তামাক কোম্পানি গুলোর হাত অনেক লম্বা: সাবের হোসেন চৌধুরী

আগের সংবাদ

ইটের স্থাপনার মধ্যে এক টুকরো সবুজের উপস্থিতি

পরের সংবাদ

জন্মদিনে ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত আহমদ রফিক

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯ , ৯:১৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৯, ৯:১৪ অপরাহ্ণ

Avatar

কথামালায়, কেক কেটে, শুভেচ্ছা বিনিময়ের মধ্য দিয়ে ভাষা সংগ্রামী ও রবীন্দ্র গবেষক আহমদ রফিকের ৯০তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন করলো তার ভক্ত ও শুভাকাঙ্খীরা। বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) ছিল এই বরেণ্যজনের ৯০তম জন্মদিন। বিকেলে আহমদ রফিকের ইস্কাটনের বাসায় ঘরোয়াভাবে এ জন্মদিনের আয়োজন করেছে প্রকাশনা সংস্থা অন্যপ্রকাশ।

অনুষ্ঠানে আহমদ রফিককে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান বাংলা একাডেমির মহাপরিচালকের পক্ষে একাডেমির পরিচালক ও লেখক মোবারক হোসেন ও কবি পিয়াস মজিদ। অন্যপ্রকাশের পক্ষে শুভেচ্ছা জানান প্রকাশনাটির প্রধান নির্বাহী মাজহারুল ইসলাম।

এ আয়োজনে আরও উপস্থিত ছিলেন আহমদ রফিক ফাউ-েশনের সভাপতি কবি মুনীর সিরাজ ও সাংবাদিক তুষার আবদুল্লাহ।

অনুভূতি প্রকাশে আহমদ রফিক বলেন, জন্ম মানেই মৃত্যুর দিকে ধাবিত হওয়া। তাই যতদিন বাঁচবো সুস্থভাবে বাঁচতে চাই। বিছানায় পড়ে জীবন কাটাতে চাইনা। জন্মদিন মানে আমার কাছে আরেক অর্থে বাঁচার জন্য নুতন আরেকটি বছর পাওয়া।

তিনি আরো বলেন, পঞ্চাশের দশক থেকেই আমরা একটি শোষণমুক্ত ও বৈষম্যহীন দেশ গড়ার জন্য সংগ্রাম করছি। একটি সুস্থ ও শিক্ষিত সমাজ গড়তে চেয়েছি। সেই সমাজ পরিবর্তনে সমাজ বদলের যে রাজনীতির প্রয়োজন ছিল সেটা হয়নি। এই কারণেই আজও পত্রিকার পাতা উল্টালে শুধু নারী নির্যাতন নয় শিশুদের নির্যাতনের চিত্রও দেখতে হয়। এমন প্রেক্ষাপটে জনবান্ধব রাজনীতির মাধ্যমে কাঙিক্ষত বাংলাদেশ গড়তে হবে।

প্রসঙ্গত, ১৯২৯ সালের ১২ সেপ্টেম্বর কুমিল্লায় জন্মগ্রহণ করেন ভাষা সংগ্রামী ও রবীন্দ্রগবেষক আহমদ রফিক। তার হাত দিয়েই প্রতিষ্ঠিত হয় রবীন্দ্রচর্চা কেন্দ্র। তিনি বাংলা একাডেমির ফেলো এবং বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটির জীবনসদস্য। ১৯৭৯ সালে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার, ১৯৯৫ সালে একুশে পদক ছাড়াও কলকাতার টেগোর রিসার্চ ইনস্টিটিউট থেকে পেয়েছেন ‘রবীন্দ্রতত্ত্বাচার্য’ উপাধি ও বাংলাদেশে রবীন্দ্রপুরস্কার (১৪১৮)।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা