হরিয়ানায় যাচ্ছে কাবাডি দল

আগের সংবাদ

একুশে পদকপ্রাপ্ত বৌদ্ধধর্মীয় গুরু সত্যপ্রিয় মহাথেরোর প্রয়াণ

পরের সংবাদ

ফের ভুটানকে হারাল বাংলাদেশ

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ৩, ২০১৯ , ১০:১২ অপরাহ্ণ | আপডেট: অক্টোবর ৩, ২০১৯, ১০:১২ অপরাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক

বিশ্বকাপ বাছাই ২০২২ ও এশিয়া কাপ বাছাই ২০২৩ এ শক্তিশালী কাতার ও প্রতিবেশী ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার জন্য ভুটানকে নিয়ে আসে বাংলাদেশ। ২৯ সেপ্টেম্বর প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে তাদের ৪-১ গোলে উড়িয়ে দেয় লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। এরপর গতকাল দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচটিও দারুণভাবে জিতে নিয়েছে জেমি ডের শিষ্যরা। ইয়াসিন খানের জোড়া গোলে সফরকারী ভুটানকে হারিয়ে আত্মবিশ্বাস বাড়িয়ে নিয়েছে জামাল ভূঁইয়ারা। গতকাল বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে স্বাগতিকদের সামনে পাত্তা পায়নি ভুটান। ২-০ গোলে জিতলেও বেশ কয়েকটি সহজ সুযোগ হাত ছাড়া করেছে জেমি ডের শিষ্যরা।

ম্যাচের প্রথমার্ধের ২৩ মিনিট এবং ৬৬ মিনিটে দলের পক্ষে জোড়া গোল করেন ইয়াসিন খান। ম্যাচের শুরু থেকে প্রাধান্য বিস্তার করে খেলতে থাকে লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। তবে ৩০ মিনিটের মাথায় সমতা ফেরার সুযোগ তৈরি করে দর্জি-পেমারা। তাদের করা দুর্দান্ত এক শট ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক সহিদুল আলম সোহেল। ফলে সমতায় ফিরতে পারেনি ভুটান। এরপর ১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় বাংলাদেশ। দ্বিতীয়ার্ধে ব্যবধান বাড়ানোর জন্য মরিয়া হয়ে উঠে জেমি ডের শিষ্যরা। কাক্সিক্ষত দ্বিতীয় গোলটি আসে ৬৫ মিনিটের মাথায়। প্রথম ম্যাচের মতো এ ম্যাচেও চার গোলের ব্যবধানে জিততে পারত বাংলাদেশ। বেশ কয়েকটি সহজ সুযোগ অপচয় করায় ২-০ গোলে জয় নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় জামালদের।

ফুটবলে দীর্ঘদিন পর টানা দুই ম্যাচে জয় তুলে নিয়ে নিজেদের শক্তির কথা জানান দিল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। আর বাছাইপর্বে ভালো করতে এমন জয় নিঃসন্দেহে পুরো দলকে উজ্জীবিত করবে।

বাংলাদেশ ও ভুটানের খেলোয়াড়ের মধ্যে বল দখলে লড়াই

বাংলাদেশ ও ভুটান এ পর্যন্ত ১৩টি ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে। যেখানে দশটি ম্যাচে জয় তুলে নিয়েছে লাল সবুজের প্রতিনিধিরা। আর ভুটান জিতেছে মাত্র একটি ম্যাচ। সেটিও ২০১৬ সালে। আর বাকি দুটি ম্যাচ ড্র হয়েছে। তবে ২০১৬ সালে এশিয়ান কাপ প্রাক বাছাইয়ে ভুটানের বিপক্ষে ওই একটি ম্যাচে হেরেই তিন বছরের জন্য নির্বাসনে যেতে হয়েছিল বাংলাদেশকে। ভুটানের একমাত্র জয় উলট-পালট করে দিয়েছিল দেশের ফুটবল। এ হারের ফলে ফিফা ও এএফসির কোনো আন্তর্জাতিক ফুটবল ম্যাচে অংশ নিতে পারেনি দেশের ফুটবলাররা। তবে ওই সমস্যা থেকে এখন অনেকটাই উতরে গেছে মামুনুলরা। পরপর দুই ম্যাচে ভুটানকে হারিয়ে সেই প্রমাণ দিয়েছে জেমি ডের শিষ্যরা। এবার বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে মুখোমুখি হয়েছিল জামাল-মামুনুলরা। সেই ম্যাচে মাত্র একটি গোল হজম করেছিল তারা। ম্যাচটিতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সমানে সমানে টেক্কা দিয়েছিল ফুটবলাররা। ছোট ভুলের কারণে গোলটি করতে সমর্থ হয় আফগানিস্তান।

বিশ্বকাপ ২০২২ বাছাই ও এশিয়া কাপ ২০২৩ যৌথ বাছাইয়ের কাতারের বিপক্ষে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১০ অক্টোবর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে। এশিয়ার সবচেয়ে বড় দল এখন এই কাতার। গত বছর সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপে জাপান, ইরান, ইরাকের মতো শক্তিশালী দলগুলোকে পেছনে ফেলে শিরোপা জিতে নেয় কাতার। তাই এশিয়ার চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে ম্যাচ খেললে বাংলাদেশ বড় অভিজ্ঞতা অর্জন করবে তা নিশ্চিত। কাতারের বিপক্ষে ম্যাচ খেলেই ভারতের উদ্দেশে উড়াল দিবে জেমি ডের শিষ্যরা। কলকাতার সল্টলেক স্টেডিয়ামে আগামী ১৫ অক্টোবর মুখোমুখি হবে জামাল ভূঁইয়ারা। এরপর এক মাস পর ১৪ নভেম্বর ওমানের মাটিতে তাদেরই বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ। এটিই জামাল ভূঁইয়াদের এ বছরের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ।