বৃষ্টি বন্ধের আশায় ব্যাঙের বিবাহ বিচ্ছেদ

আগের সংবাদ

পারিবারিক কলহে সন্তানসহ চলন্ত ট্রেনের সামনে ঝাঁপ

পরের সংবাদ

সৌদিতে তেল ক্ষেত্রে হামলার পর কমে গেছে জ্বালানী তেলের সরবরাহ

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯ , ১:২৫ অপরাহ্ণ

সৌদি আরবের আবকাইক ও খুরাইস এলাকায় অবস্থিত দুটি তেল ক্ষেত্রে হামলার পর বিশ্বে জ্বালানী তেলের সরবরাহ ৫ শতাংশেরও বেশি কমে গেছে। একই সঙ্গে অপরিশোধিত তেলের দাম গত চার মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। ব্যারেল প্রতি প্রায় ৭২ ডলার বেড়েছে।

তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দেশটির রিজার্ভ থেকে তেল ছাড়ার বিষয়টি অনুমোদন করার পর জ্বালানী তেলের দাম আবারো কমতে শুরু করেছে।

সৌদি আরব পৃথিবীর সবচেয়ে বড় জ্বালানী তেল রপ্তানিকারক। প্রতিদিন তারা ৭০ লাখ ব্যারেলের বেশি জ্বালানী তেল রপ্তানি করে। যে দুটি তেলক্ষেত্রে হামলা হয়েছে সেগুলো আবারো উৎপাদনে আসতে কয়েক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে। এই তেলক্ষেত্র দুটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় তেল শোধনাগার। এগুলো সৌদি আরবের তেল শিল্পের কেন্দ্রে অবস্থিত।

এক বিবৃতিতে সৌদির জ্বালানি মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সৌদির দুইটি তেলক্ষেত্রে হামলার কারণে প্রতিদিনের তেল উৎপাদন কমেছে ৫০ লাখ ব্যারেল। বিশ্বের মোট উৎপাদনের প্রায় ৫ শতাংশ। কতদিনের মধ্যে এই অবস্থার পরিবর্তন হবে তা এখনও নিশ্চিত নয়।

সৌদি রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান আরামকো পরিচালিত দুটি তেল শোধনাগারে হামলার ঘটনার জন্য ইরানকেই দায়ী করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। অন্যদিকে ইরান বিষয়টিতে ‘ধোঁকাবাজি’ বলে বর্ণনা করেছে। তবে এই হামলার দায় স্বীকার করে ইয়েমেনের হুতি বিদ্রোহীরা।

শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সৌদির পূর্বাঞ্চলে রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত তেল উৎপাদন প্রতিষ্ঠান সৌদি অ্যারামকোর দুটি স্থাপনায় ড্রোন হামলার ফলে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।