‘গণঅভ্যুত্থানে’ মুক্তি, জাবি ভিসির কৃতজ্ঞতা

আগের সংবাদ

ফরাসি গিটারবাদক তিব্যো কোভাঁর কনসার্ট

পরের সংবাদ

ভারতে বাংলাদেশি চ্যানেলের ফি কমানোর আশ্বাস

প্রকাশিত হয়েছে: নভেম্বর ৫, ২০১৯ , ৭:৫৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: নভেম্বর ৫, ২০১৯, ৮:০৮ অপরাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সঙ্গে তার দপ্তরে বৈঠক করেছেন ভারতের তথ্য ও সম্প্রচার এবং পরিবেশমন্ত্রী প্রকাশ জাভেদকার। মঙ্গলবার (৫ নভেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে দুই মন্ত্রী বৈঠক করেন। এতে বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী, বঙ্গবন্ধু ফিল্ম সিটি গঠন, বঙ্গবন্ধুকে চলচিত্র নির্মাণ এবং ভারতে বাংলাদেশের টিভি চ্যানেল দেখাতে সম্প্রচার ফি কমানোর বিষয়ে আলোচনা করা হয়।

এর আগে মঙ্গলবার সকালে ভারতীয় তথ্য ও সম্প্রচার এবং পরিবেশমন্ত্রী ঢাকায় পৌঁছান। দুপুরে সচিবালয়ে বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন। বুধবার (৬ নভেম্বর) সকালে রাজধানীর একটি হোটেলে দক্ষিণ এশিয়ার পরিবেশ বিষয়ক কর্মসূচি নিয়ে দিনব্যাপী সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। এতে আফগানিস্থানসহ সার্কভূক্ত ৭টি দেশের পরিবেশ মন্ত্রীরা যোগ দেবেন। তবে এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে পরিবেশ মন্ত্রীদের পাশাপাশি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন উপস্থিত থাকবেন। বিকেল ৫টায় সেমিনারের বিষয় নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হবে।

এদিকে, মঙ্গলবার সচিবালয়ে তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের সঙ্গে বৈঠকে বাংলাদেশের বেসরকারি টিভি চ্যানেল ভারতে সম্প্রচারের ক্ষেত্রে ফি কমানোর আশ্বাস দিয়েছেন ভারতীয় তথ্যমন্ত্রী প্রকাশ জাভেদকার।

বৈঠক শেষে ভারতের তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন, আমি বাংলাদেশে পরিবেশ কনফারেন্সে এসেছি, যেটা আজ অনুষ্ঠিত হবে। আমি তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রীও বটে। বিভিন্ন বিষয়ের ওপর খুব ভালো আলোচনা হয়েছে- সংস্কৃতি, রাজনীতি এবং বিশেষভাবে চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন নিয়ে।

তিনি বলেন, আমরা দুটি চলচ্চিত্র নির্মাণের পরিকল্পনা করছি, যেটার অনেকখানি অগ্রগতিও হয়েছে। একটি চলচ্চিত্র বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে, আরেকটি বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে। তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

হাছান মাহমুদ বলেন, তিনি (ভারতের মন্ত্রী) মূলত পরিবেশের একটি অনুষ্ঠানে এসেছেন। তিনি শুধু ভারতের তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী নন, তিনি পরিবেশ মন্ত্রীও। আজ আমরা অনেকগুলো বিষয়ে আলোচনা করেছি।

তিনি বলেন, বিটিভি এখন সমগ্র ভারতবর্ষে ফ্রি ডিসের মাধ্যমে সবাই দেখতে পাচ্ছেন। আমাদের যে চ্যানেলগুলো আছে সেগুলো মূলত পশ্চিমবাংলায় দেখা যায় না। কারণ, ভারত সরকারের পক্ষ থেকে বাংলাদেশের প্রাইভেট চ্যানেলগুলো ভারতে প্রদর্শনের ক্ষেত্রে কোনো বিধি-নিষেধ নেই। ত্রিপুরায় সেগুলো দেখা যায়, ত্রিপুরায় আমি নিজে দেখেছি। কিন্তু পশ্চিমবাংলায় সেগুলো দেখা যায় না। কারণ সেখানে বাধাটা হচ্ছে ক্যাবল অপারেটরদের পক্ষ থেকে তারা উচ্চ ফি দাবি করে। এ বিষয়টি আলোচনা করেছি। তিনি বিষয়টি অত্যন্ত গভীরভাবে দেখবেন, যাতে আমাদের প্রাইভেট চ্যানেলগুলো সেখানে দেখা যায়। কারণ, পৃথিবী এখন গ্লোবাল ভিলেজ, এমনি দেখা না গেলে অ্যাপের মাধ্যমে সবাই ইউটিউবে দেখতে পাচ্ছে। সুতরাং আটকে রাখতে চাইলেও আটকে রাখা যায় না।

হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ওপর একটি ছবি নির্মিত হচ্ছে, যেটির কাজ শুরু হয়েছে। সেটির অগ্রগতি সম্পর্কে আমরা আলোচনা করেছি। এ ছাড়া ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে চুক্তি আছে। মুক্তিযুদ্ধের ওপর একটি প্রামাণ্য চলচ্চিত্র নির্মাণ করার, সেটি নিয়েও আমরা কথা বলেছি।

তিনি বলেন, আমাদের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি বিশেষ করে এফডিসির অধীনে বঙ্গবন্ধু ফিল্ম সিটি নির্মাণ করছি, সেটি কীভাবে একটি সুন্দর ফিল্ম সিটিতে রূপান্তর করতে পারি, সেজন্য তাদের সহযোগিতা চেয়েছি। তিনি সর্বাত্মক সহযোগিতা করবেন বলে জানিয়েছেন।