বাজেট সংকেটে দীপনের ‘ডু অর ডাই’

আগের সংবাদ

‘মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশ’ জিম্মি থাকতে পারে না!

পরের সংবাদ

শুক্রবার শুরু হচ্ছে গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসব

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ৯, ২০১৯ , ৫:২২ অপরাহ্ণ | আপডেট: অক্টোবর ৯, ২০১৯, ৫:২২ অপরাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক

অষ্টমবারের মতো বসতে যাচ্ছে ‘গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসব ২০১৯’। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে ১১ অক্টোবর শুক্রবার শুরু হবে ১০ দিনব্যাপী এই উৎসব। যেখানে বাংলাদেশ ও ভারতের ১২১টি সংগঠনের প্রায় সাড়ে ৩ হাজার শিল্পীর অংশগ্রহণ করবে।

সকালে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার সেমিনার কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানায় গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসব পর্ষদ। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ শিল্পকলা অ্যাকাডেমি ও ইন্ডিয়া-বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় এ উৎসব অনুষ্ঠিত হবে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় এ উৎসবের উদ্বোধন করবেন নাট্যজন, সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর ও ভারতের নাট্যজন মেঘনাদ ভট্টাচার্য। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন- উৎসব পর্ষদের সদস্য সচিব আকতারুজ্জামান। এছাড়া বক্তব্য দেন- উৎসব পর্ষদের আহ্বায়ক গোলাম কুদ্দুছ, গণসঙ্গীত শিল্পী সমন্বয় পরিষদের সভাপতি ফকির আলমগীর, আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আহকাম উল্লাহ, নৃত্যশিল্পী সংস্থার সভাপতি মীনু হক ও পথনাটক পরিষদের সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান।

গোলাম কুদ্দুছ বলেন, এ উৎসবটি এখন দেশের সর্ববৃহৎ এক সাংস্কৃতিক উৎসব। বাংলাদেশ ও ভারতের মৈত্রীবন্ধন দৃঢ় করে এ উৎসব। আগামী কয়েক দিন কয়েক হাজার শিল্পী, সাংস্কৃতিক কর্মী নানা পরিবেশনা নিয়ে এখানে সমবেত হবেন। এটি শিল্পীদের মধ্যে শিল্পভাবনা বিনিময়ে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে।
১০ দিনের এ উৎসবে ৩৬টি মঞ্চ নাটকের মঞ্চায়ন হবে। এছাড়া প্রতিদিনই থাকবে পথনাটক, আবৃত্তি, সঙ্গীত, নৃত্য ও মূকাভিনয়।

শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তন, পরীক্ষণ থিয়েটার হল, স্টুডিও থিয়েটার হল, সঙ্গীত আবৃত্তি ও নৃত্য মিলনায়তন এবং মহিলা সমিতিতে এ উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।