শামসুর রাহমানের ৯১তম জন্মদিন আজ

আগের সংবাদ

ভেজালকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা

পরের সংবাদ

ছাদবাগানের গাছ ‘হত্যাকারী’ সেই নারী আটক

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: October 23, 2019 , 1:48 pm

ঢাকার সাভারের সিআরপি রোডে একটি বাসার ছাদবাগানের গাছ নির্বিচারে কেটে ফেলা সেই নারীকে আটক করেছে পুলিশ। বুধবার (২৩ অক্টোবর) দুপুরে নিজ বাসা থেকে তাকে আটক করে সাভার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নূর মোহাম্মদ খানের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে সাভার থানার ডিউটি অফিসার পারভীন জানান, আটক ওই নারীর নাম খালেদা আক্তার লাকি (৪৫)। তিনি সাভারের সিআরপি রোড এলাকার বাসিন্দা সেলিমের স্ত্রী।

এসআই নূর মোহাম্মদ খান বলেন, আটক খালেদা আক্তার লাকির ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ঘটনার সময় যারা তাকে সহযোগিতা করেছে তার ব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এর আগে মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) দিনগত রাতে দা হাতে ওই নারীর ছাদের গাছ কেটে সাবাড় করার ভিডিও ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় ওঠে। প্রতিবেশীর সঙ্গে বিবাদের জের ধরে মাস্তানদের সঙ্গে নিয়ে অন্যের ছাদের বাগানের গাছ নির্বিচারে কেটে ফেলার ঘটনায় নারীটির কাণ্ডজ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন ওঠে।

সুমাইয়া হাবিব নামের ভুক্তভোগী নারীর পোস্ট করা ভিডিওতে দেখা যায়, খালেদা আক্তার দা হাতে সুমাইয়ার মায়ের তৈরি করা ছাদবাগানের সব গাছ কেটে সাফ করে দিচ্ছেন। সুমাইয়ার কান্না, শত আকুতিতেও থামছিলেন না। একপর্যায়ে সুমাইয়াকে দা দিয়ে আঘাত করতেও উদ্যত হন খালেদা।

সুমাইয়া তার পোস্টে বলেন, আমার মা গাছ অনেক পছন্দ করে। তাই ছাদের এক কোণায় আমরা কিছু গাছ লাগাইছিলাম। আর এই নারী আমাদের সঙ্গে শত্রুতা করে আমাদের লাগানো গাছগুলা কেটে ফেললো। এই বিল্ডিংয়ে আমরা দুটা ফ্ল্যাট কিনেছি। সবাই যার যার কেনা ফ্ল্যাটে থাকে।

সুমাইয়া আরো লেখেন, ছাদে সবারই অধিকার আছে। আমরা আমাদের অধিকার থেকে কিছু গাছ লাগিয়েছি ছাদের একটা কোণায়। কারণ আমরা ভাবতেও পারিনি গাছ মানুষ অপছন্দ করতে পারে। গাছ তো সৌন্দর্য বাড়ায়। আর তারা বলে আসছে আমাদের গাছ নাকি ছাদের পরিবেশ নষ্ট করে দিছে। তারা অকারণে অন্যায়ভাবে আমাদের জীবন্ত এবং ফল ধরন্ত গাছগুলি কেটে ফেললো। আবার তার ছেলে কিছু ১০/১২ জন মাস্তান নিয়ে আসছে আমাদের ওপর হামলা করার জন্য। আমাদের একটাই অপরাধ আমরা গাছ ভালোবাসি।

সুমাইয়ার ভিডিও পোস্টের পর ঘটনার সময় খালেদা আক্তারকে সহায়তা করা তার ছেলে লিখন ফেসবুক লাইভে এসে নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন। তিনি বলেন, এক মাস আগে গাছ কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত হয়েছে। কিন্তু তিনি গাছগুলো কাটছিলেন না। এগুলো তার পারসোনাল গাছ। শাকসবজি, তরকারির গাছ। এগুলো তো ফুল গাছ না। ফুল গাছ হলে কথা ছিল।