কুমারীপূজা

আগের সংবাদ

সেলিম প্রধানের ‘রঙমহলে’ ছিল অপ্সরীদের আনাগোনা

পরের সংবাদ

যেভাবে আটক হলেন সম্রাট

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: October 6, 2019 , 11:36 am

যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী ওরফে সম্রাটকে নিয়ে গত দশদিন ধরেই আলোচনা চলছি। ক্যাসিনো সম্রাট হিসেবে ব্যাপকভাবে তর্কবিতর্কের পর তাকে নিয়ে সন্দেহ দানা বাঁধছিল। তিনি আসলে কোথায়? দেশে না বিদেশে? আদৌ তিনি আটক হবেন নাকি তাকে ছেড়ে দেয়া হবে- এমন নানা প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছিল।

এর মধ্যেই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের বলেছিলেন, অপেক্ষা করুন, যা ঘটবে দেখবেন। সম্রাট বলে কথা নয়; যে কেউ আইনের আওতায় আসবে। আপনারা সময় হলেই দেখবেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কথা সূত্র ধরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলছিলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যা বলেছেন সেটার ওপর বিশ্বাস করে থাকুন। প্লিজ ওয়েট অ্যান্ড সি। শিগগিরই জানতে পারবেন।

সর্বশেষ শনিবার (৫ অক্টোবর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সাধারণ সভায় পরিষদের সদস্য সচিব ও সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দেয়ার পরও কেন যুবলীগ দক্ষিণের সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে আটক করা হয়নি?

এসব নানা প্রশ্ন আর রহস্য উন্মোচিত হয়েছে অবশেষে রোববার (৬ অক্টোবর) ভোর পাঁচটার দিকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রাম সম্রাটকে গ্রেপ্তারের মধ্য দিয়ে। একই সময়ে সম্রাটের সঙ্গে থাকা যুবলীগের আরেক নেতা এনামুল হক ওরফে আরমান আলীও র‌্যাবের হাতে আটক হন।

কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রামের বাসিন্দারা জানান, কুঞ্জুশ্রীপুর গ্রামের এক আত্মীয়ের বাসায় আত্মগোপনে ছিলেন সম্রাট। গভীর রাতে বাড়িটি ঘিরে রাখে র‍্যাব। পরে সম্রাটকে আটক করা হয়।

তবে র‍্যাবের লিগ্যাল ও মিডিয়া উইংয়ের সিনিয়র সহকারী পরিচালক এএসপি মিজানুর রহমান সম্রাটকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করলেও অভিযান সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু বলেননি। এ বিষয়ে রাজধানীতে সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত জানানো হবে বলে জানিয়েছেন র‌্যাবের ওই কর্মকর্তা।