জিতলেই ফাইনালে বাংলাদেশ

আগের সংবাদ

সালমানের ডাক পাচ্ছেন রানু মণ্ডল

পরের সংবাদ

সেপ্টেম্বরে ভারতের প্রেক্ষাগৃহে জ্যোতি

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ২৭, ২০১৯ , ১:৩৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: আগস্ট ২৭, ২০১৯, ১:৩৪ অপরাহ্ণ

Avatar

শরৎচন্দ্রের গল্পকে ভেঙে অন্যরকম একটি রূপ দেয়া হয়েছে এপার বাংলার অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতি অভিনীত ‘রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত’ সিনেমাটিকে। জ্যোতি জানান সিনেমার নামটি তখনকার হলেও গল্পটা এই সময়ের। তবে শরৎচন্দ্রের রাজলক্ষ্মীর ছায়া অবলম্বনেই নির্মিত হয়েছে তার অভিনীত এই সিনেমাটি। এটি নির্মাণ করেছেন ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক প্রদীপ ভট্টাচার্য।
জানা যায় গল্পে আছে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট। আছে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক বিষয়সহ একজন নারীর জীবনের একটি অন্যরকম ভ্রমণের গল্প। আগামী ২০ সেপ্টেম্বর কলকাতায় মুক্তি পাচ্ছে ‘রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্ত’। এরই মধ্যে ট্রেলারে দারুণভাবে প্রশংসিত হচ্ছেন জ্যোতি। তবে কী কী কারণে মূলত জ্যোতি অভিনীত এই সিনেমাটি দেখা উচিত সেই প্রসঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। জ্যোতিকা জ্যোতি বলেন, ১০০ বছর আগের গল্পটিকে কীভাবে পরিচালক প্রদীপ ভট্টাচার্য বর্তমান সময়ে নিয়ে এসেছেন তা উপলব্ধি করার জন্য এই সিনেমাটি দর্শকের দেখা উচিত। এই সিনেমায় মানুষ এমন নতুন রাজলক্ষ্মী ও শ্রীকান্তকে দেখবে দর্শক কখনো ভাবেনওনি। সিনেমাটি কিংবদন্তি সাহিত্যিক শরৎচন্দ্র, প্রদীপ্ত ভট্টাচার্যের মতো নির্মাতা, ঋত্বিক চক্রবর্তীর মতো অভিনেতা এবং বাংলাদেশের আমি জ্যোতি যার টলিউড অভিষেক এই সিনেমা দিয়ে, এই সবার মিশ্রণে কি তৈরি হলো তা দেখার জন্য এই সিনেমাটি মানুষ আগ্রহ নিয়ে দেখবে বলেই আমি বিশ্বাস করি। রাজলক্ষ্মী-শ্রীকান্তর একটি নির্দিষ্ট চেহারা মানুষের মনে গেঁথে আছে। এই সিনেমায় তা একেবারে ভেঙে নতুন চেহারায় হাজির করা হয়েছে। এই নতুনত্বের স্বাদ নেয়ার জন্য দর্শক সিনেমাটি দেখবে। সিনেমাটির গল্প বলার ধরন এমন যে, মানুষ যা যা ভেবে হলে যাবে তার কোনোকিছুর সঙ্গেই এই গল্প মিলবে না। একদম আলাদা কিছু দেখবে। উল্লেখ্য, বাংলাদেশে জ্যোতি প্রথম অভিনয় করেন কবরীর নির্দেশনায় ‘আয়না’ সিনেমায়।