সুরমায় সোয়া দুই কেজির ইলিশ

আগের সংবাদ

বিশ্বের প্রাচীনতম মুক্তার সন্ধান

পরের সংবাদ

অন্যরকম লড়াই সাইফউদ্দিনের

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: October 22, 2019 , 10:54 am

বর্তমানে পেস বোলিংয়ে বাংলাদেশের অন্যতম বড় কাণ্ডারি মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। গত জুলাইয়ে ইংল্যান্ডের মাটিতে অনুষ্ঠিত হওয়া বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হয়েছিলেন তিনি। বিশ^কাপে সাত ম্যাচ খেলে পেয়েছিলেন ১৩টি উইকেট। এরপর গত মাসে ঘরের মাটিতে অনুষ্ঠিত হওয়া ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজেও সাফল্যের ছাপ রাখেন। চার ম্যাচ খেলে সাত উইকেট তুলে নেন। পারফরমেন্সের ধারাবাহিকতার পুরস্কারস্বরূপ সুযোগ পান ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজে। তবে পিঠের পুরনো ইনজুরির কারণে ভারত সফর থেকে ছিটকে গেছেন তিনি।

বিশ্বকাপেও যে সুস্থ থেকে খেলেছিলেন তাও কিন্তু নয়। ম্যাচ খেলার জন্য পুরো বিশ্বকাপে ব্যথানাশক ইনজেকশন দিয়ে খেলতে হয়েছে তাকে। ইনজুরির মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় তো অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচে খেলতেই পারেননি তিনি। এরপর ত্রিদেশীয় সিরিজেও সেই একই ব্যাপার। ইনজুরি নিয়ে খেলতে হয়েছে তাকে। বিশ্বকাপে ও ত্রিদেশীয় সিরিজে কোনোমতে খেলতে পারলেও এবার আর সেটি সম্ভব নয়। কারণ আগের বারের চেয়ে এবার এটি মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। পেস বোলাররা এমনিতেই একটু ইনজুরিপ্রবণ।

তবে বেশির ভাগ বোলারকেই ইনজুরিতে পড়তে দেখা যায় ক্যারিয়ারের পড়ন্ত বেলায়। কিন্তু সাইফউদ্দিনের ব্যাপারটি আলাদা। এই বয়সেই ইনজুরির সঙ্গে কার্যত যুদ্ধ করছেন তিনি। এখন অনেকের মনেই প্রশ্ন কেন বারবার ইনজুরিতে পড়ছেন তিনি। সাইফউদ্দিনের ইনজুরিটা নতুন নয়। প্রায় আট বছর ধরে এটি বয়ে বেড়াচ্ছেন তিনি। বল করার সময় হাতে ও কোমড়ে ব্যথা অনুভব করেন তিনি। আর ইনজুরি নিয়েই দীর্ঘদিন চালিয়ে গেছেন খেলা। ধারণা করা হয় ইনজুরি নিয়ে খেলা চালিয়ে যাওয়ায় তা আরো গাঢ় হয়ে গেছে। আর তাই নিয়মিতভাবে এটি ভোগায় তাকে। সম্ভাবনাময় ক্রিকেটার সাইফউদ্দিনের উন্নত চিকিৎসার জন্য ইংল্যান্ডে পাঠানোর কথা রয়েছে।

ত্রিদেশীয় সিরিজ শেষে ইংল্যান্ডের উদ্দেশে উড়াল দেয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু সেটি হয়নি। তবে খুব শিগগিরই তিনি সেখানে যাবেন বলে শোনা যাচ্ছে। ইংল্যান্ডে তার বায়োমেকানিক্যাল পরীক্ষা করা হবে। এই পরীক্ষার মাধ্যমে জানা যাবে আসলে তিনি কীভাবে এই ইনজুরি বাঁধিয়েছেন। হয়তো ঠিকঠাক চিকিৎসা হলে এই ইনজুরি থেকে মুক্তি পেতে পারেন তিনি।

সাইফউদ্দিনের মতো একই রকম সমস্যা বাংলাদেশের অনেক ক্রিকেটারের ক্ষেত্রেই দেখা যায়। বয়সভিত্তিক ক্রিকেট খেলার সময় ইনজুরি বাঁধিয়ে সেটি নিয়েই দীর্ঘদিন খেলা চালিয়ে যায় তারা। আর পরবর্তীতে সেই পুরনো ইনজুরিতে ভুগতে হয় তাদের। তবে বিসিবি থেকে একটি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে এখন থেকে বয়সভিত্তিক ক্রিকেটারদের নিয়মিত ইনজুরি পরীক্ষা করা হবে। সমস্যা ধরা পড়লে সেটির চিকিৎসা করা হবে।

এদিকে সাইফউদ্দিন বাংলাদেশের হয়ে এখন পর্যন্ত ২০ ওয়ানডে ম্যাচ ও ১৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। তবে এখনো টেস্টে অভিষেক হয়নি তার। ওয়ানডেতে ২০ ম্যাচ খেলে ২৪ উইকেট পেয়েছেন। আর টি-টোয়েন্টিতে তার উইকেট সংখ্যা ১২টি।