১৮ অক্টোবর শিল্পী সমিতির নির্বাচন

আগের সংবাদ

কঙ্গনার কাছ থেকে পুরস্কার নিলেন ইশরাত

পরের সংবাদ

যুবদল থেকে যুবলীগে আসা শামীমের যত কর্মকাণ্ড

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯ , ৪:৩৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯, ৫:৩৪ অপরাহ্ণ

Avatar

রাজধানীতে প্রভাবশালী ঠিকাদার হিসেবে পরিচিত এস এম গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীম। বর্তমানে তিনি যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সমবায় বিষয়ক সম্পাদক। একই সঙ্গে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি।

জি কে শামীমের রাজনীতির হাতিখড়ি বিএনপির সহযোগী সংগঠন জাতীয়তাবাদী যুবদল থেকে। তিনি এক পর্যায়ে যুবদলের কেন্দ্রীয় সহসম্পাদক পদ লাভ করেছিলেন। রাজনীতির বদলের পর তিনি দলবদল ও মতবদল ঘটান। যোগ দেন যুবলীগে।

বাসাবো এলাকায় জি কে শামীমের বিষয়ে কেউ প্রকাশ্যে মুখ খুলতে চান না। এই এলাকায় তার পাঁচটি বাড়ি এবং একাধিক প্লট রয়েছে। কদমতলায় ১৭ নম্বরের পাঁচতলা বাড়িটি জি কে শামীমের। ম্যানেজার হিসেবে বাড়িটির দেখাশোনা করেন স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ইসমাইল হোসেন সর্দার।

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার সন্মানদী ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়া গ্রামের মৃত আফসার উদ্দিন মাস্টারের ছেলে জি কে শামীম। তার বাবা ছিলেন হরিহরদি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। তিন ভাইয়ের মধ্যে শামীম মেজো। গ্রাম থেকে ঢাকায় আসার পর এজিবি কলোনি, হাসপাতাল জোন এবং মধ্য বাসাবোতেই পরিবার নিয়ে বসবাস করতেন শামীম।

গত একদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় জি কে শামীম আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনের জন্য প্রচারণাও চালিয়েছিলেন। এক সময় বিএনপির কেন্দ্রীয় প্রভাবশালী নেতা ও সাবেক গণপূর্তমন্ত্রী মির্জা আব্বাসের খুবই ঘনিষ্ঠ ছিলেন।

শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর নিকেতনের অফিস থেকে সশস্ত্র সাত দেহরক্ষীসহ জি কে শামীমকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। দেহরক্ষীদের মধ্যে প্রধান দেহরক্ষী শহীদুল মুরাদ কামাল ও জাহিদ। নিকেতন ৪ নম্বর রোডের ১১৪ নম্বর ভবনে জিকেবি কোম্পানি প্রাইভেট লিমিটেড শামীমের বাণিজ্যিক কার্যালয়।