প্রতিষ্ঠানবিরোধী তারুণ্যের গল্প ‘অনুদ্ধারণীয়’

আগের সংবাদ

বাংলাদেশের টার্গেট ১৩৯

পরের সংবাদ

বাবার সঙ্গে লঞ্চে ঢাকায় আসছেন মিন্নি

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯ , ৮:২৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯, ৮:৪০ অপরাহ্ণ

Avatar

বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় প্রধান সাক্ষী থেকে আসামি হওয়া স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি ঢাকায় আসছেন। চিকিৎসা ও আইনি পরামর্শের জন্য বাবার সঙ্গে ঢাকা রওনা দিয়েছেন। ঢাকাগামী এমভি শাহারুখ লঞ্চে শনিবার বিকেল ৪টায় বরগুনা লঞ্চঘাট থেকে যাত্রা শুরু করেন। তার সঙ্গে আরো আছেন নানা জাকির সিকদার ও আরো একজন আত্মীয়।

আইনজীবীরা জানান, সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে আইনি লড়াই চালিয়ে যেতে পরামর্শের জন্যই মূলত ঢাকায় আসছেন মিন্নি। রোববার (২২ সেপ্টেম্বর) সুপ্রিম কোর্টে এসে মিন্নি তার প্রধান আইনজীবী জেড আই খান পান্নার চেম্বারে অন্য সব আইনজীবীদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। তবে, আদালতের নিষেধ থাকায় মিডিয়ার সঙ্গে কোনো কথা বলবেন না।

মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোর জানান, মিন্নির মানসিক অবস্থা খুবই খারাপ। সেই সঙ্গে শরীরে নানা ধরনের রোগের উপসর্গ দেখা দিয়েছে। তার দ্রুত উন্নত চিকিৎসা জরুরি। তিনি অভিযোগ করে বলেন, রিমান্ডে নিয়ে তার মেয়ে মিন্নিকে পুলিশ নির্যাতন করেছে। তার দুই হাঁটুতে এখনো ব্যথা। তাছাড়া রিফাত হত্যার সাথে জড়িয়ে আসামি করে পুলিশ চার্জশিট দেয়ায় মিন্নি দুশ্চিন্তা ও হতাশায় ভুগছে। সে এখন মানসিক রোগী। তাই তার চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেয়া হচ্ছে।

এছাড়াও মিন্নির জামিনের জন্য বিনাপারিশ্রমিকে উচ্চ আদালতে আইনি লড়াই করা আইনজীবীদের সঙ্গে দেখা করে তাদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করবেন বলেও জানান মোজাম্মেল হোসেন।

রিফাত হত্যা মামলায় ২৪ জনকে আসামি করে দুটি পৃথক অভিযোগপত্র জমা দিয়েছে পুলিশ। গত ১৮ সেপ্টেম্বর আদালত অভিযোগপত্র গ্রহণ করে। ওই অভিযোগপত্রে মিন্নিকে ৭নং আসামি করা হয়েছে। এছাড়া, তার বিরুদ্ধে হত্যার পরিকল্পনা ও ষড়যন্ত্রকারী হিসেবে ফৌজদারি অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে।

গত ২৯ আগস্ট মিডিয়া সঙ্গে কথা না বলা এবং বাবার জিম্মায় থাকার শর্তে মিন্নির জামিন মঞ্জুর করেন হাইকোর্ট। জামিন বাতিলে রাষ্ট্রের আবেদন নামঞ্জুর করে হাইকোর্টের দেয়া জামিন চেম্বার আদালত বহাল রাখায় ২ সেপ্টেম্বর কারাগার থেকে মুক্তি পান মিন্নি।