গাইবান্ধায় অগ্নিকাণ্ডে স্বামী নিহত, আহত স্ত্রী

আগের সংবাদ

নাটোরে সাপের কামড়ে যুবকের মৃত্যু

পরের সংবাদ

কেউ কারো নাহি ছাড়ে সমানে সমান

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ৩১, ২০১৯ , ৩:০৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ৩১, ২০১৯, ৩:০৩ অপরাহ্ণ

Avatar

কেউ কারো নাহি ছাড়ে সমানে সমান। জনপ্রিয়তার বিচারে জিয়াউল ফারুক অপূর্ব ও আফরান নিশোর অবস্থান এখন এমনই। ছোটপর্দার সবচেয়ে ব্যস্ত দুজন অভিনেতা কে কোন দিকে এগিয়ে কিংবা পিছিয়ে আছেন, কোথায় যাচ্ছে তাদের সুগঠিত ক্যারিয়ার, তারই বিশ্লেষণ করলেন স্বাক্ষর শওকত
গত কয়েক বছর ধরেই বিচিত্র ধরনের চরিত্রে অভিনয় করছিলেন অভিনেতা আফরান নিশো। এ কারণে তিনি হয়ে উঠেছিলেন টিভি সমালোচকদের সবচেয়ে প্রিয় অভিনেতা। তার অভিনয়ের বৈচিত্র্য নিয়ে আলোচনায় মুখর থাকতেন সচেতন দর্শকরা। গত দুই বছরে এই চিত্র অনেকটা বদলেছে। আজকাল তার অভিনয়ের প্রশংসার চেয়েও তার জনপ্রিয়তার খবর বেশি শোনা যায়। তিনি শুধু জনপ্রিয়তায় প্রথম সারিতে ঢুকে পড়েননি, হয়ে উঠেছেন সবচেয়ে ব্যস্ত অভিনেতাও। এবারের ঈদে টেলিভিশন ও অনলাইন প্ল্যাটফর্ম মিলিয়ে সর্বমোট ৩৭টি নাটকে অভিনয় করেছেন নিশো। সংখ্যার বিচারে এর চেয়ে বেশি সংখ্যক নাটক আর কোনো অভিনেতাই করেননি। বিশেষ করে আশফাক নিপুণের নাটকে অভিনয় করে এই ঈদে বেশি প্রশংসিত হয়েছেন।
‘আগুন্তুক’ ও ‘এই শহরে’ প্রডাকশনে দুটি ভিন্নধর্মী চরিত্রে অভিনয় করে নিজেকে আরো পরীক্ষিত করেছেন নিশো। এই দুটিই এই ঈদে প্রচারিত শত শত কাজের ভিড়ে অন্যতম সেরা কাজ। এ ছাড়া তার অভিনীত অন্যান্য নাটকের মধ্যে ‘ইনিয়াত’, ‘ভিউ’, ‘বিউটিফুল’, ‘প্রশংসায় পঞ্চমুখ’, ‘মোবাইল চোর’ ছিল অন্যতম। সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেতার সাম্প্রতিক নাটক নির্বাচন নিয়ে দর্শকদের অভিযোগ দিন দিন বাড়ছেই। বিশেষত তানজিন তিশা ও মেহজাবিনের সঙ্গে তার জুটিবদ্ধ হয়ে প্রচুর নাটকে অভিনয়ের জন্য তিনি সমালোচিত হয়েছেন। অপূর্বর মতো তার বিরুদ্ধেও অভিযোগ তিনি নির্দিষ্ট অভিনেত্রীর বাইরে অভিনয় করতে চান না। এই অভিযোগ তাকে পিছিয়ে দিচ্ছে। যে প্রশংসার তরী বেয়ে এতদূর অবধি এসেছেন নিশো, তাতে এখনো
