দুই রণবীরকে নিয়ে খোলামেলা উত্তর

আগের সংবাদ

গাঙ্গুলির পরিকল্পনা

পরের সংবাদ

বিপিএলে বিদেশি কোচের ছড়াছড়ি

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ১৬, ২০১৯ , ১২:০৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: অক্টোবর ১৬, ২০১৯, ১২:০৮ অপরাহ্ণ

Avatar

আসন্ন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ক্রিকেট লিগ (বিপিএল) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ‘বঙ্গবন্ধু বিপিএল’ নামে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সপ্তম এই আসরের আয়োজন ও ব্যবস্থাপনার পাশাপাশি বিপিএলের দল গঠন, পরিচালনা, কোচিং স্টাফ নিয়োগসহ সব কাজই করবে। সঙ্গে শুধু সাতটি করপোরেট হাউজ থাকবে স্পন্সর পার্টনার হিসেবে। সেই পার্টনার নিয়োগের কাজও চলছে পুরোদমে।

ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে অনুষ্ঠিতব্য এবারের আসরে অংশগ্রহণকারী ৭ দলের জন্য চারটির স্পন্সর পার্টনার মোটামুটি নিশ্চিত। বাকি তিনটি স্পন্সর পার্টনার চূড়ান্ত করার কাজে ব্যস্ত বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। আশা করা যায়, আগামী সপ্তাহের মধ্যেই ৭ দলের স্পন্সর পার্টনার নিয়োগের কাজ শেষ হবে। এবার বিপিএলে ৭ দলে কোনো দেশি কোচ থাকবে না। অংশগ্রহণকারী দলের হেড কোচের দায়িত্বে থাকছেন সাত বিদেশি। বাংলাদেশ জাতীয় দলের মতো বিপিএলেও বিদেশি কোচের ছড়াছড়ি।

বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের অন্যতম সদস্য এবং টেকনিক্যাল কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুসের বরাতে জানা গেছে, প্রাথমিকভাবে বাংলা টাইগার আইটি, আখতার গ্রুপ, সাগর করপোরেশন নামে একটা বিজনেস গ্রুপ এবং আরেকটা মিডিয়া কোম্পানি আছে যারা স্পন্সরশিপ কিনে হয়ত পরে অকশনে দিতে পারে। তাদেরটা এখনো ঠিক হয়নি।

জালাল ইউনুস আরো বলেন, চারটা মোটামুটি কনফার্ম, ফাইনাল কিছুই হয়নি। ফাইনাল হবে তখন, এদের সঙ্গে যখন আমরা নেগোসিয়েট করব। হয়ত এ মাসেই আমরা এগুলো ফাইনাল করে ফেলব।

উল্লেখ্য, এর আগে বিপিএলে অংশ নেয়া কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি স্পন্সর পার্টনারের জন্য আবেদন করেনি। পাশাপাশি এবার বিসিবি আরো একটি নতুন উদ্যোগ নিয়েছে। প্রতি দলের সঙ্গে একজন করে টিম ডিরেক্টর থাকবেন। বিসিবির মনোনীত ব্যক্তি হিসেবে ৭ দলের ব্যবস্থাপনা, পরিচালনা ও তত্ত্বাবধানে থাকবেন তারা। অর্থাৎ বিসিবি মনোনীত ওই সাত পরিচালকের একেকজন একেকটি দলের ব্যবস্থাপনায় থাকবেন। জানা গেছে, বোর্ডের শীর্ষ পরিচালকদের মধ্য থেকেই বিপিএলের টিম ডিরেক্টর নিয়োগ দেয়া হবে। ধারণা করা হচ্ছে, বোর্ডে থাকা জাতীয় দলের তিন সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান, খালেদ মাহমুদ সুজন ও নাঈমুর রহমান দুর্জয় টিম ডিরেক্টরের সম্ভাব্য তালিকায় রয়েছেন। তাদের সঙ্গে বোর্ড পরিচালক এবং বিভিন্ন স্ট্যান্ডিং কমিটির প্রধানদের মধ্য থেকে আরো চারজনকে বেছে নেয়া হবে। সেই তালিকায় জালাল ইউনুস, কাজী ইনামের নামও শোনা যাচ্ছে। এই পাঁচ জনের টিম ডিরেক্টর হওয়া মোটামুটি নিশ্চিত বলা যায়। এর বাইরে আরো দুজন বোর্ড পরিচালককে অন্য দুই দলের ডিরেক্টর করা হবে। তারা কারা হবেন- সেটাই এখন দেখার বিষয়।
এ ছাড়া আসন্ন বিপিএলে নতুন কিছু নিয়ম সংযোজন হতে যাচ্ছে। তন্মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, ওপেনার ও লেগ স্পিনার হিসেবে প্রত্যেক দলে দেশি ক্রিকেটার খেলানো বাধ্যতামূলক। বঙ্গবন্ধু বিপিএলে অংশগ্রহণকারী কোনো দলেই প্রধান কোচের পদে থাকতে পারবেন না দেশি কোচরা। দলের সঙ্গে থাকতে হলে প্রধান কোচের সহকারী হয়েই থাকতে হবে তাদের।

প্রতিটি একাদশে বাধ্যতামূলক একজন লেগস্পিনারকে খেলানো, ১৪০ কিলোমিটার গতির ওপরে বোলিং করতে পারা একজন পেসার, সঙ্গে বিদেশি কোচ, ফিজিও, ট্রেইনার বিপিএলের এবারের আসর অনেক নতুন কিছু দেখবে বলেই ইঙ্গিত মিলেছিল স্পন্সরদের সঙ্গে বিপিএলের গভর্নিং কাউন্সিলের মিটিংয়ে। লেগস্পিনার, পেসারদের ব্যাপারগুলো বেশ নতুন। তবে বিদেশি কোচদের ব্যাপারটি দেশের ক্রিকেট কাঠামোতে একটা ধাক্কাও। তবে ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান বলছেন, চূড়ান্ত হয়নি কিছুই, তেমন হলে দেশীয় কোচরাও সুযোগ পাবেন।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা