কবে চার্জশিট, কতদিন বর্জন ক্লাস-পরীক্ষা

আগের সংবাদ

ঢাকার মঞ্চে ইতালির লুইজি পিরানদেল্লো

পরের সংবাদ

আবরার হত্যার প্রতিবাদে সমাবেশের ডাক ঐক্যফ্রন্টের

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ১৬, ২০১৯ , ৭:৩৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: অক্টোবর ১৬, ২০১৯, ৮:৪৪ অপরাহ্ণ

Avatar

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে আগামী ২২ অক্টোবর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

বুধবার (১৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় মতিঝিল ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক শেষে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়া এ কথা জানান।

সমাবেশ অনুমতি না দেয়া হলে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট কি করবে জানতে চাইলে জোটের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন বলেন, এটা জানা দরকার, সরকার আমাদের অনুমতি না দেয়া মানে হচ্ছে সংবিধানকে লঙ্ঘন করা। সংবিধানের মৌলিক অধিকারের মধ্যে সভা-সমাবেশ করা, বক্তব্য রাখা মানুষের অধিকার। এখন সরকার যদি তা ভুল করে, তাহলে তারা সংবিধান লঙ্ঘন করলো। আমি তো মনে করে দেশের মানুষ তাদেরকে গাড় ধরে বের করে দেয়া উচিত।

তিনি আরো বলেন, অনুমতি না দিলেও আমাদের তো করে যেতেই হবেই। তারা(সরকার) অনুমতি দেবে কি দেবে না এটা তাদের বিষয়। অবস্থা বুঝে পরবর্তী করণীয় ঠিক করবো।

রেজা কিবরিয়া বলেন, ২২ অক্টোবর বেলা ৩ টা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করা হবে। সমাবেশে ঐক্যফ্রন্টের নেতৃত্ববৃন্দ উপস্থিত থাকবেন। সমাবেশে আমরা দেশের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে প্রস্তাব দেবো। এছাড়াও সমাবেশে ব্যাংক খাত, শেয়ার বাজার, দেশের সার্বিক দুর্নীতি নিয়ে সুনিদিষ্ট প্রস্তাব দেয়ার কথা জানান তিনি।

রেজা কিবরিয়া আরো বলেন, বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরার হত্যার বিচারের দাবিতে দেশে-বিদেশে গণস্বাক্ষর সংগ্রহ করবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এটা কিভাবে সংগ্রহ করা হবে, তার বিস্তারিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও জোটের শরিক দলের ওয়েব সাইটে জানানো হবে। এর ফরমেট ওয়েসসাইটে দেয়া হবে বলে জানান তিনি।

রক্তের অক্ষরে আবরার হত্যার বিচারে দাবিতে স্বাক্ষর সংগ্রহ করা হবে উল্লেখ করে গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক বলেন, গণস্বাক্ষর অভিযান শেষে হলে ঢাকার রাস্তায় এর প্রদর্শনী করা হবে। ঢাকার বাইরে অন্য শহরগুলোতে এর প্রর্দশনী করা হবে। আর প্রর্দশনীর তারিখ পরে জানানো হবে।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জেএসডির সভাপতি আসম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বিএনপির স্থায়ী কমিটির ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রর প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ।