ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের গণভবনের পাস বাতিল

আগের সংবাদ

বিএনপির কমসূচি

পরের সংবাদ

থানায় ধর্ষকের সঙ্গে ধর্ষিতার বিয়ে, ঘটনা নজরে রাখছেন হাইকোর্ট

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯ , ১২:০৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯, ১২:২৪ অপরাহ্ণ

Avatar

পাবনায় দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার গৃহবধূকে থানার ভেতরে অভিযুক্ত এক ধর্ষকের সঙ্গে জোর করে বিয়ে দেয়ার ঘটনা হাইকোর্টের নজরে এনেছেন এক আইনজীবী।

বুধবার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো: খায়রুল আলমরে হাইকোর্টে বেঞ্চে বিষয়টি নজরে আনা হয়।

বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জামিউল হক ফয়সাল। সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার গাজী ফরহাদ রেজা ও অ্যাডভোকেট রোহানী সিদ্দিকা। তিনি আদালতের কাছে বলেন, থানায় বসে গণধর্ষণের শিকার নারীর সঙ্গে ধর্ষণের মূল হোতার সঙ্গে বিয়ে দিয়েছেন ওসি।

আদালত বলেন, আজ টিভিতে দেখলাম মূল অভিযুক্ত ব্যক্তি আটক হয়েছেন। ওসিকেও শোকজ করা হয়েছে।

তখন আইনজীবী বলেন, পত্রিকায় দেখেছি ভিকটিম ও কাজীকে ওসির লোকজন ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। তাতে তদন্ত ভিন্ন মোড় নিতে পারে।

আদালত বলেন,আমরা বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছি। আগে দেখি প্রশাসন কি ব্যবস্থা নেয়। যথাযথ ব্যবস্থা না নিলে আগামী সপ্তাহে বিষয়টি আদালতের নজরে আনতে আইনজীবীকে বলা হয়।

‘দলবদ্ধ ধর্ষণের হোতার সঙ্গে ধর্ষিতার বিয়ে দিলেন ওসি’গত ৯ সেপ্টেম্বর বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়,দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার গৃহবধূকে থানার ভেতরে অভিযুক্ত এক ধর্ষকের সঙ্গে জোর করে বিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে পাবনা সদর থানার ওসি ওবাইদুল হকের বিরুদ্ধে। বলা হচ্ছে, গত শুক্রবার রাত ১০টার দিকে পাবনা সদর থানায় এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ ও তার পরিবারের সদস্যরা বলছেন, ধর্ষণের ঘটনায় তারা মামলা করতে চাইলেও স্থানীয় প্রভাবশালীদের চাপে মামলা না নিয়ে ওসি উল্টো ধর্ষক রাসেল আহমেদের সঙ্গে গৃহবধূকে জোর করে বিয়ে দিয়ে দেন।