একুশে পদকপ্রাপ্ত গবেষক মংছেনচীং আর নেই

আগের সংবাদ

পাকিস্তানের আকাশে ঢুকতে পারবে না ভারতের রাষ্ট্রপতির বিমান

পরের সংবাদ

গণফোরামের মূল লক্ষ্য জনগণের ঐক্য: ড. কামাল

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৯ , ৬:২২ অপরাহ্ণ | আপডেট: সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৯, ৯:৩৪ অপরাহ্ণ

কাগজ প্রতিবেদক

গণফোরামের মূল লক্ষ্য জনগণের ঐক্য। দেশে বহুদল থাকলেও মৌলিক বিষয়ে ঐক্যমত থাকতে হবে। আজ শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর মহানগর নাট্যমঞ্চে গণফোরামের ২৬ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন গণফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ড. কামাল হোসেন।

সভায় ড. কামাল বলেন, গণফোরামের মূল লক্ষ্য জনগণের ঐক্য। দেশে বহুদল থাকলেও মৌলিক বিষয়ে ঐক্যমত থাকতে হবে। দেশে আইনের শাসন বজায় থাকলে অস্থিতিশীলতা থেকে আমরা বাঁচবো। জাতীয় ঐক্যের প্রচেষ্টা ৭০ থেকে চলছে, আজ সেটার সুফল দেখা যাচ্ছে। জনগণ ক্ষমতার মালিক এটি নিয়ে দ্বিমত রাখার সুযোগ নেই। ১৯৭২ সালের সংবিধানের মূলনীতি মানুষের কাছে পৌছে দিতে হবে। অনেক বার ১৯৭২ সালের সংবিধানকে কাটছাট করার অপচেষ্টা হয়েছে।

তিনি বলেন, জনগণ অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে প্রতিনিধি নির্বাচন করবে এবং সেটা হয়ে আসছে। জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধিরা দেশ শাসন করবে সেটাই চাই। দেশের সকল মানুষকে ক্ষমতায়ন করতে হবে। সংবিধানের মূলনীতি গুলোকে সামনে রেখে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

এ সময় আ স ম আব্দুর রব বলেন, ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে আদর্শ কোন বাধা হয় না আওয়ামী লীগের। ক্ষমতায় থাকলে তারা দলীয় সরকার চায়, বিরোধী দলে থাকলে চায় তত্বাবধায়ক সরকার। দল মত সবাইকে এক প্লাটফর্মে নিয়ে আসতে পারলে এই স্বৈরাচারি সরকার একঘন্টাও টিকতে পারবে না। আজ বিচার বিভাগকে ব্যবহার করা হচ্ছে। স্বাধীনতা সার্বোভৌমত্ব আজ হুমকীর সম্মুখীন।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক হমুদুর রহমান মান্না বলেন, রাষ্ট্রের অস্তিত্ব নিয়ে শংকা তৈরী হয়েছে। আত্নসমর্পনের রাজনীতির কারনে রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠাতে চাইলেও সরকার তা পারছে না। সরকার শুধু নিজের দেশের জনগণের সাথে যুদ্ধ করে জয়ী হতে পেরেছে। ঐক্য বিস্তৃত করতে গিয়ে যেনো কোন ফাটল তৈরি না  হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে।

সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড: মঈন খান বলেন, ঐক্যবদ্ধ হয়ে সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে মানুষের অধিকার প্রতিষ্টা করতে হবে।