যে জন্য আজো অবসরে যাননি এ রুশ শিক্ষিকা!

আগের সংবাদ

ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ

পরের সংবাদ

ক্যাসিনোর টাকা লগ্নি রুপালি পর্দার জগতে

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ৯, ২০১৯ , ১১:৫৩ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: অক্টোবর ৯, ২০১৯, ১২:২৪ অপরাহ্ণ

Avatar

অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসা প্রকাশ্যে আসার পর একের পর এক গ্রেপ্তার হচ্ছেন প্রভাবশালী ব্যক্তিরা। প্রতিনিয়তই বেরিয়ে আসছে চাঞ্চল্যকর নানা তথ্য। ক্যাসিনোর অবৈধ টাকা বিদেশে পাচার, প্রভাবশালী মহলের পকেট ভারি করার পাশাপাশি লগ্নি হয়েছে দেশের সিনেমাতেও। মূলত ক্যাসিনোর কালো টাকা সাদা করার সহজ মাধ্যম হিসেবে শোবিজের এই অঙ্গনকে বেছে নেন অপকর্মের হোতারা। প্রথমে ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, এরপর জি কে শামীম গ্রেপ্তার হওয়ার পর কে কোন সিনেমায় কত টাকা লগ্নি করেছেন, তা নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয় চলচ্চিত্রপাড়ায়।

সর্বশেষ গত রবিবার ঢাকা মহানগর যুবলীগ দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট ও তার ডান হাত বলে পরিচিত এনামুল হক আরমান গ্রেপ্তার হওয়ার পর এই আলোচনা জোরালো হয়। এক ধরনের আতঙ্ক ভর করেছে সিনেমাপাড়ায়। কারণ সম্রাট, খালেদ ও আরমান এ তিনজনই সাম্প্রতিককালে সিনেমার সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন প্রযোজক হিসেবে। প্রথমদিকে বেনামে অর্থলগ্নি করলেও চলতি বছর ‘দেশবাংলা মাল্টিমিডিয়া’ নামে একটি প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান চালু করা হয়। যার কর্ণধার হিসেবে প্রকাশ্যে থাকেন আরমান। তবে এর মূল মালিক হিসেবে সম্রাট ও খালেদের নাম শোনা গেছে।

চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, গত বছর একজন প্রতিমন্ত্রীকে অতিথি করে ঢাকা ক্লাবে জাঁকজমকভাবে ‘মনের মত মানুষ পেলাম না’ ছবির মহরত অনুষ্ঠিত হয়। ‘দেশবাংলা মাল্টিমিডিয়া’ প্রযোজিত এই ছবির প্রয়োজক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আরমান। তবে ওই অনুষ্ঠানে সম্রাট উপস্থিত না থাকলেও মঞ্চে যারা বক্তব্য রেখেছেন তারা সবাই স¤্রাটের ভ‚য়সীয় প্রসংশা করেন। উপস্থিত অতিথিদের বুঝতে বাকি থাকে না এ ছবির লগ্নিকারক হিসেবে নেপথ্যে রয়েছেন সম্রাট। শাকিব-বুবলি অভিনীত এ ছবিটি পরিচালনা করেন জাকির হোসেন রাজু। কথিত আছে, ‘মনের মত মানুষ পেলাম না’ ছবিটি ব্যবসা সফল হলে সম্রাট আরো ১০টি সিনেমায় লগ্নি করার ঘোষণা দেন। যদিও ওই ছবিটি দর্শক মনে সাড়া ফেলতে পারেনি, মুখথুবড়ে পড়ে।

তবে এই ছবির মুক্তির আগেই মন্ত্রী-এমপিকে অতিথি করে রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে জমকালো আয়োজন করে প্রতিষ্ঠানটি। মহরৎ করা হয় ‘আগুন’ নামে একটি ছবির। বদিউল আলম খোকন পরিচালিত এই ছবির নায়ক শাকিব খান ও নায়িকা নবাগতা জাহরা মিতু। বর্তমানে কক্সবাজারে ‘আগুন’ ছবির শুটিং চললেও ছবিটি এখন অনিশ্চয়তার হুমকিতে। অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছে দেশবাংলার কার্যক্রমও।

গত বছর শাকিব-বুবলিকে নিয়ে যখন ‘পাসওয়ার্ড’ ছবিটি নির্মিত হচ্ছিল তখনই শোনা যায়, এ ছবিটিতে গুলশানের খালেদ নামে এক ব্যবসায়ী লগ্নি করছেন। প্রকাশ্যে প্রযোজক ছিলেন সম্রাট-খালেদের ডান হাত বলে পরিচিত আরমান। ক্যাসিনোকাণ্ডে র‌্যাবের হাতে খালেদ ধরা পড়ার পর চাউর হয়, ব্যবসায়ী সেই খালেদই এই ক্যাসিনো খালেদ। পরবর্তী সময়ে ‘পাসওয়ার্ড-২’ নির্মাণ শুরু হয়। এ ছাড়া ‘বীর’, ‘টাইগার’ নামে আরো ২টি ছবি নির্মাণের কথা থাকলেও খালেদকে গ্রেপ্তারের পর যারা ঘোষণা দিয়েছিলেন তারা পিছিয়ে যান।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সিনেমাপাড়া নিয়ে ফ্যান্টাসি ছিল সম্রাটের মধ্যে। তিনি সিনেমার মানুষদের সঙ্গে মিশতে পছন্দ করতেন। অনেকেই স¤্রাট ও তার সহযোগীদের টাকায় নিজেদের প্রভাবশালী প্রযোজক হিসেবে সিনেমাপাড়ায় পরিচিত করে তুলেছেন। ইন্ডাস্ট্রির শীর্ষ এক নায়কও নিজের নামে সেই সব টাকা সিনেমায় লগ্নি করে ক্রান্তিলগ্নের প্রযোজক হিসেবে বাহবা কুড়িয়েছেন। তার সঙ্গে সহযোগী হিসেবে থাকতেন আরো দুয়েকজন প্রযোজক। সেই টাকা আসতো কাকরাইলে সম্রাটের কার্যালয় থেকে।

প্রথমদিকে এসব টাকার জোগানদাতা হিসেবে শোনা যেত ক্যাসিনোকাণ্ডে আটক হওয়া যুবলীগ নেতা খালেদের নাম। তিনি বেনামে সিনেমায় টাকা লগ্নি করতেন বলে শোনা যায়। দেশের সেরা তারকাদের অনেক ছবিতেই তার অর্থ বিনিয়োগের খবর চলচ্চিত্রপাড়ায় উড়ে বেড়ায়। সম্রাটের ছত্রচ্ছায়ায় এসব ছবিতে টাকা ঢেলে কালো টাকা সাদা করার পাশাপাশি সিনেমার উঠতি নায়িকাদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তুলতেন খালেদ। মূলত খালেদের পরামর্শ ও আগ্রহেই পরবর্তী সময়ে সিনেমার দিকে অধিক মনোযোগী হন সম্রাট।

শোনা যায়, তার ডান হাত হিসেবে পরিচিত আরমানের মাধ্যমে বেনামে সিনেমায় টাকা লগ্নি করতেন তিনি। সেই সুবাদে চলচ্চিত্রের মানুষদের সঙ্গে তার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। অনেক নামিদামি নায়ক-পরিচালক তার সঙ্গে সম্পর্ক বজায় রাখতেন সিনেমার টাকার জন্য। ৮/১০টি ছবি করেছেন এমন একজন প্রথম সারির নায়িকার সঙ্গেও বেশ ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল তার, এমন গুঞ্জন ছড়িয়েছে বহুবার। ওই নায়িকা সম্রাটের সঙ্গে সম্পর্কের দাপট দেখাতেন সিনেমাপাড়ায়। শোনা যায়, আজিজ মোহাম্মদ ভাইয়ের মতো মিডিয়া মোগল হতে চেয়েছিলেনসম্রাট । খালেদের পর সম্রাট ও তার অন্যতম সহযোগী আরমান গ্রেপ্তার হওয়ায় আতঙ্কিত চলচ্চিত্রপাড়ার অনেকেই।

অন্যদিকে টেন্ডার মোগল জি কে শামীম ‘ম’ আধ্যাক্ষরের এক উঠতি নায়িকাকে নিয়ে দুটি ছবি নির্মাণ করেন। এর মধ্যে একটি ছবি মুক্তি পেলেও তা চলেনি, ব্যবসায়িকভাবে মুখ থুবড়ে পড়ে। শোনা যায়, ওই নায়িকার সঙ্গে জি কে শামীমের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল বলে চলচ্চিত্র পাড়ায় গুঞ্জন রয়েছে।