এরশাদ পরিবারে দুই প্রার্থী হওয়ায় নতুন সমীকরণ

আগের সংবাদ

বন্দরনগরীতে রৌদ্রজ্জ্বল দিন

পরের সংবাদ

টাইগারদের আজ ফাইনালে উঠার লড়াই

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯ , ১১:৩২ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯, ১১:৩২ পূর্বাহ্ণ

Avatar

বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে গত রবিবার শেষ হয়েছে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের লিগ পর্যায়ের ঢাকা পর্বের খেলা। মাঝখানে দুদিন বিরতির পর আজ থেকে চট্টগ্রাম পর্বের খেলা মাঠে গড়াচ্ছে। আর চট্টগ্রাম পর্বের প্রথম দিনেই মাঠে নামছে টাইগাররা। যেখানে সাকিব আল হাসানের দলের প্রতিপক্ষ হ্যামিল্টন মাসাকাদজার নেতৃত্বাধীন জিম্বাবুয়ে। ম্যাচটির ভেন্যু জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম। আগের তিন ম্যাচের মতো এই ম্যাচটিও শুরু হবে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়। আজকের ম্যাচে টাইগারদের বিপক্ষে হারলেই চলতি ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে উঠার স্বপ্ন ধূলিসাৎ হয়ে যাবে জিম্বাবুয়ের। অন্যদিকে মাসাকাদজাদের বিপক্ষে জিতলেই এক ম্যাচ হাতে রেখে ফাইনালের টিকেট পাবে বাংলাদেশ দল। সে সঙ্গে টাইগারদের মতো সিরিজের অপর দল আফগানিস্তানও পাবে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচের টিকেট। কিন্তু জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারলে ফাইনালে উঠা কঠিন হয়ে উঠবে স্বাগতিকদের জন্য। তাই এই ম্যাচটি বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে দুদলের জন্যই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।
বাংলাদেশ ও জিম্বাবুয়ে দুটি দলই চলতি সিরিজে নিজেদের শেষ ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে হেরেছে। গত শুক্রবার উদ্বোধনী ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৩ উইকেটের জয় দিয়ে সিরিজে পথচলা শুরু করে সাকিবের দল। তবে পরের ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে ২৫ রানে হারে টাইগাররা। ২ ম্যাচে ১ জয় ও ১ হারে ৪ পয়েন্ট নিয়ে এখন টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে আছে বাংলাদেশ। অন্যদিকে স্বাগতিকদের বিপক্ষে হার দিয়ে সিরিজে পথচলা শুরু হয় জিম্বাবুয়ের। আর তাদের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে ২৮ রানে মাসাকাদজা বাহিনী। পয়েন্ট টেবিলে এখন তাদের অবস্থান সবার নিচে।
নিজেদের আগের ম্যাচে আফগানদের বিপক্ষে হেরেছে বাংলাদেশ। কিন্তু সেই হার ভুলে আবারো জয়ের ধারায় ফিরতে চান টাইগার দলপতি সাকিব আল হাসান। কাবুলিওয়ালাদের বিপক্ষে টাইগারদের বোলিং বেশ ভালোই হয়েছে। ম্যাচ হেরেছে মূলত ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার কারণে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সেটা কাটিয়ে উঠতে চান টাইগার দলপতি। তার মতে, বোলারদের পারফরমেন্স সন্তোষজনক। দলের বেশিরভাগ ব্যাটসম্যানই ছন্দে ফিরতে লড়াই করছে। ব্যাটসম্যানদের ব্যাটে রান এলে জিম্বাবুয়েকে হারানো কঠিন হবে না। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচকে সামনে রেখে গতকাল কঠোর অনুশীলন করেছেন বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়রা।
