হোঁচট খেল লিভারপুল

আগের সংবাদ

আফগান নির্বাচন বানচালের চেষ্টায় কমপক্ষে ৪৮ জনকে হত্যা

পরের সংবাদ

গ্রামের মানুষসহ সব পশু দৃষ্টিহীন, কারণ…

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯ , ১:০৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯, ১:০৪ অপরাহ্ণ

Avatar

এই পৃথিবীতে রয়েছে নানা রকম রহস্যময় স্থান। এসকল স্থানের রহস্যময়তা নিয়ে যুগ যুগ ধরে প্রচারিত হচ্ছে নানা প্রকার কল্প কাহিনী। কখনও এসকল স্থানের নিয়ে প্রচারিত তথ্য হার মানায় রূপকথার গল্পকে। মেক্সিকোর ঘন অরণ্যের মধ্যে তেমনই ছোট্ট একটি গ্রাম টিলটেপেক যার সব মানুষ দৃষ্টিহীন! এই গ্রামেই থাকেন শতিনেক জাপোটেক জাতির মানুষ।

শুনতে অবাক লাগলেও এটাই সত্যি যে, এই গ্রামের প্রতিটি মানুষ দৃষ্টিহীন। শুধু তাই নয়, দৃষ্টিহীন গ্রামের পোষ্যরাও!

এই গ্রামেই রয়েছে লাবজুয়েলা নামে একটি গাছ। গ্রামবাসীদের বিশ্বাস এই গাছটিই অভিশপ্ত। তারা মনে করেন তাদের দৃষ্টিশক্তি কেড়ে নেয় ওই লাবজুয়েলা গাছই।

দাবি করা হয়, এই গ্রামে জন্মনেয়া বাচ্চারা প্রথমে সুস্থ-সবল ভাবে জন্মগ্রহণ করে। কিন্তু এক সপ্তাহ যেতে না যেতেই দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলে তারা।

পরে গ্রামের মানুষদের দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলার ঘটনা নিয়ে স্থানীয় প্রশাসন ও বিজ্ঞানীরা তদন্ত শুরু করে। লাবজুয়েলা গাছের যে গল্প গ্রাম জুড়ে ছড়িয়ে আছে তা নিয়েও তদন্ত করে তারা। কিন্তু দেখা যায়, ওই গাছের সঙ্গে এদের দৃষ্টিহীনতার কোনও সম্পর্কই নেই! তা হলে?

বিজ্ঞানীরা অনুসন্ধান চালিয়ে জানতে পারেন, এই ঘন অরণ্যে ‘ব্ল্যাক ফ্লাই’ নামে বিষাক্ত মাছি রয়েছে। যা টিলটেপেক গ্রামেও প্রচুর সংখ্যায় দেখা যায়। এই বিষাক্ত মাছির কামড়ে জীবাণু সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। যার কারণেই শিশু থেকে বুড়ো এবং পশুরাও ধীরে ধীরে দৃষ্টিশক্তি হারিয়ে ফেলে।

মেক্সিকো সরকার যখন এই গ্রাম সম্পর্কে জানতে পারে তখন তাঁদের অন্য স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু সেই প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয়।