এডিএনের আইপিও অনুমোদন

আগের সংবাদ

দুই ম্যাচ জিতে শীর্ষে ভারত

পরের সংবাদ

রোনালদোকে বদলে দিলেন যে নারী

খেলা ডেস্ক

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৯ , ৯:৫৭ অপরাহ্ণ

একসময় ফুটবল পাড়ায় একটি কথার প্রচলন ছিল- কাপড় বদলানোর মতো বান্ধবী বদলান পর্তুগিজ ফুটবলার ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। তার বান্ধবীদের তালিকায় আছে ডজন খানেক সুন্দরীর নাম। তাদের কারো সঙ্গেই ছয় মাস কিংবা এক বছরের বেশি সময় কাটাননি তিনি। তবে জর্জিনা রদ্রিগেজ নামক এক স্প্যানিশ রমণীর আগমনের পরই পাল্টে গেছেন রোনালদো। গত প্রায় ৪ বছরের বেশি সময় ধরে এই রমণীর প্রেমেই মত্ত হয়ে আছেন বর্তমান বিশে^র অন্যতম সেরা ফরোয়ার্ড।

সুন্দরী রমণীদের সঙ্গে রোনালদোর প্রণয়ে জড়ানোর শুরুটা হয় মূলত ২০০২ সাল থেকে। তখনো তারকা হয়ে উঠেননি তিনি। ওই সময় পর্তুগিজ মডেল কারিনা ফেররোর সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক বছর ঘুরতে না ঘুরতেই ২০০৩ সালে স্পোর্টিং লিসবনের হয়ে খেলার সময় ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার মারিয়ো জার্দেলের বোন জর্ডানা জার্দেলের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেমের ক্ষেত্রে নিজের চেয়ে বয়সে অনেক বড় নারীকেও ছাড়েননি এই সুপারস্টার। নিজের বয়সের চেয়ে ৯ বছরের বড় পর্তুগিজ টিভি উপস্থাপিকা মির্চি রোমেরোর সঙ্গে ছয় মাস চুটিয়ে প্রেম করেছেন রোনালদো। মডেল, অভিনেত্রী ও উপস্থাপিকার পর তিনি হাবুডুবু খান কিম কার্দাসিয়ানের মতো পর্ণ তারকার প্রেমে।

তবে ২০১০ সালে রাশিয়ান মডেল ইরিনা শায়াকের সঙ্গে শুরু হওয়া সম্পর্কের স্থায়িত্ব ছিল অন্যদের চেয়ে বেশি। ওই সময় শোনা গিয়েছিল বিয়ে করবেন তারা। কিন্তু ৫ বছরের প্রেমের সম্পর্কের পর প্রতারণার অভিযোগে সেটির ইতি ঘটে। প্রতারনার অভিযোগের আঙ্গুলটি ছিল মূলত রোনালদোর দিকেই। প্রতারনার মূল বিষয় ছিল নারীদের প্রতি পর্তুগিজ সুপারস্টারের মাত্রাতিরিক্ত আসক্তি।

কিন্তু গত ৪ বছর ধরে রোনালদো প্রেম করছেন জর্জিনা রদ্রিগেজের সঙ্গে। এখন শুধু তার প্রেমেই হাবুডুবু খাচ্ছেন তিনি। এমনকি এখন জর্জিনা ছাড়া আর কোন নারীর সঙ্গেও তার প্রেমের সম্পর্কের কথা শোনা যায় না। তিনি যদি অন্য কোন নারীর সঙ্গে মেলামেশা করতেন তাহলে সেটা নিশ্চয় মিডিয়ায় বড় করে প্রচার হতো। অনেকেরই জানার আগ্রহ আসলে কে এই জর্জিনা? যার ছোঁয়ায় বদলে গেছেন রোনালদো।

 

স্পেনের জাঁকা নামক শহরে ১৯৯৫ সালে জন্মগ্রহণ করেন জর্জিনা রদ্রিগেজ। তার মা ছিলেন স্প্যানিশ। আর বাবা আর্জেন্টিনার নাগরিক। আকর্ষনীয় ফিগারের এই স্প্যানিশ সুন্দরীর নাচের উপর রয়েছে বিশেষ দক্ষতা। পড়াশোনা করেছেন লন্ডনে। শিক্ষার্থী থাকাকালে রেস্টুরেন্টে খাবার পরিবেশনের কাজও করেছেন তিনি। এরপর স্পেনে ফিরে এসে ইতালিয়ান তৈরি পোশাকের ব্রান্ড ‘গুসির’ একটি স্টোরে সেলসম্যান হিসেবে কাজ করা শুরু করেন জর্জিনা রদ্রিগেজ।

সালটা ২০১৬। ওই বছর ঘটনাচক্রে একদিন শ্যুটিংয়ের কাজে সেই দোকানে যান রোনালদো। সেখানে প্রথম দেখাতেই জর্জিনার প্রেমে পড়ে যান পর্তুগজি সুপারস্টার। একই অবস্থা জর্জিনারও। তিনিও প্রথমবার দেখেই রোনালদোর প্রেমে পড়েন। এরপর দুজনের মধ্যে পরিচিত। পরিচয় থেকে গড়ে ওঠে বন্ধুত্ব। কিন্তু দুজনেরই যেহেতু পরস্পরের প্রতি ভালোলাগা ছিল, তাই বন্ধুত্বটা প্রেমে রূপ নিতে বেশি সময় লাগেনি।

জর্জিনার আগমনের আগেই রোনালদো তিন সন্তানের জনক ছিলেন। কিন্তু তাদের কারোরই মায়ের নাম প্রকাশ করেননি তিনি। তবে জর্জিনার ক্ষেত্রে এমনটি হয়নি। দেড় বছর আগে জর্জিনা জন্ম দেন রোনালদোর চতুর্থ সন্তানের। এবার আর মায়ের পরিচয় গোপন রাখেননি পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মা ও কন্যার ছবি পোস্ট করে রোনালদো নিজেই বিষয়টি ভক্তদেরকে জানান। শুধু তাই নয়, রোনালদো জর্জিনাকে দিয়েছেন তার সব সন্তানদের মায়ের স্বীকৃতি।

রোনালদোর জীবনে জর্জিনার আগমন ঘটে ২০১৬ সালে। এরপর টানা দুইবার তিনি ব্যালন ডি’অরের পুরস্কার জিতেছেন। তাছাড়া ২০১৬ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত খেলা ও বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে আয় করে তার সম্পদের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ১৫০ মিলিয়ন ডলার। প্রতিবছরই বাড়ছে তার হোটেল, কাপড় ও বিভিন্ন রকম ব্যবসার পরিধি।