অনুশীলন শেষে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেছেন মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। এ সময় ম্যাচ জিততে আরো বুঝেশুনে খেলতে হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। তার ভাষায়, টি-টোয়েন্টিতে স্কিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমরা মোটামুটি পরিকল্পনা অনুযায়ীই এগোচ্ছি। তবে কিছু কিছু জায়গায় ঘাটটি থেকে যাচ্ছে। এ কারণেই আমরা ম্যাচ হারছি। অধিকাংশ ম্যাচই আমরা হারছি অল্প ব্যবধানে। আর এই সমস্যা কাটিয়ে উঠতে মাঠে আমাদের আরো হিসেবি হতে হবে।
এদিকে দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া জিম্বাবুয়ে আজ বাংলাদেশকে হারিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে চাই। গতকাল অনুশীলনের ফাঁকে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় এমনটিই জানিয়েছেন দলটির অভিজ্ঞ ক্রিকেটার শেন উইলিয়ামস। তিনি বলেন, ফাইনালের আশা বাঁচিয়ে রাখতে আমাদের সামনে বাংলাদেশের বিপক্ষে জয়ের কোনো বিকল্প নেই। আমরা সেটা মাথায় রেখেই মাঠে নামব। আফিফ হোসেনের দুর্দান্ত এক ইনিংসে টাইগারদের বিপক্ষে আগের ম্যাচটি জিততে জিততে হেরে গেছে মাসাকাদজার দল। আফগানদের বিপক্ষে রোডেশিয়ানরা তৈরি করেছিল জয়ের সুযোগ। কিন্তু সেটা শেষ পর্যন্ত কাজে লাগানো সম্ভব হয়নি। ছোটো ছোটো কিছু ভুল এড়াতে পারলে জয় পাওয়া সম্ভব বলে বিশ্বাস করেন উইলিয়ামস। তার মতে, আমরা আগের দুই ম্যাচে ছোট ছোট কিছু ভুল করেছি। যে কারণে ম্যাচ আমাদের হাতছাড়া হয়ে গেছে। এসব ভুল থেকে আমরা শিক্ষা নিয়েছি। আমরা যদি মৌলিক দিকগুলো ঠিকঠাকভাবে করতে পারি তাহলেই ম্যাচ জয় সম্ভব। জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক মাসাকাদজাও টাইগারদের হারিয়ে জয়ে ফিরতে চান। তিনি জানান, আমরা বাংলাদেশের বিপক্ষে অনেক ম্যাচ খেলেছি। তাদের দুর্বল দিকগুলো আমাদের জানা আছে। ম্যাচ জিততে সেটাকেই কাজে লাগাতে হবে। আফগানদের বিপক্ষে হারায় এখন কিছুটা চাপে আছে টাইগাররা। জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটাররা সেটাকেই কাজে লাগাতে চান।
তবে জিম্বাবুয়ে যতই বাংলাদেশকে চাপে রাখতে চেষ্টা করুক না কেন, ফেভারিট হিসেবেই আজ মাঠে নামবেন সাকিব-মুশফিকরা। দুদলের মধ্যকার অতীত পরিসংখ্যানে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। এ পর্যন্ত টি-টোয়েন্টিতে দুদল ১০ বার মুখোমুখি হয়েছে। যেখানে টাইগারদের ৬ জয়ের বিপরীতে জিম্বাবুয়ে জিতেছে ৪টি ম্যাচ। এ ছাড়া র‌্যাঙ্কিংয়েও জিম্বাবুয়ের চেয়ে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। আইসিসি টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ে এখন টাইগারদের অবস্থান ১০ নম্বরে। অন্যদিকে র‌্যাঙ্কিংয়ের চতুর্দশ স্থানে আছে জিম্বাবুয়ে।
চট্টগ্রাম পর্বের ম্যাচগুলোকে সামনে রেখে গত সোমবার ১৫ সদস্যের স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। এই স্কোয়াডে নেই প্রথম দুই ম্যাচে খেলা সৌম্য সরকারের নাম। সে হিসেবে আজ বাংলাদেশ দলের একাদশে অবশ্যই পরিবর্তন দেখা যাবে। সৌম্যের জায়গায় একাদশে দেখা যেতে পারে তরুণ ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্তকে।