ভাটার টান নেই, কিন্তু নাটকের সংখ্যাধিক্যের কারণে তার ভবিষ্যৎ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন শুভাকাক্সক্ষীরা। যদিও তিনি বেশকিছু ভালো মানের নাটকে অভিনয় করে এবারের ঈদে প্রশংসিত ও আলোচিত হয়েছেন। তবু দর্শকরা প্রত্যাশা করেন তার পূর্বসূরি অনেকের মতো অতিরিক্ত কাজ করে দর্শকদের কাছে একঘেয়ে হয়ে উঠবেন না নিশো।
অনেকের মতে, জিয়াউল ফারুক অপূর্ব টেলিভিশন নাটকে এই সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় অভিনেতা। তার ক্যারিয়ারের বড় টার্নিং পয়েন্ট ২০১৭ সালে ‘বড় ছেলে’ টেলিফিল্ম অভিনয়। এটি ছিল স্মরণকালের জনপ্রিয় প্রডাকশন। এরপরই শুরু হয় অপূর্বর ক্যারিয়ারের সুবর্ণ অধ্যায়। এখন তিনি ব্যস্ত অভিনেতা। একের পর এক নাটক করে ঝুলিতে নাটকের সংখ্যা বাড়িয়েই যাচ্ছেন। জনপ্রিয়তার শীর্ষে এলে দর্শক থেকে যেমন প্রশংসায় ভাসছেন, তেমনই বিস্তর অভিযোগও আসছে। ‘বড় ছেলে’ দারুণ জনপ্রিয় হলেও এক শ্রেণি এই নাটককে একেবারেই পছন্দ করেনি, অভিনেতা হিসেবেও অপূর্ব এখনো উঁচুদরের হতে পারেননি বলেই তাদের মতো। এই অভিযোগ তিনি নিজেই খন্ডাচ্ছেন না, নিজেকে ভাঙছেন না।
গত দুই বছর ধরে বলতে গেলে প্রায় একই ধারার নাটক করে যাচ্ছেন। তার অন্যতম ভুল বলে মনে করা হচ্ছে হলো যারা ভালো নাটক বানানোর জন্য সুপরিচিত তাদের সঙ্গে কাজ করছেন না অপূর্ব। বর্তমানে ছোটপর্দায় আরিয়ান-অপূর্ব জুটি অনেক গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু আগের মতো তাদের সেই রসায়ন জমছে
না। ব্যাচ ২৭, সংসার, সেই ছেলেটি’র মতো অন্য নাটকগুলো দর্শকরা প্রশংসা করছেন না।
মাবরুর রশিদ বান্নাহর সঙ্গেও অপূর্ব মোটামুটি কাজ করেন, তবে সেই একই বৃত্তে আটকে আছেন। অপূর্ব এখন ক্যারিয়ারের সেরা সময়ে আছেন। এই সেরা সময়টুকু সঠিকভাবে কাজে লাগানোর ভক্তদের দাবি অনেক। গৎবাঁধা রোমান্টিক চরিত্র থেকে তার বেরিয়ে আসা উচিত বলে অনেকে মনে করেন। রোমান্টিক চরিত্রে তিনি অনন্য, তাই তার এত জনপ্রিয়তা। কিন্তু এই ঘরানায় কীভাবে বৈচিত্র্য আনা যায় সে দিকেও লক্ষ রাখার জন্য তাকে পরামর্শ দিয়েছেন শুভাকাক্সক্ষীরা। অপূর্ব রয়েছেন ২০টির মতো নাটকে।
অন্যান্য ঈদের তুলনায় এই ঈদে নিষ্প্রভ ছিলেন এই অভিনেতা। এই ঈদে তার আলোর প্রদীপ হয়ে এসেছে ‘লাইফ ইন্স্যুরেন্স’ নাটকটি ভালো অভিনয় করেছেন।
এ ছাড়া ‘কেস ৩০৪০’ টেলিফিল্মে স্বল্প উপস্থিতির পাশাপাশি অন্যান্য নাটকের মধ্যে ‘কুহক’, ‘মায়া’, ‘হার্টবিট’, ‘রিলেশনশিপ’ অন্যতম।

  • আরও পড়ুন
  • লেখকের অন্যান্য লেখা