ঘাম ঝরান। জিমের পর টিম বাংলাদেশ মাসকট জামে মসজিদে জুমার নামাজ আদায় করেন। দুপুরের পর শুধু টিম মিটিং ছাড়া শুক্রবার আর কোনো প্রশিক্ষণ সেশন ছিল না। আজ সকালে হোটেল পুলে সুইমিং সেশন এবং বিকেল ৪টা থেকে ভৌসের স্পোর্টস কমপ্লেক্স মাঠে হেড কোচ জেমি ডের অধীনে অনুশীলনে অংশ নেবে জীবন সাদ উদ্দিনরা।
ওদিকে তার আগে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সম্মানে ওমানের বাংলাদেশ সোশ্যাল কমিউনিটি সংবর্ধনা ও নৈশভোজের আয়োজন করে। সেখানে ওমানের বাংলাদেশ দূতাবাসের কাউন্সিলর ও দূতাবাসের উচ্চপদের কর্মকর্তা, ওমান বাংলাদেশ সমিতির সদস্য এবং আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
অন্যদিকে প্রস্তুতি ম্যাচে দারুণ এক জয় পেয়েছে জামাল ভূঁইয়ারা। ওমানের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইয়ে মাঠে নামার আগে ওমান প্রিমিয়ার লিগের দল মাসকট ক্লাবকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে সফরকারীরা। ‘ই’ গ্রুপে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে ১৪ নভেম্বর স্বাগতিকদের মুখোমুখি হবে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। গত মৌসুমে ওমানে লিগের ১৪ দলের মধ্যে নবম হওয়া মাসকটের বিপক্ষে ১২ মিনিটে নাবীব নেওয়াজ জীবনের গোলে লিড পায় বাংলাদেশ। জীবনের গোল করার পাঁচ মিনিট পর পেনাল্টি থেকে মাসকটকে সমতায় ফেরান তারিক। ডি-বক্সের ভেতরে বাংলাদেশের বিশ্বনাথ ঘোষ প্রতিপক্ষের ফুটবলারকে ফাউল করায় রেফারি পেনাল্টির বাঁশি বাজান। ২৮ মিনিটে মিডফিল্ডারা বিপলু আহমেদের গোলে স্কোরলাইন ২-১ বিরতিতে যায় তারা। খেলার ৬৫ মিনিটে তৃতীয় গোলটি করেন তৌহিদুল আসল সবুজ। বাকি সময়ে আর কোনো গোল না হলে ৩-১ গোলের অনায়াস জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে কোচ জেমি ডের শিষ্যরা।
তবে ম্যাচে ফেরার চেষ্টা চালানো মাসকট ৮২ মিনিটে ১০ জনের দলে পরিণত হয় তাদের অধিনায়ক লাল কার্ড দেখলে। এই ম্যাচে জেমি ডে তার স্কোয়াডে থাকা তিন গোলরক্ষককেই ব্যবহার করেছেন। সব মিলিয়ে দ্বিতীয়ার্ধে ১১ খেলোয়াড়কে বদলি হিসেবে নামিয়েছেন ইংলিশ কোচ। প্রথমার্ধের পুরো সময় গোলপোস্টে আশরাফুল ইসলাম রানা ছিলেন। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে খেলান আনিসুর রহমান জিকোকে। পরে জিকোর পরিবর্তে পোস্টের দায়িত্ব দেন শহিদুল আলম সোহেলকে। শিশুসুলভ কিছু ভুল করে করে একাদশ থেকে রিজার্ভ বেঞ্চে চলে যাওয়া গোলরক্ষক সোহেল এ ম্যাচে বদলি হিসেবে নেমে ম্যাচের ৭৩ মিনিটে একটি পেনাল্টি রুখে দেন।
বর্তমানে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ১০৩ ধাপ এগিয়ে থাকা মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ওমানের বিপক্ষে মূল লড়াইয়ের আগে প্রস্তুতি ম্যাচের জয়টি স্বাভাবিকভাবে জামালদের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে দেয়ার কথা। কিন্তু শিষ্যদের খেলায় পুরোপুরি সন্তুষ্ট নন জেমি ডে। তিনি বলেন, ম্যাচটি জিতে অবশ্যই আনন্দিত। তবে দলীয় পারফরমেন্সে পুরোপুরি সন্তুষ্ট হতে পারছি না। সাম্প্রতিক সময়ে টানা খেলার ওপর থাকায় খেলোয়াড়দের একটু ক্লান্ত মনে হয়েছে।
বাংলাদেশ-ওমান মধ্যকার ম্যাচটি আল সিব স্পোর্টস স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ১৪ নভেম্বর বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় শুরু হবে এ লড়াই। পয়েন্ট তালিকায় উঠতে এ ম্যাচে জয়ের বিকল্প নেই বাংলাদেশের। তিন ম্যাচ খেলে এক ড্রয়ে মাত্র ১ পয়েন্ট নিয়ে সবার নিচে আছে বাংলাদেশ। ওদিকে ওমান সমান ম্যাচ খেলে ২ জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়। ম্যাচটা জিততে পারলে আফগানিস্তান ও ভারতকে টপকে তিনে উঠে আসতে পারবে আশরাফুল রানারা।