‘যদি না পারো দিতে সিঁদুর’

আগের সংবাদ

খালেদের বিরুদ্ধে ৩ মামলা

পরের সংবাদ

ডাক্তার ও ফার্মাসিস্টদের একযোগে কাজ করতে হবে: স্পিকার

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯ , ৬:১৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৯, ৬:১৩ অপরাহ্ণ

Avatar

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, সার্বজনীন স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে ডাক্তার ও ফার্মাসিস্টদের একযোগে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, জাতীয় অর্থনীতিতে ফার্মাসিটিক্যাল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সেক্টর। বাংলাদেশের দক্ষ ফার্মাসিস্টবৃন্দ স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। ফার্মাসিটিক্যাল সেক্টরকে কাজে লাগাতে পারলে দেশের অর্থনীতির ভীত আরো মজবুত হবে।

তিনি বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁ হোটেলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সহযোগিতায় ফার্মাসি কাউন্সিল অব বাংলদেশ আয়োজিত ‘পলিসি ডায়ালগ অন গুড ফার্মাসি প্রাকটিস ইন হসপিটাল ফার্মাসি সেটিংস অব বাংলাদেশ’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

স্পিকার বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের মূল দর্শন মানুষের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেওয়া। সারাদেশে ১৪ হাজারের বেশি কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করেছে. যার প্রত্যেকটি থেকে ৬ হাজার জনকে চিকিৎসা সেবা দেয়া হচ্ছে। কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে ৩২ প্রকারের ঔষুধ বিনামূল্যে দেয়া হয়। এছাড়াও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর মাধ্যমে তৃণমূলে স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, চিকিৎসকদের সাফল্যে বাংলাদেশকে গর্বিত করে। এ সময়ে তিনি দেশের হাসপাতালগুলোতে দক্ষ ফার্মাসিস্ট নিয়োগের মাধ্যমে ঔষধ নিয়ে বিভ্রান্তি ও ঔষধের ভূল প্রয়োগের হার কমিয়ে আনা সম্ভব হবে বলে উল্লেখ করেন।

স্পিকার বলেন, বিশ্বব্যাপী ঔষধের গবেষণা, উৎপাদন, বিপণন এবং প্রয়োগের ক্ষেত্রে ফার্মাসিস্টরা তাদের নিরলস প্রচেষ্টা, ঐকান্তিক শ্রম এবং মেধা প্রয়োগের মাধ্যমে উন্নত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে কাজ করে যাচ্ছেন। বাংলাদেশে বর্তমান সরকারের যুগোপযোগী সিদ্ধান্তের ফলে ওষুধশিল্পের বিকাশে এক আমূল পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। বর্তমানে দেশের চাহিদার ৯৮ শতাংশ ওষুধ দেশে উৎপাদন হচ্ছে এবং বিশ্বের অনেক দেশে ওষুধ রপ্তানী হচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।