পাকিস্তানের আকাশে ঢুকতে পারবে না ভারতের রাষ্ট্রপতির বিমান

আগের সংবাদ

৫ দফা দাবিতে সার্ভে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের সংবাদ সম্মেলন

পরের সংবাদ

রংপুর-৩ উপ নির্বাচন

তারেক রহমানের গুডবুকে কে?

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৯ , ৭:০৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৯, ৭:০৬ অপরাহ্ণ

Avatar

আজই ভাগ্য নির্ধারিত হবে। স্থায়ী কমিটির বৈঠকে তারেক রহমান মনোনয়ন দেবেন রংপুর-৩ আসনে বিএনপির প্রার্থী। এ কারণে বিএনপির প্রার্থীদের নজরও এখন লন্ডনে তারেক রহমানের দিকে। তারেক রহমানের গুডবুকে কে রয়েছেন এ নিয়েও দলটির মধ্যে চলছে নানান জল্পনা কল্পনা।

মনোনয়নপত্র কেনা ৫ প্রার্থীর সবারই বিশ্বাস তাকেই দেয়া হচ্ছে ধানের শীষ। প্রত্যেকে নিজ নিজ যোগ্যতা ইতোমধ্যেই জানিয়েছেন দলীয় ফোরামে। কেউ কেউ লন্ডনে পাঠিয়েছেন বায়োডাটা। শনিবার রাত ৮টায় স্কাইপেতে তারেক রহমান কি প্রশ্ন করবেন তার কি জবাব দেবেন এ নিয়ে বিস্তর পড়াশুনাও করছেন প্রার্থীরা। নির্বাচনী এলাকার খুটিনাটি তথ্যও মুখস্ত করে ফেলেছেন কেউ কেঊ। তদবির করে বেড়াচ্ছেন কয়েক প্রার্থী। মহাসচিবসহ সিনিয়র নেতাদের কাছে দিচ্ছেন ধর্ণা তারা।

মনোনয়নপ্রত্যাশী সদ্যপ্রয়াত রংপুর মহানগর বিএনপির সভাপতি মোজাফফর হোসেনের স্ত্রী সুফিয়া হোসেনের বিশ্বাস তিনিই পাচ্ছেন মনোনয়ন। তার বিশ্বাস-তার স্বামী যেহেতু মহানগরের সভাপতি ছিলেন বেঁচে থাকলে তিনিই পেতেন মনোনয়ন। স্বামী সদ্যপ্রয়াত হওয়ায় তার প্রতি দল সহানুভুতিশীল। স্থানীয় ভোটাররাও সহানুভুতি ভোটে তাকে বিজয়ী করবে। এ বিবেচনা মাথায় নিয়ে দল তাকেই বেছে নেবে।

রংপুর মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি কাওছার জামান বাবলার বিশ্বাস সভাপতির অনুপস্থিতিতে তিনিই যেহেতু ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, গত সিটি নির্বাচনে তিনিই ছিলেন দলের প্রার্থী এবং উল্লেখযোগ্য ভোট পেয়েছিলেন সে বিবেচনায় তারেক রহমান প্রধান নেতা হিসেবে তাকেই বিবেচনা করবেন।

রংপুর মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম মিজুর বিশ্বাস সভাপতির অনুপস্থিতিতে তিনিই যেহেতু প্রধান নেতা স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় দল তার ওপর ভরসা রাখবেন। রংপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রইস আহমেদ মনে করেন আসনটি যেহেতু শুধু সিটির মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয় সিটির বাইরের লোকজনও ভোটার সেজন্য জেলার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তার প্রাধান্যই থাকবে মনোনয়নের ক্ষেত্রে। বিএনপির শরিক বাংলাদেশ পিপলস পার্টির সভাপতি রিটা রহমান মনে করেন, ২০ দলীয় জোটের শরীক দল হিসেবে তার যেমন দাবি রয়েছে পাশাপাশি জিয়াউর রহমান সরকারের সিনিয়র মন্ত্রী দলটির প্রতিষ্ঠাকালীন সিনিয়র সদস্য মশিউর রহমান যাদু মিয়ার মেয়ে হিসেবে তার গ্রহণযোগ্যতা থাকবে তারেক রহমানের কাছে। উপরন্ত এ আসনটি যেহেতু বিএনপির নয় সেহেতু ২০ দলীয় জোটকেই এ আসনটি ছেড়ে দেবে বিএনপি।

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বিষয়টি সুরাহা হবে। বৈঠক শেষে মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সংবাদ সম্মেলনে প্রার্থী সম্পর্কে অবহিত করবেন।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা