জিম্বাবুয়ের প্রথম শিকার হযরতউল্লাহ

আগের সংবাদ

ফের বাড়ছে ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা

পরের সংবাদ

দেশেই উচ্চমানের চিকিৎসা ব্যবস্থা রয়েছে: পরিকল্পনামন্ত্রী

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯ , ৭:৪১ অপরাহ্ণ

শুধু চিকিৎসা নয়, অন্যান্য সেবাকেও জনমুখী করে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান। তিনি বলেন, দেশেই উচ্চমানের চিকিৎসা ব্যবস্থা রয়েছে। ভালো সেবাও আছে। কিন্তু মানসিক ও আচরণগতভাবে কিছু সমস্যা রয়ে গেছে। ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ারসহ উচ্চপর্যায়ের মানুষের কাছ থেকে জনগণ অনেক কিছু আশা করে। তাদের এই আশাকে আমাদের সম্মান করতে হবে।

শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) ‘ঢাকা ক্যানসার সামিট’র উদ্বোধনী অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলের বল রুমে মেডিকেল অনেকালজি সোসাইটি ইন বাংলাদেশ (এমওএসবি) এই সামিটের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া, ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. খান আবুল কালাম আজাদ, এমওএসবি’র প্রধান পৃষ্ঠপোষক অধ্যাপক ডা. আব্দুল হাই। এতে সভাপতিত্ব করেন এমওএসবি’র সভাপতি অধ্যাপক ডা. পারভীন শাহীদা আক্তার।

মন্ত্রী বলেন,  দেশের মানুষের কষ্ট লাঘবে প্রধানমন্ত্রী যথেষ্ট উদ্যোগী। ক্যান্সার রোগ মোকাবেলায় তিনি যে কোন পদক্ষেপ গ্রহণে প্রস্তুত। ২০২২ সালের মধ্যে দেশে ৮টি বিভাগীয় শহরে বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় দেশের প্রতিটি মেডিকেল কলেজে মেডিকেল অনকোলজি খোলার বিষয়ে মন্ত্রীকে আরো উদ্যোগী হওয়ার জন্য অনুরোধ জানান অধ্যাপক ডা. খান আবুল কালাম আজাদ।

অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া ক্যান্সার মোকাবেলায় সকল জেলা উপজেলার মেডিকেল অনেকালজি নিয়োগ করে তৃণমুলে ক্যান্সার চিকিৎসার নিশ্চিত করার উপর জোর দাবি জানান। এক্ষেত্রে উচ্চ শিক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন তিনি।

দিনব্যাপি এই সম্মেলনে দেশ বিদেশের খ্যাতনামা ক্যান্সার বিশেষজ্ঞরা তাদের গবেষণাপত্র ও অভিজ্ঞতা বিনিময় করেন। ক্যান্সার রোগের চিকিৎসার সাথে জড়িত প্রায় ৩৫০ জন চিকিৎসক গবেষক এই সামিটে অংশ গ্রহণ করেন। পাশাপাশি বাংলাদেশে ক্যান্সারে মোকাবেলায় তাদের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এ সময় ছয় জন তরুণ গবেষক এই সামিটে তাদের প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। দু’টি একাডেমিক সেশন, দু’টি প্ল্যানারি যেমন ক্যান্সার চিকিৎসায় সমসাময়িক বাস্তবতা সংক্রান্ত একট সেশন অনুষ্ঠিত হয়। সেশনগুলোকে মোট ২৭টি প্রবন্ধ উপস্থাপিত হয়। সেখানে বাংলাদেশে ও বিশ্ব বাস্তবতায় ভয়াবহ ক্যান্সার মোকাবেলায় করণীয় পদ্ধতি ও নতুন অভিজ্ঞতা ও জ্ঞানের সমন্বয় সাধিত হয়। এবং এখান থেকে ক্যান্সারের বিরুদ্ধে সমন্বিত প্রতিরোধের প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়।