ছন্দে ফেরার ইঙ্গিত লিটনের

আগের সংবাদ

কোনো উদ্যোগেই আস্থা ফিরছে না পুঁজিবাজারে

পরের সংবাদ

২৭ বিমা কোম্পানিকে ডিসেম্বরের মধ্যে তালিকাভুক্তির নির্দেশ

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯ , ১১:০৫ পূর্বাহ্ণ

আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হতে ২৭ বিমা কোম্পানিকে নির্দেশ দিয়েছে বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। সম্প্রতি আইডিআরএর সদস্য গকুল চন্দ্র দাস স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে বিমা কোম্পানিগুলোর চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের এই নির্দেশনা দেয়া হয়।

এতে বলা হয়, আগামী তিন মাসের মধ্যে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে নির্দেশ দেয়া হলো। নির্ধারিত সময়ে তালিকাভুক্ত হতে ব্যর্থ হলে বিমা আইন অনুযায়ী কোম্পানিগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে আইডিআরএর চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান পাটোয়ারী বলেন, অর্থমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়নি এমন বিমা কোম্পানিগুলোকে আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে তালিকাভুক্ত হতে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে গত ১৬ সেপ্টেম্বর আইডিআরএ থেকে এ সংক্রান্ত একটি চিঠি বিমা কোম্পানিগুলোর চেয়ারম্যান ও মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে। সূত্র জানায়, রাষ্ট্রায়ত্ত জীবন বিমা ও সাধারণ বিমা করপোরেশনসহ মোট ৭৮টি বিমা কোম্পানি রয়েছে। এর মধ্যে ৩২টি জীবন বিমা, ৪৬টি সাধারণ বিমা এবং ২টি বিদেশি বিমা কোম্পানি রয়েছে। বিদেশি বিমা কোম্পানি দুটি হলো আমেরিকান লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি বা মেটলাইফ। অন্যটি হলো লাইফ ইন্স্যুরেন্স করপোরেশন অব বাংলাদেশ।

সূত্র আরো জানায়, ৭৮টি বিমা কোম্পানির মধ্যে ৪৭টি কোম্পানি বর্তমানে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত। বাকি ২৭টি কোম্পানিকে নতুন করে তালিকাভুক্ত হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১৮টি জীবন বিমা কোম্পানি এবং ৯টি সাধারণ বিমা কোম্পানি রয়েছে। তবে এগুলোর মধ্যে ২টি রাষ্ট্রায়ত্ত, ১টি বিদেশি মেটলাইফ ও বাংলাদেশ কো-অপারেটিভ কোম্পানির পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়ার ব্যাপারে জটিলতা রয়েছে। ২৭টি কোম্পানির মধ্যে জীবন বিমা ১৮টি কোম্পানি হলো- বায়রা লাইফ, গোল্ডেন লাইফ, হোমল্যান্ড লাইফ, সানফ্লাওয়ার লাইফ, বেস্ট লাইফ, চার্টার্ড লাইফ, এনআরবি গ্লোবাল লাইফ, প্রোটেক্টিভ ইসলামী লাইফ, সোনালী লাইফ, জেনিথ ইসলামী লাইফ, আলফা ইসলামী লাইফ, ডায়মন্ড লাইফ, গার্ডিয়ান লাইফ, যমুনা লাইফ, মার্কেন্টাইল ইসলামী লাইফ, স্বদেশ লাইফ, ট্রাস্ট ইসলামী লাইফ, এলআইসি বাংলাদেশ।

অন্যদিকে ৯টি সাধারণ বিমা কোম্পানি হলো- ক্রিস্টাল ইন্স্যুরেন্স, মেঘনা ইন্স্যুরেন্স, সাউদ এশিয়া ইন্স্যুরেন্স, ইসলামী কমার্শিয়াল ইন্স্যুরেন্স, ইউনিয়ন ইন্স্যুরেন্স, দেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স, এক্সপ্রেস ইন্স্যুরেন্স, সেনা কল্যাণ ইন্স্যুরেন্স ও সিকদার ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড।

উল্লিখিত কোম্পানিগুলো পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়ার মাধ্যমে মূলধনের ৪০ শতাংশ অর্থ প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহ করবে।

সূত্র জানায়, বিমা আইনানুযায়ী কোনো কোম্পানি নিবন্ধিত হওয়ার তিন বছরের মধ্যে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এ সময়ের মধ্যে কোনো কোম্পানি পুঁজিবাজারে আসতে না পারলে যুক্তিসঙ্গত কারণ দেখিয়ে আরো ছয় মাস সময় বাড়াতে পারে। তারপরেও পুঁজিবাজারে বাজারে আসতে না পারায় ২০১১ সাল পর্যন্ত প্রথম বিমা আইনের (বিমা আইন ১৯৩৮) ১০২ ধারা অনুযায়ী প্রতিদিন এক হাজার টাকা করে জরিমানা দিতে হতো। বিমা নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ নতুন বিমা আইন ২০১০-এর ১৩০ ধারা অনুযায়ী ২০১১ সালের জানুয়ারি থেকে জরিমানার পরিমাণ এক হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে পাঁচ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়।